Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ১৪ শ্রাবণ ১৪২১ বৃহস্পতিবার ৩১ জুলাই ২০১৪
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  বিদেশ  সম্পাদকীয়  উত্তর সম্পাদকীয়  খেলা  আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
সোনিয়াকে প্রধানমন্ত্রী হতে দেননি রাহুলই ।। ফেসবুক বন্ধুর হাতে খুন কেষ্টপুরের গৃহবধূ ।। তাপস পাল-কাণ্ড: আজ সকালে ফের শুনানি ।। এনসেফেলাইটিসে কলকাতায় মৃত্যু আড়াই বছরের শিশুর ।। কলকাতার ‘বান্টি বাবলি’ কাছে কোটি টাকা মিলল পুরীর সৈকতে ।। ২৪ বছর পর নীতীশ-লালু এক মঞ্চে, ঘোষিত হল জোট ।। এনসেফেলাইটিসে মৃত্যু আরও ৫ জনের ।। স্বাধীনতা দিবসে রাজ্যে ফ্রন্টের সম্প্রীতি-বন্ধন ।। এবার স্কুলে শরণার্থী শিবিরেও ইজরায়েলি ট্যাঙ্কের গোলা, হত ২০ ।। রাজ্যে এনসেফেলাইটিস নিয়ন্ত্রণে জনস্বার্থ মামলা ।। গাডকারির বাড়িতে আড়ি: রাজ্যসভায় তুমুল হইচই ।। ভক্তবালা: এফ আই আর করতে বললেন শিক্ষামন্ত্রী
বাংলা

এনসেফেলাইটিসে মৃত্যু আরও ৫ জনের

স্বাধীনতা দিবসে রাজ্যে ফ্রন্টের সম্প্রীতি-বন্ধন

তাপস পাল-কাণ্ড: আজ সকালে ফের শুনানি

কলকাতার ‘বান্টি বাবলি’ কাছে কোটি টাকা মিলল পুরীর েসকতে

ফেসবুক বন্ধুর হাতে খুন কেষ্টপুরের গৃহবধূ

ভক্তবালা: এফ আই আর করতে বললেন শিক্ষামন্ত্রী

সারদার নিখোঁজ ৩ ম্যানেজার!

বৃদ্ধ পিতার ভরণপোষণ, হাইকোর্টের কড়া নির্দেশ

গণসংগঠন ঢেলে সাজতে আজ বসছে সি পি এম রাজ্য কমিটি

প্রায়ই পেটাত বাউন্সাররা, চিটফান্ড এজেন্ট আত্মঘাতী

সি ই এস সি: ডিসেম্বরের মধ্যে আরও ২টি ইউনিট

আগুন নেভাতে থানায় থাকবে পাম্প, হোসপাইপ: দমকল মন্ত্রী

আলো, পাখা, মশারির ঘরে শুয়োরের ‘পুনর্বাসন’

১১ রুটে ঝলমলে ‘যানবাস’

রাজ্যে এনসেফেলাইটিস নিয়ন্ত্রণে জনস্বার্থ মামলা

আজ মুখ্যমন্ত্রী পুরুলিয়া হয়ে যাবেন বাঁকুড়ায়

কিনিসন জুট বন্ধ হয়ে গেল

এনসেফেলাইটিসে মৃত্যু আরও ৫ জনের

পরিস্হিতি জরিপ করে রাজ্যকে দোষারোপ মানস, রাহুলের

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share

গিরিশ মজুমদার: শিলিগুড়ি, ৩০ জুলাই– রাজ্য সরকার যা-ই বলুক, এনসেফেলাইটিসে মৃত্যুর মিছিল কিন্তু চলছেই৷‌ সরকারের শত চেষ্টার পরও মৃত্যু কিন্তু আটকানো যাচ্ছে না৷‌ এনসেফেলাইটিসের উপসর্গ নিয়ে ভর্তি রোগীদের ৩০ শতাংশের মৃত্যু হয়েছে মেডিক্যালে৷‌ গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৫ আক্রাম্তের মৃত্যু হয়েছে৷‌ উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ৩০ দিনে মৃত্যু গিয়ে দাঁড়াল ৯৩৷‌ এর মধ্যে ২৭ জনেরই মৃত্যু হয়েছে জাপানিজ এনসেফেলাইটিসে৷‌ বাকিদের মৃত্যু হয় এনসেফেলাইটিসের উপসর্গে৷‌ এখনও মেডিক্যালে ৪০ জন রোগী ভর্তি৷‌ তাদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্হা সঙ্কটজনক৷‌ চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, ভর্তি রোগীদের কয়েকজনের আবার জে ই ভাইরাস পজেটিভ৷‌ এই পজেটিভ আক্রাম্তরা রয়েছেন জেলা হাসপাতালগুলিতেও৷‌ সেখান থেকেও মৃত্যুর খবর আসছে, এর সঙ্গে রয়েছে কিছু নার্সিংহোমে মৃত্যু৷‌ সব মিলিয়ে উত্তরবঙ্গে ১৩৩ জন আক্রাম্তের মৃত্যু হয়েছে এদিন পর্যম্ত৷‌ বেসরকারি সূত্রে সেই সংখ্যাটা ১৫০ ছুঁয়েছে৷‌ এদিন আবার এনসেফেলাইটিস পরিস্হিতি দেখতে মেডিক্যালে গিয়েছিলেন কংগ্রেসের বিধায়ক তথা প্রাক্তন মন্ত্রী মানস ভুঁইয়া৷‌ গিয়েছিলেন বি জে পি-র রাজ্য সভাপতি রাহুল সিনহা৷‌ দুজনেই এনসেফেলাইটিস ভয়ানক আকার নেওয়ায় রাজ্যকে দোষারোপ করেন৷‌ মানস, রাহুল দুজনেরই অভিযোগ, রাজ্য সরকারের গাফিলতিতেই এতগুলি মানুষের প্রাণ চলে গেল৷‌ কংগ্রেস বিধায়ক যেমন বলেন, রাজ্যকে একটি বিশেষ মেডিক্যাল টিম গঠন করে মেডিক্যালে রাখার কথা৷‌ অম্তত ১৫ দিন যেন মেডিক্যালেই ওই চিকিৎসক টিম থাকে৷‌ অন্যদিকে বি জে পি-র রাজ্য সভাপতি রাহুল সিনহা আবার এদিন কেন্দ্রের সাহায্য নেওয়ার কথা বলেন৷‌ সেই সঙ্গে দাবি তোলেন এনসেফেলাইটিসে মৃতদের পরিবার পিছু ১০ লক্ষ টাকা এবং আক্রাম্তদের ২ লক্ষ টাকা প্রদানের৷‌ পাশাপাশি বিনামূল্যে যাবতীয় চিকিৎসা খরচ জোগানোর৷‌ যদিও দুই নেতার মেডিক্যাল পরিদর্শনকে রাজনীতি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী গৌতম দেব৷‌ গৌতমবাবু বলেন, ওঁরা এখন মেডিক্যালে আসছেন রাজনীতি করতে৷‌ রাজ্য সরকার যা যা করণীয় তা সঠিকভাবেই পালন করছে৷‌ এই পরিস্হিতিতে ‘রাজনীতির’ অভিযোগের মান্যতা আমরা দিই না৷‌ এদিন মানসবাবু প্রদেশ কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক অজয় ঘোষ, সম্পাদক সুবীন ভৌমিক এবং আরও ৪ বিধায়ক সুনীল তিরকি, জোসেফ মুন্ডা, সুখবিলাস বর্মা, শঙ্কর মালাকার এবং শিলিগুড়ির প্রাক্তন মেয়র গঙ্গোত্রী দত্তকে নিয়ে মেডিক্যালে আসেন৷‌ মেডিক্যাল সুপার ডাঃ সব্যসাচী দাস ছুটিতে থাকায় ডেপুটি সুপার ডা৷‌ বিজয় থাপার সঙ্গে আলোচনা করেন৷‌ তাঁর কাছে দাবি করেন যাতে মেডিক্যালে চিকিৎসক ও স্বাস্হ্যকর্মী বাড়ানোর জন্য রাজ্যকে প্রস্তাব দেওয়া হয়৷‌ সেই সঙ্গে কলকাতা থেকেও যাতে বিশেষ: টিম এনে পরিষেবা দেওয়া যায় তার ব্যবস্হা করা৷‌ এরপর তিনি মেল মেডিসিন ওয়ার্ডে এবং সি সি ইউ-তে গিয়ে আক্রাম্তদের দেখে আসেন৷‌ মেডিক্যাল থেকে বেরিয়ে সাংবাদিকদের মানসবাবু বলেন, এই পরিস্হিতিতে রাজ্য-কেন্দ্র বিতর্ক না করে এনসেফেলাইটিস সামাল দেওয়া উচিত৷‌ সরকারের গাফিলতি রয়েছে বলেই মৃত্যু বাড়ছে৷‌ আমি কলকাতায় গিয়ে এনসেফেলাইটিসের ওপরে রিপোর্ট তৈরি করে মুখ্যমন্ত্রী তথা স্বাস্হ্যমন্ত্রীকে দেব৷‌ একটা রিপোর্ট দলকেও দেব৷‌ এদিন মানস ভুঁইয়া জলপাইগুড়ি সদর হাসপাতালেও এনসেফেলাইটিসে আক্রাম্তদের দেখতে গিয়েছিলেন৷‌ এদিকে রাহুল সিনহাও বলেন, কেন্দ্র তো হাত বাড়িয়ে দিয়েছে৷‌ আমি কেন্দ্রীয় স্বাস্হ্যমন্ত্রী ডাঃ হর্ষবর্ধনের সঙ্গে দিল্লিতে আলোচনা করেছি৷‌ তিনি উদ্বিগ্ন৷‌ তবে রাজ্যের সাহায্য নিতে কোথায় আপত্তি৷‌ কেন্দ্রের সাহায্য নিলে কি রাজ্যের সম্মান নষ্ট হবে? আমি বুঝতে পারছি না৷‌ যদিও এ নিয়ে উত্তরবঙ্গ উন্নয়ণমন্ত্রী তথা মেডিক্যালের রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান গৌতম দেব বলেন, রাহুল তো চিকিৎসক নন, মানস ভুঁইয়া চিকিৎসক৷‌ তিনিও মেডিক্যালে রাজনীতি করতে এসেছেন৷‌ আমরা বিশেষজ্ঞের মতামত নিই৷‌ পরামর্শ শুনি৷‌ কিন্তু রাহুলবাবু, মানসবাবুদের কথার মান্যতা দিই না৷‌ আমরা চেষ্টা তো করছি৷‌ এখন দরকার প্রতিরোধের৷‌ এ ব্যাপারে তো আমরা বহু গ্রাম পঞ্চায়েত থেকে পুরবোর্ডের সাহায্য পাইনি৷‌ তা ছাড়া চিকিৎসা পরিষেবা আমরা কেন ফিরিয়ে দেব৷‌ কেন্দ্রীয় সরকার সাহায্য করলে কি কেউ ফিরিয়ে দেয়৷‌ এ সব অভিযোগের কোনও মূল্য নেই৷‌ কেন্দ্রের বিশেষজ্ঞরা তো এসেছেন৷‌ সাহায্য নিয়েও ওদের রাজনীতি! যারা মৃত্যু নিয়ে রাজনীতি করছে তাদের অভিযোগের উত্তর কী দেব৷‌ শুধু শুভেচ্ছা রইল৷‌ মৃতদের ক্ষতিপূরণ নিয়ে গৌতমবাবু কোনও কিছু এখনই বলতে চাইছেন না৷‌ তবে তিনি এনসেফেলাইটিস পরিস্হিতি নিয়ন্ত্রণে বলে দাবি করেছেন৷‌ এদিকে মেডিক্যাল সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার বিকেল থেকে বুধবার বিকেল পর্যম্ত মৃত্যু হয়েছে ৫ জন আক্রাম্তের৷‌ মৃতরা হল, বানারহাট রেডব্যাঙ্ক চা-বাগানের শ্রমিক বীণা প্রধান (৪০), উত্তর দিনাজপুরের ইটাহারের নাফু বর্মন (৬৫), ফাঁসিদেওয়া বিধাননগরের সুধীর সরকার, জলপাইগুড়ির রাজগঞ্জের সুখবালা ভর (৬০) এবং দক্ষিণ দিনাজপুরের গঙ্গারামপুরের যোগমায়া সরকার (৩৬)৷‌


kolkata || bangla || bharat || bidesh || editorial || post editorial || khela ||
Tripura || Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited