Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ২০ ফাল্গুন ১৪২১ বৃহস্পতিবার ৫ মার্চ ২০১৫
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  সম্পাদকীয়  খেলা  আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
দেশ জুড়ে ৪৩ জায়গায় তল্লাশি, খোঁজ নেই গৌতমের --সোমনাথ মণ্ডল, কলকতা প্ত তাপস দেব, আগরতলা ।। কলকাতায় অরাজনৈতিক প্রার্থী দিচ্ছে না তৃণমূল--দীপঙ্কর নন্দী ।। লোক ঠকানো মুদ্রা! গ্রেপ্তার জি টি এ-র চেয়ারম্যান--অর্ঘ্য দে, শিলিগুড়ি ।। পুরভোটে আসন-সমঝোতা: এস ইউ সি-লিবারেশনের সঙ্গে কথা হবে বামফ্রন্টের ।। সি পি এমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকাম্ত?--অরুন্ধতী মুখার্জি ।। উন্নয়নের জন্য যাচ্ছি দিল্লি, রাজনীতির জন্য নয়, বললেন মমতা ।। বেঙ্কাইয়ার কাছে মুকুল ও স্বপন--রাজীব চক্রবর্তী, দিল্লি ।। রোজভ্যালিতে তল্লাশি, সি বি আইয়ের নজর পড়ল আই পি এলেও--সব্যসাচী সরকার ।। অশ্বিন শুরু করতে পারে--সুনীল গাভাসকার ।। গেইল সেঞ্চুরি পেলেও ভারত জিতবে: হোল্ডিং --দেবাশিস দত্ত ।। রাজ্যসভায় তৃণমূলের প্রার্থী দোলা ।। রেপো রেট কমল, সুদের হার কমল গৃহঋণেও
বাংলা

লোক ঠকানো মুদ্রা! গ্রেপ্তার জি টি এ-র চেয়ারম্যান

পুরভোটে আসন-সমঝোতা: এস ইউ সি-লিবারেশনের সঙ্গে কথা হবে বামফ্রন্টের

ফাগুনে শাওন মাতাল প্রকৃতি

সি পি এমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকাম্ত?

চা-শিল্প: আলোচনা করা গেল না

স্বচ্ছতা মানে শুধু ঝাড়ু দেওয়া নয়: মমতা

প্রয়াত সি পি এম নেতা বীরেশ্বর লাহিড়ী

শঙ্খ ঘোষকে ডি লিট দিল শিবপুরের আই আই ই এস টি

অতিরিক্ত ফলন: কৃষকদের জন্য আলু কিনবে রাজ্য, করা যাবে রপ্তানিও

দোলে মদ খেয়ে অসভ্যতা করলে ছাড়াতে যাব না: সৌগত

মুকুল তোলাবাজ ছিলেন! অভিযোগ তৃণমূল নেতার

তৃণমূল-বি জে পি গট আপ গেম খেলছে: বিমান

উন্নয়নের জন্য যাচ্ছি দিল্লি, রাজনীতির জন্য নয়, বললেন মমতা

দোলে সাবধান!

জ্যোতিপ্রিয়র মামলা, সমন মঞ্জুলকৃষ্ণকে

বাম, তৃণমূল আঁতাত দেখছে রাজ্য বি জে পি

লাশ পাচার মামলায় ফের তপন, সুকুররা

দোলে পর্যটকের ঢল জঙ্গলমহলে

রাজ্যসভায় তৃণমূলের প্রার্থী দোলা

লোক ঠকানো মুদ্রা! গ্রেপ্তার জি টি এ-র চেয়ারম্যান

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share

অর্ঘ্য দে, শিলিগুড়ি

৪ মার্চ– নকল মুদ্রা বিক্রির প্রতারণার ঘটনায় গ্রেপ্তার হলেন গোর্খাল্যান্ড টেরিটোরিয়াল অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের (জি টি এ) চেয়ারম্যান প্রদীপ প্রধান৷‌ মঙ্গলবার রাতে তাকে শিলিগুড়ির দার্জিলিং মোড়ের কাছে একটি হোটেল থেকে গ্রেপ্তার করা হয়৷‌ ওই হোটেল থেকে প্রদীপ প্রধান-সহ গ্রেপ্তার করা হয়েছে আরও ১০ জনকে৷‌ প্রত্যেকের বিরুদ্ধেই নকল মুদ্রা বিক্রির প্রলোভন দেখিয়ে প্রতারণার অভিযোগ করেছেন জলপাইগুড়ির বাসিন্দা রবি কিথানীয়া৷‌ জি টি এ চেয়ারম্যানের এভাবে গ্রেপ্তার হওয়ার ঘটনায় পাহাড় এবং সমতলে রীতিমতো তোলপাড় শুরু হয়ে গেছে৷‌ রাজনৈতিক মহল থেকেও ব্যাপক প্রতিক্রিয়া আসছে৷‌ মোর্চা প্রধান বিমল গুরুং এই ঘটনা প্রসঙ্গে প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে জানিয়েছেন, ‘প্রদীপ প্রধান সম্পূর্ণ নির্দোষ৷‌ এটা একটা গভীর ষড়যন্ত্র৷‌ আমরা যখনই কোনও আন্দোলনের কথা বলি, এভাবেই আমাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হয়েছে৷‌ এর পেছনে রাজনৈতিক কোনও কারণ পাওয়া গেলে আমরা সেটা রাজনৈতিকভাবেই মোকাবিলা করব৷‌’ অন্য দিকে উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী জানিয়েছেন, ‘পুলিসের কাছে নিশ্চয় কোনও তথ্য রয়েছে, তা না হলে কেন তাকে গ্রেপ্তার করা হবে৷‌ তবে এখানে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কোনও ব্যাপার নেই৷‌’ বুধবার সকালে ধৃত১১ জনকে শিলিগুড়ি আদালতে প্রিজন ভ্যান থেকে নামানোর সময়ই এই ঘটনায় প্রতিবাদ করেন প্রদীপ প্রধান৷‌ তিনি বলেছেন, ‘এটা প্রশাসনের ষড়যন্ত্র৷‌ এসবের আমি কিছুই জানি না৷‌’ পুলিস সূত্রে জানা গিয়েছে, গত মাসেই জলপাইগুড়ির বাসিন্দা রবি কিথানীয়া প্রাচীন মুদ্রা (রাইস পুলার কয়েন) কেনার জন্য শিলিগুড়ির বাঘাযতীন কলোনির বাসিন্দা সঞ্জীব মৈত্রের সঙ্গে যোগাযোগ করেন৷‌ এর পর সঞ্জীব মৈত্র তার সঙ্গী গরুবাথানের শচীন বিশ্বকর্মার সঙ্গে যোগাযোগ করিয়ে দেয়৷‌ গত ২৩ ফেব্রুয়ারি রবি কিথানীয়ার সঙ্গে ওই মুদ্রা কেনার জন্য ১৩ লক্ষ টাকার চুক্তি হয় তাদের৷‌ সেখানে আগাম ৫০ হাজার টাকাও দেন রবিবাবু৷‌ এর পর মঙ্গলবার রাতে ওই হোটেলে তারা দ্বিতীয়বারের জন্য সাক্ষাৎ করেন৷‌ সেখানে সঞ্জীব এবং শচীন তাদের আরও ৯ জন সঙ্গীর সঙ্গে রবিবাবুর পরিচয় করিয়ে দেন৷‌ ওই বাকি ৯ জনের মধ্যে ছিলেন প্রদীপ প্রধানও৷‌ ওই সময় রবিবাবু তার সঙ্গে মুদ্রা পরীক্ষা করার জন্য অভি: একজনকে নিয়ে গিয়েছিলেন৷‌ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির নাম লেখা ১৮১৮ সালের ওই মুদ্রা নাকি নীলচাষের সময়কালে ব্যবহার করা হত৷‌ কিন্তু ওই মুদ্রা পরীক্ষা করে জানা যায় যে সেটি নকল৷‌ তামা দিয়ে তৈরি৷‌ এর পরই রবিবাবু ওই রাতেই সময় নষ্ট না করে প্রধাননগর থানায় প্রতারণার অভিযোগ করেন৷‌ পুলিস একসঙ্গে ১১ জনকে গ্রেপ্তার করে ওই হোটেল থেকে৷‌ প্রদীপ প্রধান বাদে বাকি ধৃতরা হল নির্মল দাস, সুভাষ লামা, দীপেন ছেত্রি, সাধন প্রধান, দীপ থাপা, শচীন বিশ্বকর্মা, সুরজ ভক্ত এবং সঞ্জীব মৈত্র৷‌ বুধবার তাদের শিলিগুড়ি আদালতে হাজির করা হয়৷‌ সেখানে পৌঁছান জি টি এ-র সভাসদ প্রভা ছেত্রি৷‌ আদালতে ছুটে গিয়েছিলেন প্রদীপ প্রধানের ভাই সুরজ প্রধানও৷‌ প্রদীপ প্রধান আদালতেই সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ‘আমি দলের কাজে শিলিগুড়ি এসেছিলাম৷‌ ওই হোটেলে খেতে গিয়েছিলাম৷‌ ষড়যন্ত্র করে আমাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে৷‌’ এর পর তাদের ভারপ্রাপ্ত এ সি জে এম কেয়া মণ্ডলের এজলাসে তোলা হয়৷‌ সেখানে দু’পক্ষের বাদানুবাদের পর বিচারক সঞ্জীব মৈত্র এবং শচীন বিশ্বকর্মাকে ৫ দিনের পুলিস হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন৷‌ বাকিদের ৫ দিনের জেল হেফাজতে রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে৷‌ সরকারি আইনজীবী সুদীপ রায় বাসুনিয়া জানিয়েছেন, ‘এরা এই মুদ্রা কোথা থেকে পেল, কার থেকে নিয়েছে, সে-সব তদম্ত করে দেখা হবে৷‌ পাশাপাশি ওই ৫০ হাজার টাকা উদ্ধার করার জন্যও এদের জেরা করা হবে৷‌’ অভিযুক্ত পক্ষের আইনজীবী বিকাশ লোহানি জানিয়েছেন, ‘এই ঘটনায় সবাই জড়িত নয়৷‌ প্রদীপ প্রধানকে ভুল করে ধরা হয়েছে৷‌ তিনি নিজের কাজেই এখানে এসেছিলেন৷‌ আর অভিযোগ যিনি করেছেন তিনিও দোষী৷‌ কারণ, এই ধরনের প্রাচীন মুদ্রা এভাবে বিক্রি করা যায় না৷‌’ এই ঘটনা প্রসঙ্গে এদিন বিমল গুরুং জানিয়েছেন, ‘আগামী ৯ তারিখ আমাদের দিল্লিতে ধর্নার কর্মসূচি আছে৷‌ সেই জন্যই প্রদীপ প্রধান বিমানের টিকিট করতে শিলিগুড়ি গিয়েছিলেন৷‌ কিন্তু মিথ্যে অভিযোগে তাকে গ্রেপ্তার করা হল৷‌ এই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ করছি৷‌’ জি এন এল এফ নেতা এম জি সুব্বা জানিয়েছেন, ‘এই ঘটনাতেই প্রমাণ মোর্চার ইমানদারি কোথায়৷‌ ওদের সবাই এরকম৷‌ এটা হওয়ারই ছিল৷‌’ পাহাড়ে তৃণমূলের নেতা রাজেন মুখিয়া জানিয়েছেন, ‘যেমন কর্ম তেমন ফল৷‌’ গোটা পাহাড় সমতলে তীব্র প্রতিক্রিয়া এলেও মোর্চা নেতারা এই ঘটনায় স্তম্ভিত৷‌ কারণ, প্রদীপ প্রধান এই ধরনের মানুষ নন বলেই তাদের অভিমত৷‌ কিন্তু এদিকে পুলিস সূত্রেই জানা গিয়েছে, প্রদীপ প্রধানের মোবাইল থেকে এই মুদ্রা কেনাবেচা নিয়ে এস এম এস গিয়েছে শচীন বিশ্বকর্মার মোবাইলে৷‌ পুলিস আপাতত সেই মোবাইল নিজেদের হেফাজতে রেখেছে৷‌ তদম্ত চলছে৷‌





kolkata || bangla || bharat || editorial || khela || Tripura || Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited