Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ২ কার্তিক ১৪২১ সোমবার ২০ অক্টোবার ২০১৪
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  সম্পাদকীয়  খেলা  আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
সুদিন মোদিরই ।। ফল দেখেই স্লোগান আকবর রোডে: ‘প্রিয়াঙ্কা লাও’ ।। বর্ধমানে মেয়েদের বহু অনুমোদনহীন মাদ্রাসার হদিশ ।। বহু বেআইনি মাদ্রাসায় তল্লাশি ।। কর্মীদের জয়া: আগুনের সমুদ্রে সাঁতার কাটছি সারা জীবন ।। ৩ রাজ্যে উপনির্বাচনে জয়ী বি জে পি, কং, বি জে ডি ।। কর্মীদের চাঙ্গা করতে ৫ নভেম্বর থেকে জেলা সফর শুরু মমতার ।। উদ্ধার হওয়া বিস্ফোরক, অ্যাসিডের চরিত্র কী জানা নেই এখনও ।। কলকাতা ছেয়ে গেছে স্নাইপার, পিস্তলে!--সোমনাথ মণ্ডল ।। থিমের রমরমা কালীপুজোতেও--শিখর কর্মকার ।। বাধা ঠেলে জাঠা দাপাল জেলা ।। মুকুলের কলঙ্ক মমতা গায়ে মাখতে রাজি নন: অধীর
কলকাতা

কলকাতা ছেয়ে গেছে স্নাইপার, পিস্তলে!

থিমের রমরমা কালীপুজোতেও

আনন্দীলাল পোদ্দারের জন্ম শতবার্ষিকী পালন

কলকাতা ছেয়ে গেছে স্নাইপার, পিস্তলে!

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share

সোমনাথ মণ্ডল

কলকাতা শহর ছেয়ে গেছে স্নাইপার রাইফেল, সাইলেন্সর লাগানো পিস্তলে৷‌ টালা, ময়দান, বেহালা, যাদবপুর, এজরা স্ট্রিটে মিলছে এই সমস্ত পিস্তল, বন্দুক৷‌ ছোটদের হাতে হাতেও ঘুরছে! টেলিলেন্স লাগানো স্নাইপারের দাম ৯০০ টাকা৷‌ সাইলেন্সর লাগানো পিস্তল ৪০০ টাকা৷‌ এবারের কালীপুজোয় বাচ্চাদের কাছে সব থেকে বেশি আকর্ষণ এই সমস্ত আগ্নেয়াস্ত্র৷‌ তবে গুলির বদলে ক্যাপ আর প্লাস্টিকের বল বেরোবে৷‌ বাজিবাজারে আলোর বাজির পাশাপাশি চাহিদা এই সমস্ত রঙবেরঙের পিস্তল, বন্দুকের৷‌ কোনওটার রঙ লাল, কোনওটার সবুজ৷‌ কালো আর স্টিল রঙের তো আছেই৷‌ নাইন এম এমের আদলেও ক্যাপ ফাটানোর পিস্তল এনেছেন বিক্রেতারা৷‌ এই পিস্তলের ভাল চাহিদা রয়েছে, তবে বেশি পছন্দ স্নাইপার, সাইলেন্সর লাগানো পিস্তল৷‌ রবিবার ময়দান-সহ শহরের বাজিবাজারগুলি ছিল জমজমাট৷‌ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের বাজির পাশাপাশি আমদানি হয়েছে চীনা বাজিও৷‌ এমনকি চীনের তৈরি ফানুসও পাওয়া যাচ্ছে৷‌ দাম ৬০ থেকে ১০০ টাকার মধ্যে৷‌ চীনের হাওয়াইয়ের ভাল চাহিদা রয়েছে৷‌ ১৫০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে কিছু দোকানে৷‌ চীনের তৈরি মোমবাতিতে ফুল, ফলের গন্ধ৷‌ দাম ৬০ থেকে ১২০ টাকা৷‌ এ ছাড়া রয়েছে নানা রঙের ফ্লোটিং ক্যান্ডেল৷‌ সেখান থেকেও নানা রকমের সুবাস বেরোবে বলে দাবি বিক্রেতাদের৷‌ এ ছাড়া তুবড়ি, চরকি, রঙবেরঙের বিভিন্ন মাপের ফুলঝুরি, ডান্সিং ফ্রগ ছাড়াও এ বছর নতুন আরও বাজি দেখতে পাওয়া যাচ্ছে বাজিবাজারে৷‌ স্বভাবতই খুশি ক্রেতারা৷‌ দাম হাতের নাগালে থাকায় একটু বেশি খুশি হয়েছেন ক্রেতারা, দাবি বিক্রেতাদের৷‌ যদিও কিছু কিছু বাজির দাম গত বছরের তুলনায় অনেকটাই বেড়ে গেছে বলে জানালেন বেহালা থেকে আসা অমিত দাস৷‌ বাজিবাজারে প্রতি বছরই আসেন হীরক বিশ্বাস৷‌ তিনি জানালেন, এ বছর অনেক নতুন ধরনের বাজি বিক্রি হচ্ছে ঠিকই, কিন্তু দাম একটু বেশি৷‌ তারাবাজি ২০ টাকা প্যাকেট, চরকি ৪০ টাকা প্যাকেট, বড় ৬৫ টাকা, দড়িবাজি ২০ টাকা, রঙমশাল ১০ পিসের দাম ১০০ টাকা, তুবড়ি ৩০-৩৫ টাকা৷‌ এ ছাড়া বাটারফ্লাই, চটপটি, জেনারেটা ৪০ থেকে ৬০ টাকা প্রতি প্যাকেট৷‌ সারা বাংলা আতশবাজি উন্নয়ন সমিতির চেয়ারম্যান বাবলা রায় বলেন, ‘প্রতি বছরের মতোই এ বছরও আমরা নিয়ম মেনে বাজিবাজারে বিভিন্ন ধরনে বাজি বিক্রি করছি৷‌ অভিযোগ, ৯০ ডেসিবেলের শব্দমাত্রায় আমাদের রাজ্যে বাজিবাজারের ক্ষতি হচ্ছে৷‌ যদিও পুলিস-প্রশাসনের সঙ্গে সহযোগিতা করে আমার ক্রেতাদের হাতে কম দামে বাজি তুলে দেওয়ার চেষ্টা করছি৷‌’ এদিকে শহরের বিভিন্ন বাজিবাজারে মোতায়েন রয়েছেন কলকাতা পুলিসের কর্মীরা৷‌ এ ছাড়াও পুলিসের পদস্হ কর্তারা মাঝেমধ্যেই টহল দিচ্ছেন৷‌ পৌঁচ্ছে যাচ্ছেন খোদ নগরপাল সুরজিৎ কর পুরকায়স্হ৷‌ সবার কাছে তাঁর আবেদন, পুজোর সময় শব্দবাজি ফাটাবেন না৷‌ শহরকে শব্দদূষণ থেকে মুক্ত করতে তিনি সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন৷‌ নিয়ম মেনে পুজো করলে পুরস্কৃতও করা হবে৷‌ এ ছাড়া পুজোর সময় বহুতল থেকে যেমন নজরদারি চালানো হবে, পাশাপাশি অতিরিক্ত মহিলা-সহ সাদা পোশাকের পুলিসও টহল দেবে কালীপুজোর সময়৷‌





kolkata || bangla || bharat || editorial || khela || Tripura || Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited