Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ১৩ মাঘ ১৪২১ বুধবার ২৮ জানুয়ারি ২০১৫
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  বিদেশ  সম্পাদকীয়  খেলা  আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
সারদা, সিঙ্গুর: শুনানি পিছোল সুপ্রিম কোর্টে--রাজীব চক্রবর্তী, দিল্লি ।। গান্ধী, বিবেকানন্দ থেকে শাহরুখে মাতিয়ে গেলেন--রাজীব চক্রবর্তী, দিল্লি ।। মুখ্যমন্ত্রী: গণতন্ত্রের অঙ্গন হল বইমেলা ।। প্রার্থী নিয়ে কং-কোন্দল ।। দলকে আরও কড়া বার্তা দিতে শনিবার কালীঘাটে দলের বৈঠক ।। বেসুর ছাত্রীকে যৌন হেনস্হায় ছুটিতে শিক্ষক ।। ব্যাগে ১৬ কোটি বিদেশি মুদ্রা নিয়ে রাইমা গ্রেপ্তার--সব্যসাচী সরকার ।। ফের পিছিয়ে গেল সিঙ্গুর মামলা, হতাশ সিঙ্গুরবাসী--নীলরতন কুণ্ডু ।। সিবাল সরিয়ে জোট সম্ভাবনা ওড়ালেন অধীর--অলক সরকার ।। তৃণমূল ও বি জে পি-র ফারাক নেই: সূর্যকাম্ত--সুখেন্দু আচার্য ।। রেড রোডে উৎসবের আমেজ ।। আনন্দধারার দায়িত্বে বেচারাম
বাংলা

প্রার্থী নিয়ে কং-কোন্দল

মৃত্যু পর্যটকের, জখম ১০ যাত্রী, তদম্তে রেল

ফের পিছিয়ে গেল সিঙ্গুর মামলা, হতাশ সিঙ্গুরবাসী

কর্মসংস্কৃতি ফেরাতে বি জে পি-র কর্মচারী পরিষদ

কুলতলি: জামিন পেল অভিযুক্তরা!

ব্যাগে ১৬ কোটি বিদেশি মুদ্রা নিয়ে রাইমা গ্রেপ্তার

বেসুর ছাত্রীকে যৌন হেনস্হায় ছুটিতে শিক্ষক

সিবাল সরিয়ে জোট সম্ভাবনা ওড়ালেন অধীর

বারাসতে মাকে খুন করে আত্মঘাতী মেয়ে

তৃণমূল ও বি জে পি-র ফারাক নেই: সূর্যকাম্ত

স্কুল সার্ভিস কমিশনের দপ্তরে আবার অনশনে প্যানেলভুক্ত পরীক্ষার্থীরা

বিমান: মমতার নরম ধর্মনিরপেক্ষতার নীতিতে বাড়ছে বিভেদের রাজনীতি

দুর্নীতি করলে অক্সিজেন কমে যাবে, সততার পথে থাকলে বেশি যাবে, বললেন সিউড়ির বিধায়ক

সর্বত্র ফ্রন্টের মানবশৃঙ্খল

আনন্দধারার দায়িত্বে বেচারাম

রোজভ্যালির মামলায় আইনজীবীদের টাকা কীভাবে?

রাজ্য বাজেট ২৭ ফেব্রুয়ারি

প্রার্থী নিয়ে কং-কোন্দল

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share

নিরুপম সাহা, সোহম সেনগুপ্ত: বনগাঁ ও বারাসত, ২৭ জানুয়ারি– মনোনয়নপত্র জমা দিলেন বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্রের কংগ্রেস প্রার্থী কুম্তল মণ্ডল৷‌ মঙ্গলবার তিনি দলীয় কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে বারাসতে জেলাশাসকের দপ্তরে আসেন৷‌ এদিকে এর আগে সোমবার কর্মিসভা চলাকালীন দলের কর্মীদের একাংশের হাতেই আক্রাম্ত হন বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্রের কংগ্রেসের এই প্রার্থী৷‌ ভাঙচুর করা হয় সভার চেয়ার-টেবিলও৷‌ এই ঘটনায় ক্ষুব্ধ কংগ্রেসের জেলা থেকে প্রদেশ নেতৃত্ব৷‌ এদিন অবশ্য জেলাশাসকের দপ্তরে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার পর কুম্তলবাবু জানান, যুব সম্প্রদায়ের জন্য কাজ করার পাশাপাশি বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্রের মানুষের জন্য তিনি ধারাবাহিকভাবে উন্নয়নের কাজ চালাবেন৷‌ নিজেকে মতুয়া সম্প্রদায়ের একজন বলে দাবি করেন কুম্তল৷‌ দলীয় সূত্রে জানা গেছে, গত লোকসভা নির্বাচনে বনগাঁ কেন্দ্রের জন্য বসিরহাট এলাকার বাসিন্দা ইলা মণ্ডলকে প্রার্থী করে দল৷‌ পরিবারের অন্য সদস্যরা রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত থাকলেও তিনি নিজে রাজনীতির সঙ্গে সরাসরি যুক্ত ছিলেন না৷‌ ভোটের প্রচারে তিনি মাত্র দু’দিন বনগাঁয় এসেছিলেন বলে অভিযোগ৷‌ এই পরিস্হিতিতে স্হানীয় প্রার্থী হিসেবে বনগাঁ শহর কুম্তল মণ্ডল, নীলাক্ষ সাহা এবং চিত্তরঞ্জন রায় দলের প্রার্থী হওয়ার জন্য আবেদন জানান৷‌ পরে বাগদা থেকে রাম বসু নামে আরও একজন আবেদন করেন৷‌ এই নামগুলি প্রদেশে পাঠিয়ে দেয় শহর কংগ্রেস কমিটি৷‌ এরপর দিল্লি থেকে এ আই সি সি কুম্তল মণ্ডলের নাম চূড়াম্ত করে৷‌ ওই দিনই রাত ১১টা নাগাদ বনগাঁ পুরসভার দীর্ঘদিনের কংগ্রেস কাউন্সিলর সাধন দাস-সহ একদল কংগ্রেসকর্মী প্রার্থী কুম্তলের বাড়ি চড়াও হয়ে প্রার্থিপদ প্রত্যাহার করে নেওয়ার জন্য হুমকি দেন বলে কুম্তলের অভিযোগ৷‌ এই মর্মে পরদিন বনগাঁ থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়৷‌ প্রদেশ সভাপতি অধীর চৌধুরিকেও জানানো হয়৷‌ তদম্ত করতে পুলিস সাধন দাসের বাড়িতে যায়৷‌ ২৬ জানুয়ারি দুপুরে বনগাঁ শহর কংগ্রেস কার্যালয় প্রাঙ্গণে কর্মী-বৈঠকের আয়োজন করা হয়৷‌ বৈঠকে প্রার্থী ছাড়াও বনগাঁ সভাপতি কৃষ্ণপদ চন্দ, জেলা নেতা অমিত মজুমদার, ঋজু ঘোষাল-সহ অন্য নেতা-কর্মীরা উপস্হিত ছিলেন৷‌ কৃষ্ণপদ চন্দের অভিযোগ, বৈঠক চলাকালীন সাধন দাসের উত্তেজক বক্তব্যের কিছুক্ষণ পর তার অনুগামী কংগ্রেস কর্মীরা হইচই শুরু করে দেন৷‌ প্রার্থী হিসেবে কুম্তলকে মানবে না বলে কুম্তলকে শারীরিকভাবে নিগ্রহ করা হয়৷‌ চেয়ার-টেবিল উল্টে দেওয়া হয়৷‌ পরিস্হিতি সামাল দিতে এসে জখম হন গাইঘাটা অঞ্চল সভাপতি৷‌ এরকম বিশৃঙ্খল পরিস্হিতির পর সভা মাঝপথেই বন্ধ করে দেওয়া হয়৷‌ এই ঘটনায় শুধু কংগ্রেসকর্মীরা এরপর প্রার্থীকে নিয়ে শহরে প্রচার মিছিল করেন৷‌ এদিনের ঘটনার পেছনে তৃণমূল এবং বি জে পি-র মদত রয়েছে বলে অনুমান শঙ্কর কংগ্রেস নেতৃত্বের৷‌ এই ঘটনায় ক্ষুব্ধ প্রদেশ সভাপতি অধীর চৌধুরি অভিযুক্ত কংগ্রেসকর্মীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্হা গ্রহণের আশ্বাস দিয়েছেন৷‌

এদিকে বি জে পি প্রার্থী সুব্রত ঠাকুরের বিরুদ্ধে নেমে পড়লেন দলেরই বিক্ষুব্ধ সদস্য কিশোর বিশ্বাস৷‌ এদিন বারাসতে নির্দল হিসেবে কিশোরবাবু তাঁর মনোনয়ন জমা দিয়েছেন৷‌ বর্তমানে বি জে পি-র কোনও পদে না থাকলেও এস সি মোর্চার জাতীয় স্তরের কর্মসমিতির আমন্ত্রিত সদস্য৷‌ প্রবীণ নেতার দলের বিরুদ্ধে এই বিদ্রোহ ঘোষণায় রাজনৈতিক মহলে আলোচনা শুরু হয়েছে৷‌ এ ব্যাপারে তিনি এদিন বলেন, বি জে পি বর্তমানে যেখানে নতুন সমাজ গড়ে তোলার ডাক দিয়েছে, সেখানে সি পি এম, তৃণমূল থেকে আসা কিছু উটকো লোককে ভোটে দাঁড় করিয়ে দেওয়া হচ্ছে৷‌ যারা এইভাবে বি জে পি-র মাটি নষ্ট করছে, তাদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে, দলকে বাঁচাতে দলের কাছে নিজেকে বলি দিলেন বলে মম্তব্য তাঁর৷‌ এ ব্যাপারে বি জে পি-র জেলা সভাপতি কামদেব দত্ত বলেছেন, বহু আগে দলের সঙ্গে যুক্ত থাকলেও বর্তমানে দলের কাছে কিশোর বিশ্বাসের কোনও গ্রহণযোগ্যতা নেই৷‌ এদিন তিনি তৃণমূলের লোকদের সঙ্গে নিয়ে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন বলে মম্তব্য করেছেন৷‌ অন্যদিকে বি জে পি-র ঘোষিত প্রার্থী সুব্রত ঠাকুরের মনোনয়ন খারিজের দাবি জানাল উত্তর ২৪ পরগনা জেলা তৃণমূল কংগ্রেস ও গাইঘাটা পঞ্চায়েত সমিতি৷‌ মঙ্গলবার দুপুরে বনগাঁ রিটার্নিং অফিসারের দপ্তরে জেলা যুব তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক অভিজিৎ বিশ্বাস এবং গাইঘাটা পঞ্চায়েত সমিতির সহ-সভাপতি ধ্যানেশনারারায়ণ গুহ আলাদাভাবে অভিযোগপত্র জমা দিয়ে জানান, সুব্রত ঠাকুর পঞ্চায়েত সমিতির পদ থেকে পদত্যাগ না করে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন৷‌ এটা সংবিধান-বহির্ভূত কাজ, তাই তাঁর মনোনয়ন বাতিল করা হোক৷‌ অন্য দিকে বি জে পি প্রার্থী সুব্রত ঠাকুর জানান, মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার আগেই গাইঘাটার বিডিও-র কাছে পদত্যাগপত্র ই-মেলে পাঠিয়ে দিয়েছি৷‌ সুতরাং আমার মনোনয়ন বৈধ৷‌ জেলা তৃণমূলের দাবি, এভাবে পদত্যাগপত্র পাঠানো যায় না৷‌ এটা সংবিধান-বিরোধী৷‌

রানাঘাট থেকে সুখেন্দু আচার্য জানাচ্ছেন: মঙ্গলবার কৃষ্ণগঞ্জ বিধানসভা নির্বাচনে কংগ্রেসের প্রার্থী হিসেবে নিত্যগোপাল মণ্ডল মনোনয়ন জমা দেন রানাঘাট মহকুমা শাসকের দপ্তরের ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট সুরেশচন্দ্র রানোর কাছে৷‌ মনোনয়ন জমা দিয়ে নিত্যগোপাল মণ্ডল বলেন, আমাদের লড়াই বি জে পি-র সঙ্গে৷‌ কংগ্রেস প্রার্থীর সঙ্গে ছোট মিছিল আসে৷‌ প্রার্থীর সঙ্গে আসেন নদীয়া জেলা কংগ্রেসের সভাপতি অসীম সাহা, জেলা ট্রেড ইউনিয়ন নেতা শুভেন্দু চট্টোপাধ্যায় প্রমুখ৷‌ মনোনয়ন জমা দেওয়ার সময় কর্মীদের মধ্যে বেশ উৎসাহ দেখা দেয়৷‌





kolkata || bangla || bharat || bidesh || editorial || khela || Tripura ||
Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited