Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২১ মঙ্গলবার ২৯ নভেম্বর ২০১৪
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  বিদেশ  সম্পাদকীয়  উত্তর সম্পাদকীয়  খেলা  আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
আগামী বিধানসভায় বি জে পি একটি আসনও পাবে না: মমতা ।। কালো টাকা, বিমা বিরোধী জোটে আজ তৃণমূলও--রাজীব চক্রবর্তী ।। কং-তৃণমূল ছাত্র-সঙঘর্ষে উত্তাল বহরমপুরের কলেজ, জখম ৮ ।। ‘অশনি সংকেত’ দেখে মিথ্যাচার আরও বেড়ে গেছে: বিমান বসু ।। হারানো ৮,০০০ গ্রাম-ঘাঁটিতে আবার ঢুকে পড়ছে সি পি এম ।। কাজ করতে না দেওয়ার চক্রাম্ত চলছে: মুখ্যমন্ত্রী ।। জম্মু-কাশ্মীর ও ঝাড়খণ্ডে আজ প্রথম দফার ভোট ।। গোর্খাল্যান্ড? কমিটি গড়ে দিলেন রাজনাথ ।। যুদ্ধাপরাধী প্রাক্তন আওয়ামি নেতার ফাঁসির হুকুম বাংলাদেশে ।। যাদবপুরে শিক্ষক নিয়োগে বেনিয়ম: স্মারকলিপি জুটার ।। অনশন উঠল প্রেসিডেন্সির ।। তিন-চার দিনেই কলকাতায় শীত আসছে
বাংলা

আগামী বিধানসভায় বি জে পি একটি আসনও পাবে না: মমতা

‘অশনি সংকেত’ দেখে মিথ্যাচার আরও বেড়ে গেছে: বিমান বসু

হারানো ৮,০০০ গ্রাম-ঘাঁটিতে আবার ঢুকে পড়ছে সি পি এম

কং-তৃণমূল ছাত্র-সঙঘর্ষে উত্তাল বহরমপুরের কলেজ, জখম ৮

কাজ করতে না দেওয়ার চক্রাম্ত চলছে: মুখ্যমন্ত্রী

বিধাননগরে ওয়ার্ড পুনর্বিন্যাস নিয়ে পুরসভার কাঠামোয় আপত্তি খোদ উপপুরপ্রধানের

কানু সান্যালের বাড়িতে স্মৃতিভবন

লরির ধাক্কায় ছাত্রের মৃত্যু, অবরোধ তুলতে গিয়ে আক্রাম্ত পুলিস দেগঙ্গায়

অসুস্হ, নির্দোষ মহিলারা ধৃত সোনালি চা-বাগানে?

গোর্খাল্যান্ড? কমিটি গড়ে দিলেন রাজনাথ

জোট নয়, বলে গেলেন শাকিল, সি পি যোশি

সাট্টা, জুয়ার প্রতিবাদ: তৃণমূল নেতার বাড়িতে বোমা

কোটা তুলে দেওয়ায় বিশ্বভারতীর উপাচার্যকে কার্যত ঘেরাও, সাসপেন্ড ৭

ক্যানিং হয়ে সুন্দরবনে যেতে ভয় পর্যটকদের

আসামের প্রাক্তন মন্ত্রী অঞ্জন এলেন ই ডি দপ্তরে

তিন বছরে জরিমানা বাবদ ১৬ কোটি রাজস্ব আদায় ক্রেতা সুরক্ষা দপ্তরের

এন আর এস: ও সি, অধ্যক্ষর অপসারণের দাবিতে থানা ঘেরাও

১৫০ কোটিতে ওয়েস্টব্যাঙ্ক নিল নারায়ণ

৬ ডিসেম্বর মহামিছিল, প্রচার জেলায় জেলায়

আগামী বিধানসভায় বি জে পি একটি আসনও পাবে না: মমতা

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share

দীপঙ্কর নন্দী




মাত্র দু’দিনের নোটিসে মিছিলে এত লোক আসবেন, তা তৃণমূলের নেতারা কল্পনা করতে পারেননি৷‌ মিছিলে লোকসমাগম দেখে মমতা নিজেও খুশি৷‌ সোমবার বনগাঁ থেকে ফিরে এসে মমতা মিছিলে যোগ দেন৷‌ চিত্তরঞ্জন অ্যাভিনিউয়ে মেডিক্যাল কলেজের গেটের সামনে থেকে মমতা মিছিলে হাঁটা শুরু করেন৷‌ ঠিক বিকেল ৩টে নাগাদ মিছিল শুরু হয়৷‌ মমতার আগে ও পেছনে অসংখ্য মানুষ৷‌ প্রত্যেকের হাতে প্ল্যাকার্ড, কেউ নিয়ে এসেছেন ব্যানার, কারও হাতে দলের পতাকা৷‌ প্রথমে ঠিক ছিল কলেজ স্কোয়্যার থেকে মিছিল এস এন ব্যানার্জি রোড হয়ে যাবে ধর্মতলার ডোরিনা ক্রসিং পর্যম্ত৷‌ এদিনই হকার সংগ্রাম কমিটির মিছিল থাকায় তৃণমূলের মিছিলের রুট ঘুরিয়ে দেওয়া হয়৷‌ কলেজ স্কোয়্যার থেকে চিত্তরঞ্জন অ্যাভিনিউ হয়ে মিছিল যায় ডোরিনা ক্রসিং পর্যম্ত৷‌ এখানে মঞ্চ বাঁধা হয়েছিল৷‌ মমতা প্রায় আধঘণ্টা বক্তব্য পেশ করেন৷‌ কেন্দ্রের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে এই মিছিলের ডাক দিয়েছিলেন মমতা নিজে৷‌ বলেছিলেন কেন্দ্রের বিরুদ্ধে প্ল্যাকার্ডে স্লোগান লিখে আনতে৷‌ প্ল্যাকার্ডে লেখা ছিল: ‘আমরা সবাই চোর, আমাদের গ্রেপ্তার করো’ ইত্যাদি৷‌ মমতার সঙ্গে মিছিলে হাঁটেন অভিনেতা-সাংসদ দেব৷‌ এ ছাড়া রাজ্যের নেতা-কর্মীরা মিছিল থেকে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে স্লোগান তোলেন৷‌ বক্তব্য পেশ করতে গিয়ে মমতা নরেন্দ্র মোদি ও তাঁর দল বি জে পি-কে ব্যাপক আক্রমণ করেন৷‌ তিনি জানিয়ে দেন, একটি বিধানসভায় বি জে পি জিতে ‘চুঁইচুঁই’ করছে৷‌ আগামী বিধানসভা নির্বাচনে ২৯৪ আসনের মধ্যে শূন্য পাবে বি জে পি৷‌ মোদিকে আক্রমণ করে মমতা বলেন, কত বড় সাহস, আমাদের উগ্রপম্হী বলা হচ্ছে৷‌ পাপিষ্ঠ, উচ্ছিষ্ঠ এই বি জে পি কোনও সৌজন্য জানে না৷‌ আমি কারও কাছে রাজনীতি শিখব না৷‌ আমার সৌজন্যবোধটুকু আছে বলেই বাজপেয়ীজি ও জ্যোতিবাবুর কাছে গিয়েছিলাম৷‌ মোদিকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে সেলফি করছেন৷‌ আমাদের সেলফি করার দরকার নেই৷‌ আমরা কাউকে পরোয়া করি না৷‌ আমরা রাস্তায় থাকি৷‌ আজ রাস্তায় রয়েছি৷‌ আসুন, আমাদের গ্রেপ্তার করুন৷‌ কত বড় জেল আছে, একবার দেখতে চাই৷‌ মমতা এদিন পরিষ্কার জানিয়ে দেন, কংগ্রেস, সি পি এম, বি জে পি একসঙ্গে কাজ করছে, ষড়যন্ত্র করছে, অপপ্রচার করছে৷‌ তাই আগামী নির্বাচনে কোনও জোট হবে না৷‌ তৃণমূল কংগ্রেস মানুষকে সঙ্গে নিয়ে একাই লড়বে বলে মমতা জানিয়ে দেন৷‌ কালো টাকা ফেরত না আনা হলে মমতা দিল্লিতে গিয়েও মিছিল করতে পারেন বলে হুমকি দেন৷‌ তিনি বলেন, বি জে পি কি দেখতে চায়, দিল্লিতে আমি কত লোক নিয়ে যেতে পারি? দাঙ্গাবাজ বলে বি জে পি-কে আক্রমণ করে মমতা বলেন, হিন্দুরা দাঙ্গা করে না৷‌ তারা যায় রামকৃষ্ণ সেবাশ্রম, দ্বারকা, পুরী, ভারত সেবাশ্রমে৷‌ আমি এদের মানি৷‌ বি জে পি-কে ক্রীতদাস বলে মম্তব্য করেন৷‌ তাঁর অভিযোগ, বাংলায় অস্ত্র প্রশিক্ষণ দিচ্ছে বি জে পি৷‌ এন জি ও-গুলি থেকে টাকা নিচ্ছে৷‌ লোকসভা নির্বাচন প্রসঙ্গ এনে মমতা বলেন, বিকল্প ছিল না তাই ওরা ক্ষমতায় এসেছে৷‌ আমি বাংলায় থাকব, দিল্লিতেও যাব৷‌ মমতার মিছিলে এদিন হাঁটেন যোগেন চৌধুরি, ইন্দ্রনীল সেন, অরিন্দম শীল, ব্রাত্য বসুরা৷‌ মঞ্চ থেকে মমতা শিল্পীদের উদ্দেশে বলেন, কেন্দ্রের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে আপনারাও ২৬ নভেম্বর রাস্তায় মিছিল করুন৷‌ মিডিয়ার একাংশকেও মমতা মিছিল করার আবেদন জানান৷‌ ১ ডিসেম্বর শহিদ মিনারে তৃণমূলের সভায় মমতা যে থাকতে পারেন, তারও ইঙ্গিত দেন তিনি৷‌ বি জে পি বাঙালি ও অবাঙালিদের মধ্যে বিভাজন করতে চাইছে বলে মমতা এদিন জানান৷‌ একটি প্রথম শ্রেণীর বিশেষ সংবাদপত্র এবং বি জে পি একসঙ্গে চলছে৷‌ কত টাকা লেনদেন হয়েছে, আমি জানি না৷‌ রাজ্যসভার সাংসদ মিঠুন চক্রবর্তী সম্পর্কে বলেন, মিঠুনদা সবচেয়ে বেশি আয়কর দেন৷‌ তাঁকেও চিঠি দেওয়া হয়েছে৷‌ একজন, দু’জন দলের বাইরে কী করলেন, তার জন্য গোটা দল ও সরকারকে কলুষিত করা হচ্ছে৷‌ কালো টাকা ফেরানো না হলে বি জে পি নেতাদের কালো চরিত্র ফাঁস করে দেব৷‌ সীমাম্ত দিয়ে অনুপ্রবেশ হচ্ছে কেন? এটা রাজ্য সরকারের দেখার কথা নয়৷‌ এটা কেন্দ্রের দায়িত্বে পড়ে৷‌ সি বি আইকে আক্রমণ করে মমতা বলেন, আগে সি বি আই সরকারিভাবে অনেক কিছু জানিয়ে দিত৷‌ এখন আগেভাগে মিডিয়াকে জানিয়ে দিচ্ছে৷‌ দালালি করে আমাদের চোর বলা হচ্ছে৷‌ প্রমাণ করতে না পারলে বি জে পি নেতাদের নাকে খত দিতে হবে৷‌ দাঙ্গাবাজদের আমি সবসময় নজরে রাখি৷‌ এরা যাতে দাঙ্গা না করতে পারে, তার জন্য সারা রাত জেগে পাহারা দিই৷‌ একটি বিশেষ সংবাদপত্রকে আক্রমণ করে মমতা বলেন, এরা চায়, নিজেরা একা থাকুক৷‌ তা হবে না৷‌ আজ এই জনস্রোত কাকে দিয়ে আটকাবেন? শিল্পপতি হর্ষ নেওটিয়া সম্পর্কে মমতা বলেন, তিনি যদি ছবি কেনেন, তা হলে সেটা অন্যায়? যাঁর কাছ থেকে ছবি কিনেছেন, তাঁর দিকে আঙুল তুলতে হবে? কেন? আমি যে চাদরটা পরেছি, সেটাও তো কেউ একজন বানিয়েছেন৷‌ তা হলে তাঁকে গ্রেপ্তার করতে হবে? ছবি তো কেউ না কেউ কিনবেন৷‌ এদিকে এদিন ইনডোরে চিটফান্ড প্রসঙ্গে সাধন পান্ডে বলেন, আগের কেন্দ্রের সরকারকে চিটফান্ড নিয়ে জানানো হয়েছিল৷‌ রাজ্য নানাভাবে চেষ্টা করেছিল চিটফান্ড রুখতে৷‌ কেন্দ্র কিন্তু তাদের দায়িত্ব পালন করেনি৷‌ এদিকে মিছিল শেষ করে মমতা বিকেলেই চলে যান নবান্নতে৷‌ সেখানে গুরুত্বপূর্ণ কাজ সারেন৷‌ আজ, মঙ্গলবার মমতা হেলিকপ্টারে দীঘায় সরকারি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যাচ্ছেন৷‌ আজ হলদিয়াতেও মুখ্যমন্ত্রীর অনুষ্ঠান রয়েছে৷‌





kolkata || bangla || bharat || bidesh || editorial || post editorial || khela ||
Tripura || Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited