Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ১৩ শ্রাবণ ১৪২১ বুধবার ৩০ জুলাই ২০১৪
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  বিদেশ  সম্পাদকীয়  উত্তর সম্পাদকীয়  খেলা  আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
খুশির ইদ ।। রাস্তায় ‘রুপো’! লুটতে হুটোপুটি ।। তাপসের কুৎসিত মম্তব্যের বিরুদ্ধে সরব দলের সাংসদ মুমতাজম ।। কলকাতা পুরভোট: অবাঙালিদের আস্হা তৃণমূলিদের ।। এনসেফেলাইটিসে এবার মৃত্যু নার্সিংহোমে ।। শুভেন্দু-অখিল গোষ্ঠীর সঙঘর্ষে উত্তপ্ত তমলুক ।। অন্ধ্রের চাল বাংলাদেশ ঘুরে ত্রিপুরায়--তাপস দেব, আগরতলা ।। মার্কিনি পড়ুয়ারা এবার পড়বেন কলকাতায়--ওবামা-মনমোহন উদ্যোগের সাফল্য ।। রক্তাক্ত ইদ, খেলার মাঠে ইজরায়েলি বোমা, হত ৯ শিশু ।। বিদেশে ব্যবসা বাড়াতে ফেসবুকে কুমোরটুলি ।। উত্তরে নামী শিল্পীর ঢল ।। কড়া নিরাপত্তা, মুখ্যমন্ত্রী আজ পুরুলিয়ায়
আজকাল-ত্রিপুরা

রাজ্য জুড়ে শাম্তি-সম্প্রীতিতে আনন্দ-উৎসবের ইদ

স্বপ্নের ফেরিওয়ালা– কাগজের হকার

নিজভূমে ‘পরাধীন’ কাঁটাতারে নাকাবন্দী বাসিন্দারা!

শোক, শ্রদ্ধা, শেষ অভিবাদনে বিদায় নিলেন আজীবন সংগ্রামী কমিউনিস্ট চিত্ত চন্দ

ক্রীড়া পর্ষদের আবাসিক শিবির

প্রধানমন্ত্রীকে গিয়ে বলব, ত্রিপুরায় কী ভয়ঙ্কর সন্ত্রাস: আলুওয়ালিয়া

ক্ষমতাচ্যুত কংগ্রেসের সঙ্গে জোট ভাঙল আই এন পি টি

ব্যাঙের ছাতার মতো গজিয়ে-ওঠা ল্যাব গন্ডাছড়ায়

চেতনা-র সভায় বিচারপতি

এন ই সি-র দ্বাদশ পঞ্চবার্ষিকী

রাজ্য জুড়ে শাম্তি-সম্প্রীতিতে আনন্দ-উৎসবের ইদ

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share

আজকালের প্রতিবেদন: রাজ্য জুড়ে বিপুল আনন্দ-উৎসাহের মধ্য দিয়ে পালিত হল ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ইদ-উল-ফিতর৷‌ শুভেচ্ছা বিনিময়, দেদার খাওয়াদাওয়া, গরিব-দুঃখীদের দান, সহায়তা, আত্মীয়, পরিবার-পরিজনদের মধ্যে উপহার বিনিময়ের মধ্য দিয়ে দিনটি কাটে৷‌ বিভিন্ন মসজিদ, ইদগায় ইদের নমাজ পাঠ হয়৷‌ নমাজে রাজ্যে কর্মরত, বহিঃরাজ্য এবং বিদেশিরাও অংশ নেন৷‌ নমাজ থেকে দেশ ও রাজ্যের সকল অংশের মানুষের মিল-মহব্বত, শাম্তি-সমৃদ্ধি কামনা করা হয়৷‌ এর পাশাপাশি গাজায় ইজরায়েলের হানা বন্ধেরও আওয়াজ ওঠে৷‌ অযোধ্যায় রামমন্দির নির্মাণের জিগির রোধে শাম্তি-সম্প্রীতির বোধোদয়ের প্রার্থনা করা হয়৷‌ বৃষ্টিহীন শ্রাবণের মেঘ-রোদউজ্জ্বল সকালে ইদের খুশির হাওয়া রাজধানী আগরতলায়ও৷‌ জাতীয় ছুটি৷‌ পথ, রাজপথ, গলিপথ তুলনায় অলস৷‌ তার মাঝেই মসজিদ-ইদগামুখী মুসলিমরা৷‌ বাবা-কাকার হাত ধরে ছোট ছোট শিশুরাও ইদগামুখী৷‌ পরনে প্রায় সবারই নতুন জামা, পাঞ্জাবি, জুতো৷‌ ঠোঁটের কোণে মিষ্টি হাসি৷‌ শহরের সবচেয়ে বড় জামাত অনুষ্ঠিত হয় শিবনগরের গেঁদুমিয়া মসজিদে৷‌ সকাল সাড়ে ৯টায় নমাজ শুরুর অনেক আগে থেকেই শিবনগর মসজিদের ইদগা প্রাঙ্গণে শয়ে শয়ে মানুষের ভিড়৷‌ রাজ্য সরকারের আর্থিক সহায়তায় শিবনগর গেঁদুমিয়া মসজিদ প্রাঙ্গণে নমাজের জন্য এখন থেকে বেশি স্বাচ্ছন্দ্যময়৷‌ রাজ্যে কর্মরত বিভিন্ন কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ান, বাংলাদেশ ভিসা অফিসের প্রথম সচিব-সহ অন্য কর্মীরাও অংশ নেন৷‌ নমাজ পাঠ করান হিন্দি, বাংলা, ইংরেজি ও উর্দুতে তুখোড় তরুণ আবদুর রহমান৷‌ নমাজের আগে গীতার সংস্কৃত শ্লোকও অনর্গল আওড়ালেন তিনি৷‌ বোঝালেন, অযোধ্যায় যাঁরা বিতর্কিত জমিতে রামমন্দির তৈরির কথা বলছেন, তাতে দেশের একটি অংশের কষ্ট হতে পারে, দুঃখ হতে পারে৷‌ কাউকে দুঃখ দিয়ে কোনও ধর্ম হয় না৷‌ সনাতন ধর্মও তা-ই বলে৷‌ গীতার শ্লোক আউড়ে ইমাম বলেন, ‘কৃষ্ণও অর্জুনকে বলেছেন, কাউকে দুঃখ দিয়ে কোনও ধর্ম হয় না৷‌’ তিনি বলেন, গোটা বিশ্বেই সন্ত্রাসবাদের পেছনে একটি বড় অংশই মুসলিম সম্প্রদায়৷‌ কিন্তু তাদের জন্য গোটা মুসলিম সম্প্রদায়কে দায়ী করা যায় না৷‌ কারণ, ইসলাম এই শিক্ষা দেয় না৷‌ ইসলাম শাম্তি, সৌভ্রাতৃত্ব ও সহমর্মিতার আদর্শে উদ্বুদ্ধ হতে বলে৷‌ এ প্রসঙ্গে তিনি সরোজিনী নাইডু-সহ বিশ্ববরেণ্য কয়েকজন মনীষীর উপমাও টানেন৷‌ ইদ উপলক্ষে এখানে পরস্পরে আলিঙ্গনাবদ্ধ হন, শুভেচ্ছা বিনিময় করেন৷‌ ইদ-উল-ফিতর উপলক্ষে নন্দননগরের নুরানি মসজিদ কমিটির উদ্যোগে সকালে একটি ধর্মীয় শোভাযাত্রা আয়োজিত হয় শহরে৷‌ মসজিদে নমাজও আদায় করা হয়৷‌ এছাড়া আগরতলার ভাটি অভয়নগর, ইন্দ্রনগর, চন্দ্রপুর, রামনগর, গোলচ!র, আমতলি প্রভৃতি স্হান থেকেও উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে ইদ পালিত হয়৷‌ ইদ আয়োজনের খবর পাওয়া গেছে উদয়পুর, সোনামুড়া, ব‘নগর, বিশালগড়, কৈলাসহর, কমলপুর, বিলোনিয়া, কল্যাণপুর, কুর্তি, ধর্মনগর প্রভৃতি এলাকা থেকে৷‌ বিলোনিয়ার রাজনগরে ভারত-বাংলাদেশ সীমাম্তে কাঁটাতারের বেড়ার বাঁধন উপেক্ষা করেই দু’দেশের সীমাম্তবাসী শুভেচ্ছা বিনিময়ে মিলিত হন৷‌ বি এস এফ, বি জি বি-র কড়া পাহারাও এখানে হার মানে৷‌

গন্ডাছড়ায়

গন্ডাছড়া থেকে আজকাল প্রতিনিধি জানান, গন্ডাছড়ায়ও পালিত হল ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের সেরা উৎসব ইদ-উল-ফিতর৷‌ মঙ্গলবার ইদ উপলক্ষে মুসলমান সম্প্রদায়ের লোকেরা আনন্দে গা ভাসান৷‌ মহকুমায় মূল অনুষ্ঠানটি হয় সরমা ভিলেজে মুসলিমপাড়ায়৷‌ সেখানে অবস্হিত মসজিদে বিভিন্ন এলাকা থেকে মুসলমান সম্প্রদায়ের লোকেরা সকাল থেকেই এসে জড়ো হন৷‌ ওই মসজিদে সকালে নমাজ আদায় হয়৷‌ নমাজ শেষে একে অপরের সঙ্গে আলিঙ্গন করে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন৷‌ এক মাস রমজানের শেষে পালিত এই ইদের দিনে সবাইকেই দেখা গেছে খোশমেজাজে৷‌ মিষ্টির দোকানগুলিতেও ক্রেতাদের ভিড় লক্ষ্য করা গেছে৷‌ মহকুমার জনগণের আশা, ইদ উৎসব এলাকায় শাম্তি, সম্প্রীতি ও ভ্রাতৃত্ববোধের বন্ধনকে আরও দৃঢ় করবে৷‌

রাজনগরে

রাজনগর থেকে আজকাল প্রতিনিধি জানান, রমজানের রোজা শেষে খুশির ইদে দু’দেশ একাকার হল রাজনগরে৷‌ মঙ্গলবার সকালে সীমাম্তগ্রাম রাজনগরের জামে মসজিদে নমাজ শেষ হতেই কোলাকুলি ও শুভেচ্ছা বিনিময়ের ধুম লেগে যায়৷‌ বড়দের সঙ্গে ছোটরাও নমাজ আদায়ে বসেছিল৷‌ একই চিত্র ছিল রাঙামুড়া, বি ও পি রাজনগর, সমরেন্দ্রনগরের মসজিদ চত্বরেও৷‌ এর খানিক পরেই ওপার-এপার সব যেন এক হয়ে গেল৷‌

উদয়পুরে

উদয়পুর থেকে আজকাল প্রতিনিধি জানান, গোটা রাজ্যের সঙ্গে উদয়পুরেও পালিত হয় ইদ উৎসব৷‌ অন্য দিনের চিত্রটা মঙ্গলবার উদয়পুর শহরে চোখে পড়েনি৷‌ অধিকাংশ দোকানিই ইদের আমেজ কাটিয়েছেন বাড়িতে বসেই৷‌ ইদ উৎসব আর শারদীয়া দুর্গোৎসব সমান৷‌ মুসলিম সম্প্রদায়ের ইদ যেন আজ হিন্দু সম্প্রদায়েও প্রবেশ করেছে৷‌ একে অপরের বাড়িতে এবং একে অপরের সঙ্গে আলিঙ্গন করার চিত্রটিও দারুণ৷‌ মুসলিম সম্প্রদায়ের লোকদের পাশাপাশি হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকদেরও ইদের আনন্দ উপভোগ করতে দেখা গেছে৷‌ ভাল ভোজনের আয়োজন রয়েছে মুসলিম সম্প্রদায়ের লোকেদের ঘরে ঘরে৷‌ নিমন্ত্রণ রক্ষা করতে ছুটে যান হিন্দুরা৷‌ তবে এই ইদ উৎসবকে কেন্দ্র করে বিগত একমাসব্যাপী ইফতার, বস্ত্র বিতরণ নানান অনুষ্ঠান হয় এলাকা জুড়ে৷‌ ইদের বাজারে চিনি-সহ আসবাবপত্র ও জামা-কাপড়ের দাম ছিল অস্বাভাবিক৷‌ মঙ্গলবার উদয়পুরের প্রত্যেক এলাকার মসজিদগুলিতে মুসলিম সম্প্রদায়ের ছোট-বড় সকল লোকদেরই নতুন সাজে নমাজ পড়তে দেখা গেল৷‌ সঙ্গে একে অপরের সঙ্গে আলিঙ্গন৷‌

কল্যাণপুরে

কল্যাণপুর থেকে আজকাল প্রতিনিধি জানান, ইদের উৎসবে মাতল কল্যাণপুর৷‌ মঙ্গলবার দিনভর কল্যাণপুরের ঘিলাতলি গ্রামে মুসলিমরা ইদের আনন্দে গা ভাসান৷‌ কোনও অপ্রীতিকর ঘটনার খবর নেই৷‌ আট থেকে আশি, সবাই নতুন জামা-কাপড় পরেন৷‌ ছিল দেদার খাবারের আয়োজন৷‌ এদিন সকালেই নমাজ আদায় অংশ নেন৷‌ শাম্তি, সম্প্রীতির বাতাবরণ ছড়িয়ে দিল ঘিলাতলির মুসলিমরা৷‌ এদিন তাঁরা গ্রামের গরিব মানুষদের মধ্যে ফল, মিষ্টি এবং বস্ত্র দান করেন, যা সবার নজর কাড়ে৷‌ ঘিলাতলি গ্রামে অন্য জায়গা থেকে বহু মানুষ আসেন নমাজপাঠে যোগ দিতে৷‌

কমলপুরে

কমলপুর থেকে আজকাল প্রতিনিধি জানান, খুশির ইদ উৎসবে সামিল কমলপুরের মোহনপুর, গঙ্গানগর-সহ মুসলিম-অধ্যুষিত গ্রামের সংখ্যালঘু মানুষজন৷‌ মঙ্গলবার সকালে মোহনপুর জামে মসজিদের ইমাম ফয়জুর রহমান ইদের নমাজ আদায় করেন এবং দোয়ার মাধ্যমে ইদের জামাতের নমাজ শেষ হয়৷‌ এদিন নমাজের কবর জিয়ারত করা হয়৷‌ সেখানে আত্মার মাগফেরাতের জন্য আল্লাহ‍্তায়ালার কাছে দোয়া চাওয়া হয়৷‌ কোলাকুলির মধ্য দিয়ে সবাই ইদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন৷‌ মোহনপুরের জামে মসজিদে ইদের নমাজের জামাতে সীমাম্তরক্ষী বাহিনীর জওয়ানরাও এদিন নমাজ পড়েন৷‌ পবিত্র ইদ-উল-ফিতর উৎসবে মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষের সঙ্গে হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষজনও সামিল হন৷‌

অমরপুরে

অমরপুর থেকে আজকাল প্রতিনিধি জানান, ২৯ দিন রোজা থাকার পর ধর্মপ্রাণ মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ অমরপুরেও বিভিন্ন মসজিদে সামিল হয়েছেন৷‌ নতুন পোশাকে ছোটদের সঙ্গে বড়দেরও দেখা গেছে একে অপরকে কাছে টেনে নিতে৷‌ ধর্মপ্রাণ মুসলিমরা অমরপুর বাজারের মসজিদ-সহ অম্পি, নতুনবাজার, যতনবাড়ি, মৈলাক, রাংকাং, দেববাড়ি প্রভৃতি স্হানে ইদের নমাজে মিলিত হয়েছেন৷‌ মৈলাক মসজিদের ইমাম জানিয়েছেন, বিশ্বশাম্তির জন্য সমস্ত ধর্মপ্রাণ মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ মঙ্গলবার একযোগে দোয়া চেয়েছেন৷‌


kolkata || bangla || bharat || bidesh || editorial || post editorial || khela ||
Tripura || Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited