Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ১২ কার্তিক ১৪২১ বৃহস্পতিবার ৩০ অক্টোবার ২০১৪
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  বিদেশ  সম্পাদকীয়  খেলা  আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
দলের বৃহত্তর স্বার্থে আরাবুলের বিরুদ্ধে ব্যবস্হা--দীপঙ্কর নন্দী ।। আড়ালে আরাবুল ফোনও ধরছে না--সব্যসাচী সরকার ।। পলিটব্যুরোকে নতুন করে খসড়া তৈরি করতে বলল কেন্দ্রীয় কমিটি ।। বর্ধমানে বাড়ির কাজের লোক, ভাড়াটের তথ্য নেবে প্রশাসন ।। সুইস ব্যাঙ্কে টাকা: মুখবন্ধ খামে ৬২৭ জনের তালিকা ।। দিল্লিতে সরকার: সব দলের সঙ্গে বসছেন উপ-রাজ্যপাল ।। ইংরেজবাজারে জমির দখল নিয়ে সঙঘর্ষে মৃত ৪ ।। সি বি আই চাই মাখড়ায়, হাইকোর্টে একাধিক মামলা ।। আজ মহাসপ্তমী, ষষ্ঠীতেই জনজোয়ার চন্দননগরে--নীলরতন কুণ্ডু ।। স্হায়ী পর্যটনকেন্দ্র গড়ে তোলার লক্ষ্যে শিল্পপতিদের নিয়ে সাগরে আজ মমতা ।। গুপ্তঘাতক জামাত প্রধান নিজামির ফাঁসির হুকুম ।। নির্দেশিকা নরম হল যাদবপুরে
বাংলা

মাখড়ায় পুলিসের হেনস্হা ৩ বিরোধী দলকে

আজ মহাসপ্তমী, ষষ্ঠীতেই জনজোয়ার চন্দননগরে

বর্ধমানে বাড়ির কাজের লোক, ভাড়াটের তথ্য নেবে প্রশাসন

আজ মাখড়ায় কেন্দ্রীয় নেতারা

স্হায়ী পর্যটনকেন্দ্র গড়ে তোলার লক্ষ্যে শিল্পপতিদের নিয়ে সাগরে আজ মমতা

দলের বৃহত্তর স্বার্থে আরাবুলের বিরুদ্ধে ব্যবস্হা

মাখড়া নিয়ে সিউড়িতে হল কলরব

সরকারি কর্মীদের বাড়ল ছুটি দু’দিন

চন্দননগরে সাড়ে তিন কিলো ‘সেনকো’র সোনার অলঙ্কারে জগদ্ধাত্রী প্রতিমা

সুদীপ্ত, দেবযানী-সহ সারদার আরও ১০০ কোটি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্তের প্রক্রিয়া শুরু

চিকিৎসার জন্য দিল্লি নিয়ে যাওয়া হল ঘিসিংকে

অনুমতি ছাড়া বেসু-তে ক্লাস অভিজিতের!

মুখ্যমন্ত্রী-শাহরুখ বৈঠক

ইংরেজবাজারে জমির দখল নিয়ে সঙঘর্ষে মৃত ৪

সি বি আই চাই মাখড়ায়

ঘূর্ণাবর্ত সরে গেল

রাজ্যে দু’দিন ব্যাঙ্ক ধর্মঘট

বালিতে গঙ্গার ঘাট উদ্বোধন

মুখমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দান

আড়ালে আরাবুল ফোনও ধরছে না

মাখড়ায় পুলিসের হেনস্হা ৩ বিরোধী দলকে

পা নাচাতে নাচাতে সাংসদ, বিধায়কদের পুলিস সুপারের হুমকি, ‘লকআপে ভরে দেব’

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share



চন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়: পাড়ুই, ২৯ অক্টোবর– পাড়ুইয়ের মাখড়া গ্রামে নিহতদের পরিবারের পাশে দাঁড়াতে গিয়ে কার্যত পুলিসের কাছে নাস্তানাবুদ হল রাজ্যের প্রধান তিন বিরোধী দল৷‌ বিশেষ করে বামফ্রন্টের সাংসদ, বিধায়করা৷‌ তাঁদের থানায় নিয়ে গিয়ে পায়ের ওপর পা তুলে নাচাতে থাকলেন পুলিস সুপার অলোক রাজোরিয়া৷‌ প্রায় আড়াই ঘণ্টা বসিয়ে রেখে সুপারের সুপারডুপার হুমকি, বন্ড সই করুন৷‌ না হলে সারা রাত লকআপে পুরে রাখব৷‌ কাল আদালতে পাঠাব৷‌ সি পি এম সাংসদ ঋতব্রত ব্যানার্জি, বিধায়ক আনিসুর রহমান, বিশ্বনাথ কারকরা সাফ জানিয়ে দেন, ‘আমরা কোনও অন্যায় করিনি৷‌ বন্ড সই করার প্রশ্নই ওঠে না৷‌ লকআপে রাখতে চাইলে রাখুন৷‌ কার্যত বেকায়দায় পড়ে শেষে নিঃশর্ত মুক্তি দেওয়া হয় তাঁদের৷‌ কিন্তু এর মধ্যে পুলিসের উদ্দেশ্য সফল৷‌ বামফ্রন্টের প্রাক্তন মন্ত্রী ও বিধায়কদের দেখে চকমণ্ডল মোড়ে প্রায় হাজারখানেক মহিলা-পুরুষ চলে এসেছিলেন৷‌ বাম প্রতিনিধিদলের সঙ্গে তাঁরা মাখড়া গ্রামে যেতে চাইছিলেন৷‌ গ্রেপ্তারের নামে বাম প্রতিনিধিদলকে সেখান থেকে সরিয়ে দেয় পুলিস৷‌ এদিন বামফ্রন্ট-কংগ্রেস-বি জে পি তিন দলে পৃথক পৃথকভাবে গ্রামে গেলেও তিন দলেরই অভিযোগের সুর একই, পুলিসি নিষ্ক্রিয়তা ও তৃণমূলি সন্ত্রাস৷‌ তবে প্রথম থেকে গ্রামবাসী-সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল যে দাবি করে আসছে, তা এদিন পূরণ হয়৷‌ এদিনই মাখড়া গ্রামে পুলিস পিকেট বসেছে৷‌ গ্রামের স্কুলঘরে বসেছে পুলিস ক্যাম্প৷‌ মাঝে মাঝেই গ্রামের রাস্তায় টহল দিচ্ছে পুলিস৷‌ তবুও গ্রামের মানুষ যেন ভরসা পাচ্ছেন না৷‌ সর্বত্র চাপা আতঙ্ক৷‌ এদিন প্রথমে গ্রামে ঢুকতে বাধা পেলেও কংগ্রেস সাংসদ অভিজিৎ মুখার্জি, জেলা কংগ্রেসের সভাপতি সৈয়দ জিম্মি-সহ জেলা কংগ্রেসের প্রতিনিধিদল নিয়ে রাস্তায় বসে বিক্ষোভ দেখান৷‌ তারপর গ্রামে ঢুকতে দেয় পুলিস৷‌ অভিজিৎবাবুর বক্তব্য, ১৪৪ ধারা দেখিয়ে পুলিস আমাদের আটকাচ্ছে৷‌ কিন্তু পুলিসেরও মনে রাখা দরকার, ওরা গভর্নমেন্ট সার্ভেন্ট৷‌ কর্তব্যে গাফিলতি করলে তার বিরুদ্ধেও আইনি ধারা আছে৷‌’ বি জে পি-র রাজ্য প্রতিনিধিদল গ্রামে ঢুকতে না পেরে স্হানীয় কর্মী-সমর্থকদের শাম্ত করতে পুলিস ও তৃণমূলের বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে দিতে মিছিল করে ফিরে গেলেন৷‌ বি জে পি-র রাজ্য সহ-সভাপতি প্রভাকর তিওয়ারি, রাজ্যের প্রাক্তন আই জি শঙ্কর মুখোপাধ্যায়, শিশির বাজোরিয়ারা ফিরে যাওয়ার কিছু পরেই ঋতব্রত, আনিসুর, ইদ মহম্মদ, রামচন্দ্র ডোম-সহ বামপম্হী সাংসদ, বিধায়কদের দল৷‌ পুলিস বলে ১৪৪ চলছে ঢুকতে দেওয়া যাবে না৷‌ ঋতব্রতরা বলেন, আমরা নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি৷‌ আইন ভাঙব না৷‌ আমরা তো বোমা নিয়ে স্বাস্হ্যকেন্দ্রে রাখতে যাচ্ছি না৷‌ আমাদের এক এক করে যেতে দিন৷‌ আমরা অসহায় মানুষের সঙ্গে কথা বলে চলে যাব৷‌ পুলিস বলে না, যেতে দেওয়া যাবে না৷‌ সামনে ব্যারিকেড করে রাখে পুলিস৷‌ এই সময় আশপাশের গ্রাম থেকে প্রায় হাজারখানেক মহিলা, পুরুষ চলে আসেন৷‌ বাম প্রতিনিধিদের পাশে দাঁড়িয়ে তাঁরা গ্রামে ঢুকতে চান৷‌ বলেন, গ্রামে ফিরে তাঁদের পরিজনদের পাশে দাঁড়াতে চান৷‌ পুলিস এবার ওঁদেরও গ্রামে ঢুকতে বাধা দেয়৷‌ শুরু হয়ে যায় পুলিসের সঙ্গে বচসা-ঠেলাঠেলি৷‌ রাস্তার মধ্যেই বসে পড়ে প্রতিবাদ জানাতে শুরু করেন আনিসুর রহমানরা৷‌ বোলপুরের এস ডি পি ও সূর্যপ্রসাদ যাদব উত্তেজিত গ্রামবাসীর সামনে বলেন, মাখড়া গ্রামে পুলিস পিকেট বসানো হবে আজই৷‌ পরিস্হিতি শাম্ত হয়৷‌ কিন্তু পুলিস অনড়৷‌ বাম প্রতিনিধিদের কিছুতেই ঢুকতে দেবে না৷‌ বাম সাংসদ ঋতব্রত ব্যানার্জি, বিধায়ক আনিসুর রহমান, প্রাক্তন সাংসদ ডাঃ রামচন্দ্র ডোম, বিশ্বনাথ কারক, সুভাষ নস্কর, আনন্দ বিশ্বাস-সহ গোটা প্রতিনিধিদলকে গ্রেপ্তার করা হল বলে ঘোষণা করে৷‌ তাঁদের নিয়ে যাওয়া হয় পাড়ুই থানায়৷‌ সেখানে আড়াই ঘণ্টার হেনস্হা শেষে তাঁদের নিঃশর্তে ছেড়ে দিতে বাধ্য হয় পুলিস৷‌ ঋতব্রত জানান, সাড়া দেশের মধ্যে একমাত্র এই রাজ্যেই ১৪৪ ধারার দোহাই দিয়ে একজন সাংসদকে গ্রামে মানুষের পাশে দাঁড়াতে দেয় না পুলিস৷‌ এই অত্যাচার আসলে ভাগবাঁটোয়ারা নিয়ে দুটি রাজনৈতিক দলের সমাজবিরোধীর সঙঘর্ষ৷‌ এর বিরুদ্ধে সকলকে সরব হওয়ার আবেদন জানান৷‌ তিনি বলেন, বিধানসভায় ও সংসদে এ নিয়ে বাম প্রতিনিধিরা সরব হবেন৷‌ বি জে পি নেতা প্রভাকর তিওয়ারি বলেন, বি জে পি-র উত্থানে ভয় পেয়ে তৃণমূল কংগ্রেস গ্রামে গ্রামে হামলা করার ছক কষছে৷‌ মানুষ আতঙ্কিত৷‌ তাঁদের পাশে দাঁড়াতেই আমরা এসেছিলাম, কিন্তু পুলিস দাঁড়িয়ে থেকে যাদের অপর অত্যাচার করার ছাড়পত্র দিয়েছিল এখন সেই পুলিসই আমাদের আটকে আবার অন্যায় করছে৷‌ অথচ ১৪৪ ধারা থাকা সত্ত্বেও গত সোমবার তৃণমূলের মাস্কেট বাহিনীর ঢুকতে বাঁধা ছিল না৷‌ গ্রামের ভেতরে ঢুকতে অবশ্য বাঁধা ছিল না সংবাদমাধ্যমের৷‌ সন্ধে পর্যম্ত গোটা গ্রামের মানুষ গ্রামের তৌসিফ আর মোজাম্মেলের মরদেহ কখন আসবে, সে-অপেক্ষায় বসে আছেন৷‌ যে মোজ্জাম্মেলের মেয়ে সাকিনা বেগম গতকাল বাবাকে তৃণমূলের কর্মী বলে দাবি করে জানিয়েছিলেন, বাবাকে খুন করেছে সদাই শেখ৷‌ সেই সাকিনা আজ একেবারে চুপ৷‌ কেন? নাম প্রকাশ হবে না কথা দেওয়ার পর মুখ খুললেন গ্রামেরই একজন৷‌ জানালেন, মোজাম্মেল বি জে পি-তে যোগ দেওয়ার জন্য ২০-২২ দিন গ্রামছাড়া ছিল৷‌ কিন্তু সোমবারের ঘটনার পর আবার তৃণমূলের সকলে গ্রামছাড়া৷‌ বি জে পি-র লোকজন ফতোয়া দেয়, মোজাম্মেলকে তৃণমূলকর্মী বলে পরিচয় দিলে গ্রামের কেউ মাটি দেবে না কবরে৷‌ মৃতদেহ সৎকারের ব্যবস্হাও করা যাবে না৷‌ এর পরেই মোজাম্মেলের স্ত্রী-মেয়ে মুখে কুলুপ আঁটেন৷‌ স্বামীর সৎকারটা ঠিকঠাক করতেই হয়ত স্ত্রী নজেলা বিবি আজ পাড়ুই থানায় গিয়ে বি জে পি-র বিরুদ্ধে করা অভিযোগ তোলার কথা জানিয়ে এলেন৷‌ গতকাল বিকেলে এই নজেলা বিবিই বি জে পি নেতা সদাই শেখ-সহ ২২ জনের বিরুদ্ধে স্বামীকে গুলি করে হত্যা করার অভিযোগ দায়ের করেছিলেন৷‌ তিনি যখন পাড়ুই থানায় তৃণমূল নেতাদের সঙ্গে বসে অভিযোগ করছেন, তখন বি জে পি জেলা সভাপতি দুধকুমার মণ্ডলের পাশে বসে মোজ্জামেলের ভাইপো কাকাকে বি জে পি কর্মী বলে দাবি করছেন৷‌ ২৪ ঘণ্টার মধ্যে নজেলা বিবি আজ সকালেই থানায় ছুটেছিলেন অভিযোগ প্রত্যাহার করতে৷‌ পাড়ুই থানার দায়িত্বপ্রাপ্ত ওসি কার্তিক ঘোষ অবশ্য জানিয়ে দেন, থানায় এসে লাভ নেই, কোর্টে যান৷‌ যা করার আদালত থেকেই করতে হবে৷‌ মাখড়া গ্রামে মৃত তিনজনের মধ্যে তৃণমূলের সুলেমান শেখ অন্য গ্রামের লোক৷‌ একমাত্র গ্রামের লোক মোজাম্মেল খুনেই প্রমাণ হচ্ছিল বি জে পি তাণ্ডব চালিয়েছে৷‌ মোজাম্মেলের মরদেহ এইভাবে বি জে পি রাতারাতি হাইজ্যাক করে নেওয়ায় তৃণমূল অনেকটাই ব্যাকফুটে চলে গেল৷‌ চৌমণ্ডলপুর গ্রামে পুলিসের গাড়িতে বোমা মেরে ব্যাকফুটে চলে যাওয়া বি জে পি-কে আবার অক্সিজেন জোগাল মাখড়া গ্রামে তৃণমূলের ভুল পদক্ষেপ৷‌ তার ওপর পুলিস বিরোধীদের চাপ সামাল দিতে গতকাল যে ১০ জনকে মাখড়ার ঘটনায় গ্রেপ্তার করেছে তারা সকলেই তৃণমূলের৷‌ দলের জেলা সহ-সভাপতি মলয় মুখোপাধ্যায়ের অভিযোগ, তৃণমূলশূন্য মাখড়া গ্রামে ভয় দেখিয়ে জোরÿ করে মোজাম্মেলের স্ত্রীকে দিয়ে অভিযোগ তুলিয়ে মোজাম্মেলকে বি জে পি বানানোর চেষ্টা করছে বি জে পি৷‌ শুধু তাই নয়, পুলিস বেছে বেছে নিরীহ কোনও কেসের সঙ্গে যুক্ত নয় এমন ১০ জনকে খণ্ডগ্রাম ও সালুঙ্গি থেকে অন্যায়ভাবে গ্রেপ্তার করেছে৷‌ পুলিস অবশ্য অভিযোগ অস্বীকার করেছে৷‌ বি জে পি-র সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানিয়েছেন, বি জে পি নোংরা রাজনীতি করে না৷‌ ‘মৃতদেহ নিয়ে রাজনীতি’ তৃণমূলই করে৷‌ তাঁর অভিযোগ, পুলিস আসল অপরাধীদের ধরছে না৷‌





kolkata || bangla || bharat || bidesh || editorial || khela || Tripura ||
Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited