Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ৩ পৌষ ১৪২১ শুক্রবার ১৯ ডিসেম্বর ২০১৪
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  বিদেশ  সম্পাদকীয়  খেলা  আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
জোর করে পণ্য পরিষেবা কর চাপাচ্ছে কেন্দ্র, ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী ।। অপারেশন সফল, তাঁর খবর মিলে যাচ্ছে--অরুন্ধতী মুখার্জি ।। শরিফের শপথই সার, মুক্ত মুম্বই হামলার চক্রী লকভি ।। সুদীপ্তর ‘ফেরারি’ ভারতে এসেও কীভাবে উধাও! জাল গোটাচ্ছে ই ডি ।। ৩ দিনে ৩ সংগঠনকে ৩ জায়গায় সভার অনুমোদন দেবে পুরসভা ।। ঘুরে দাঁড়াতে উত্তর ২৪ পরগনাকে মডেল করতে চায় সি পি এম ।। লগ্নি করলে আম্তরিক সাহায্য ত্রিপুরায়: জিতেন্দ্র ।। ধর্মাম্তর: রাজ্যসভা অচল চতুর্থ দিনেও ।। ভারতকে এগিয়ে রাখলেন অশ্বিন ।। কাল ফাইনালে কিন্তু সমানে সমানে লড়াই ।। আচার্যের হুঁশিয়ারি! ।। ইরাকে ১৫০ বন্দী মহিলার শিরশ্ছেদ!
বাংলা

অপারেশন সফল, তাঁর খবর মিলে যাচ্ছে

ঘুরে দাঁড়াতে উত্তর ২৪ পরগনাকে মডেল করতে চায় সি পি এম

প্রতারকদের পক্ষ নিচ্ছে সরকার

জন্মদিন পালন আর হল না ৬ বছরের ঈশিতার

সর্বত্রই কমতে শুরু করেছে তাপমাত্রা

রাহুল-বাবুলের প্রচার ঝাড়খণ্ডের বাঙালি গড়ে

সুদীপ্তর ‘ফেরারি’ ভারতে এসেও কীভাবে উধাও! জাল গোটাচ্ছে ই ডি

সি বি আইয়ের বিরুদ্ধে রাজ্যপালের কাছে নালিশ জানাতে আজ ৫ মন্ত্রী

বিশ্বভারতী: অধ্যাপক-নেতাদের বাড়িতে হামলা আন্দোলনকারীদের, পড়াশোনা শিকেয়!

পার্শ্বশিক্ষকরা ই পি এফের আওতায় বেতন বৃদ্ধি নিয়ে বিজ্ঞপ্তি শিগগিরই

টাটাদের ব্যবসায় খুশি, সিঙ্গুরের জমি ফেরত দিলে আরও খুশি হতাম: পার্থ

সি পি এমের নদীয়া জেলা সম্মেলন শুরু

চিকিৎসক বাবার বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ ডাক্তারি পড়ুয়া মেয়ের!

আজ ‌ট্যাক্সি ধর্মঘট, নবান্ন অভিযান

গণমঞ্চের পাল্টা স্লোগান ‘আমরা সবাই ভারতবাসী’

ছিটমহলের বাসিন্দাদের জন্য পুর্নবাসন প্যাকেজ চাইল রাজ্য

খাগড়াগড়-কাণ্ডে ধৃত সাজিদ জেল হাজতে

বিমান বললেন ...

আজ আলিপুর আদালতে মদন

ডায়মন্ড হারবার রোডে কোনও চিটফান্ডকে লাইসেন্স দেয়নি পুরসভা

মানসিক ভারসাম্যহীন যুবককে ২৫ বছর পায়ে শিকল!

নাট্যজগতে দমবন্ধ অবস্হা: তরুণ মজুমদার

চতুর্থ শ্রেণীর বৃত্তি পরীক্ষায় পাসের হার বাড়ল

ভূমিকম্প শিলিগুড়ি, দার্জিলিঙে

অপারেশন সফল, তাঁর খবর মিলে যাচ্ছে

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share

অরুন্ধতী মুখার্জি




এই মুহূর্তে কলকাতায় এমন একজন কিছু খবর মিলিয়ে দিয়েছেন যাঁকে সব সাংবাদিকই ঈর্ষা করছেন৷‌ সাংবাদিক নন, তিনি রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী গৌতম দেব৷‌ সারদা-কাণ্ডে এখন যা যা ঘটছে তার অনেক কিছুই আগাম বলে দিয়েছিলেন গৌতম দেব৷‌ তাই তিনি বুধবার বললেন, দেখলেন কেমন মিলিয়ে দিচ্ছি? তাই বেশ ভাল লাগছে৷‌ যেমন, বলেছিলাম মধ্যরাতে ডেলো বাংলোয় মমতা ব্যানার্জির সঙ্গে সুদীপ্ত সেনের বৈঠকের কথা৷‌ কিংবা ধরুন, মমতা ব্যানার্জির আঁকা ছবি নিয়ে তিনি প্রশ্ন তুলেছিলাম৷‌ আমার প্রশ্ন ছিল, মমতা ব্যানার্জি কি পিকাসো, না লিওনার্দো দ্য ভিঞ্চি যে তাঁর ছবি কোটি টাকায় বিকোবে? এ সব প্রশ্নই আমি তুলেছিলাম৷‌ ২০১১-য় রাজ্যে নির্বাচনের আগে৷‌

সারদার সি বি আই তদম্ত শুরু হয়েছে ২০১৪-র জুন মাসে৷‌ সি বি আই তদম্তে হাত দেওয়ার পর এই ক’দিনেই দেখা গেল, গৌতম দেবের দেওয়া তথ্য মিলে যাচ্ছে৷‌ এরপর আরও কি মিলবে? সে প্রশ্ন এখন গৌতম দেবের মনে৷‌

গৌতম দেব কুপন বিলি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন৷‌ বুধবার তিনি বলেন, রাজ্য বিধানসভা নির্বাচনের আগে তৃণমূল ভবনের তিনতলা থেকে একজন বিশ্বস্ত কর্মী প্রার্থীদের টাকা বিলোন৷‌ মোটামুটি টাকার অঙ্কটা ছিল ২০ লক্ষ৷‌ সেই ২০ লক্ষ টাকার বিনিময়ে দোতলা থেকে কুপন দেওয়া হয়েছিল৷‌ আর তৃণমূলের একজন অত্যম্ত প্রভাবশালী নেতা প্রার্থীদের টাকা পাইয়ে দিয়ে বলেছিলেন, যদি এ নিয়ে প্রশ্ন ওঠে তবে তাঁরা যেন বলেন যে, কুপন বিলি করে টাকা তোলা হয়েছে৷‌ কিন্তু কুপনের ডানদিকের অংশটি ছিঁড়ে প্রার্থীদের দেওয়া হয়, বাঁদিকের অংশটির কোনও চিহ্ন ছিল না৷‌ গৌতম দেবের কথায়, এ বার সি বি আই কুপন-কাণ্ডের কথা নিয়ে প্রশ্ন করবে এবং তদম্তের জাল সে দিকে বিছোবে৷‌ নিজের কথা অনেকটাই মিলে যাওয়ায় গৌতম দেবের বক্তব্য, কুপন-কাণ্ডের জাল বিছোলে সি বি আই মুকুল রায়কে জিজ্ঞাসাবাদ করবে৷‌

এখন গৌতম দেব ধীরে ধীরে সুস্হ হয়ে উঠছেন৷‌ গত ৭ নভেম্বর কেরলের তিরুবনম্তপুরমের শ্রীচিত্রা থিরুনাল ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি হাসপাতালে তাঁর অপারেশন হয়৷‌ স্নায়ুর অসুখে তিনি ভুগছিলেন৷‌ এই হাসপাতালটি খুবই নামী এবং কেন্দ্রীয় সরকারের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি দপ্তরের আওতাধীন৷‌ স্নায়ু-সংক্রাম্ত চিকিৎসা ও গবেষণার জন্য এই হাসপাতাল বিখ্যাত৷‌ এই অসুখের জন্য গৌতম দেবের স্নায়ুর ওপর নিয়ন্ত্রণ বেশ খানিকটা শিথিল হয়ে গিয়েছিল৷‌ ওই হাসপাতালের চিকিৎসায় তিনি এখন ভাল মতো সুস্হ হয়ে উঠেছেন এবং স্নায়ুর ওপর নিয়ন্ত্রণ প্রায় সবটাই ফিরে পেয়েছেন৷‌ অস্ত্রোপচারের সময় তাঁর মাথায় তিনটি ফুটো করা হয়৷‌ সেই ফুটো দিয়ে বিশেষ ধরনের তার ঢোকানো হয়৷‌ এই কাজটি করার সময় ডাক্তাররা তাঁকে অজ্ঞান করেননি, কারণ তাঁরা দেখতে চাইছিলেন, তারগুলি মস্তিষ্কে ঢোকালে গৌতম দেব কীভাবে প্রতিক্রিয়া দেখান৷‌ গৌতম দেবের প্রতিক্রিয়া দেখে চিকিৎসকরা খুশি হন৷‌ তখন অজ্ঞান করে তারের গুচ্ছ বেঁধে তাঁর বাঁদিকের বুকে একটি ব্যাটারির সঙ্গে জুড়ে দেওয়া হয়৷‌ এই ব্যাটারিটি সর্বোচ্চ ১০ বছর এবং মোটামুটিভাবে ৯ বছর কাজ করবে৷‌ তারপর ব্যাটারিটি পাল্টাতে হবে৷‌ সেদিন এই অপারেশনটি প্রায় ৮ ঘণ্টা ধরে চলে৷‌ তারপর কিছুদিন হাসপাতালে তাঁকে থাকতে হয়৷‌ সে সময় তাঁর স্ত্রী দেবযানী ও ছেলে সপ্তর্ষিকে চিকিৎসকরা একটি বিষয়ে বিশেষ নজর দিতে বলেন৷‌ তিনি যেন মস্তিষ্কের যে তিনটি জায়গায় ফুটো করা হয়েছে, সেই জায়গাগুলি কিছুতেই না চুলকে ফেলেন৷‌ এ জন্য দেবযানী ও সপ্তর্ষিকে পালা করে দীর্ঘদিন হাসপাতালে তাঁর সামনে বসে থাকতে হয়েছিল৷‌ এখন তাঁর মস্তিষ্কের ক্ষতস্হান অনেকটা শুকিয়ে এসেছে৷‌ কিন্তু সংক্রমণের ভয় যায়নি৷‌ সে জন্য সল্টলেকে তিনি যেখানে থাকতেন, সেখানে থাকছেন না৷‌ কারণ, সেখানে আছে তাঁদের একটি পোষা কুকুর৷‌ এই সল্টলেকের বাড়িটি আসলে সি পি এমের কমিউন৷‌ সংক্রমণ যাতে না হয়, সেজন্য তিনি মানিকতলার একটি সরকারি আবাসনে তিনি এখন থাকছেন৷‌ শহিদ মিনারে উত্তর ২৪ পরগনা জেলা সি পি এম যে সমাবেশ ডাকে সেই সমাবেশে গৌতম দেব হাজির হতে পারেননি৷‌ সংক্রমণের ভয়ে তিনি সেখানে যাননি৷‌ তাঁর রেকর্ডেড বক্তৃতা বাজানো হয়৷‌ তার ব্যবস্হা করেন জেলা নেতা নেপালদেব ভট্টাচার্য৷‌ তবে বুধবার তিনি সকাল সাড়ে ৮টায় দলের রাজ্য দপ্তরে যান, ফেরেন বেলা দেড়টা নাগাদ৷‌ অপারেশনের পর এত দীর্ঘক্ষণ তিনি এর আগে কখনও বাইরে থাকেননি৷‌ আজ শুক্রবার উত্তর ২৪ পরগনা জেলা সি পি এমের সম্পাদকমণ্ডলীর বৈঠক হবে৷‌ সেই বৈঠকে গৌতম দেব হাজির থাকবেন৷‌ ধীরে ধীরে তিনি কাজের পরিধি বাড়াচ্ছেন৷‌ এখন দল কীভাবে গা-ঝাড়া দিয়ে উঠবে, তার নকশা নিয়ে যেমন অন্য নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করছেন, তেমনই তাকিয়ে আছেন সারদা-তদম্তের দিকে৷‌

তাঁকে যদি জিজ্ঞেস করা যায়, তিনি কী করে এমন সব তথ্য পেলেন, যেগুলো পেলে অনেক সাংবাদিকই বর্তে যেতেন৷‌ এর উত্তরে তিনি বলেন, আমি যা যা বলেছি সব কাগজপত্রের প্রমাণ দিয়ে বলেছি৷‌ আমি যখন খবর দিই, ঠিক খবর দিই৷‌ আপনারা যেমন আপনাদের সোর্স বলেন না, আমিই বা বলি কী করে? এরপর তিনি দেন একটি মুচকি হাসি, যে হাসি বেশ অর্থবহ৷‌





kolkata || bangla || bharat || bidesh || editorial || khela || Tripura ||
Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited