Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ১৪ ভাদ্র ১৪২১ রবিবার ৩১ আগস্ট ২০১৪
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  বিদেশ  সম্পাদকীয়  উত্তর সম্পাদকীয়  নেপথ্য ভাষন  খেলা  রবিবাসর   আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
নেপথ্য ভাষন -অশোক দাশগুপ্ত--১০০ দিনেই আচ্ছে দিন অস্তগামী? ।। আজ বড় ম্যাচ, শহরের পারদ চড়ছে--অগ্নি পান্ডে ।। দুই ছাত্র সংগঠনের গোলমালের জেরে মেদিনীপুর কলেজ অধ্যক্ষের পদত্যাগ ।। তৃণমূলের ছাত্রদের ঘেরাও: মন্ত্রীকে জানালেন উপাচার্য, ক্ষুব্ধ শিক্ষামহল ।। ছাত্রী নিগ্রহ: গ্রেপ্তার ৩ ছাত্রকে বহিষ্কার বিশ্বভারতী ।। সারদার অতিথিদের খোঁজে মুম্বইয়ের হোটেলে পা গোয়েন্দাদের ।। দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী করে দেবে: বি জে পি-র টোপ বিশ্বাসকে? ।। বারাণসী হবে স্মার্ট সিটি, জাপানে চুক্তি সই প্রধানমন্ত্রীর ।। স্পিনের ফাঁদে কুকরা ডুবলেন!--দেবাশিস দত্ত ।। রায়নার টেম্পারামেন্ট প্রশংসনীয়--সুনীল গাভাসকার ।। মোদির ভাষণ স্কুলে? ফরমানে রাজ্যের ‘না’ ।। আলু ধর্মঘট: আজ বৈঠকে ব্যবসায়ীরা
আজকাল-ত্রিপুরা

দেবদারুতে শহিদ-স্মরণ সমাবেশ

শিক্ষাকে পণ্য বানানোর কেন্দ্রীয় নীতিকে আক্রমণ মুখ্যমন্ত্রীর

তালা ভেঙে দায়িত্ব নিলেন নতুন অধিকর্তা

অটোরিকশা শ্রমিক রাজ্য সম্মেলন

অফিসেই পানীয়ের আড্ডা: খবর হলে দেখে নেওয়ার হুমকি করণিকের

অধ্যক্ষ গরহাজির, নেই কোনও নজরদারি

বধূর মৃত্যু ঘিরে রহস্য দানা বাঁধছে বড়পাথরিতে

মোটর স্ট্যান্ড, টাউন হলের নির্মাণ কাজ দেখলেন মানিক সোনামুড়ায়

দেবদারুতে শহিদ-স্মরণ সমাবেশ

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share

বিপ্লব বৈদ্য, জোলাইবাড়ি

৩০ আগস্ট– কেন্দ্রের বি জে পি নেতৃত্বাধীন সরকারের সঙ্গে এখনই সঙঘাতের পথে হাঁটছে না রাজ্যের বাম সরকার৷‌ আরও সময় দেবে৷‌ একই সঙ্গে তাদের প্রতিটি জনবিরোধী নীতি ও পদক্ষেপের বিরুদ্ধে লড়াইও জারি রাখবে৷‌ স্পষ্ট করেই জানিয়ে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার৷‌ শনিবার দেবদারুর শহিদ দম্পতি রাজ্যেশ্বর-সুমিতার স্মরণ সমাবেশে রাজ্যের পরিস্হিতি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, শত্রুরা বারবার পরাস্ত হচ্ছে৷‌ কোণঠাসা, জনবিচ্ছিন্ন হচ্ছে৷‌ কিন্তু মনে করার কারণ নেই, ওরা নিঃশেষিত হয়ে গেছে৷‌ কালোবাজারি আছে, সুদখোর মহাজনরা আছে, গরিবকে ঠকানোর লোকেরা আছে৷‌ ওরা সংখ্যায় কম হতে পারে৷‌ ওদের রক্ষক কংগ্রেস দল৷‌ আজ তারা দুর্বল৷‌ কিন্তু সুযোগের অপেক্ষায় আছে৷‌ আমরা অসতর্ক থাকলে সুযোগ বুঝে ফণা তুলবে৷‌ ছোবল মেরে ফের ত্রিপুরাকে ছারখার করার চেষ্টা করবে৷‌ শহিদ রাজ্যেশ্বর-সুমিত্রার আত্মত্যাগের রজতজয়ম্তী স্মরণ সমাবেশে এভাবেই গণতান্ত্রিক মানুষকে সতর্ক করলেন সি পি এমের পলিটব্যুরো সদস্য মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার৷‌ বাধ্যভূমি দেবদারুর শহিদ-স্মারকে শ্রদ্ধা জানিয়ে দেবদারু দ্বাদশ স্কুল মাঠের স্মরণ সমাবেশে মুখ্যমন্ত্রী বলতে উঠলেই বৃষ্টি নামে৷‌ হালকা বৃষ্টির মধ্যেই মুখ্যমন্ত্রী বলেন, গত বিধানসভার ভোটে ৫০টি আসনে বামেদের জিতিয়েছেন ত্রিপুরার মানুষ৷‌ ভোট দিয়েছেন ৫১ শতাংশ৷‌ লোকসভার ভোটে ২টি আসনে কংগ্রেসের জামানত জব্দ হয়েছে৷‌ ত্রিস্তর পঞ্চায়েতের মধ্যে জেলা পরিষদে ৯৯ ভাগ আসন, পঞ্চায়েত সমিতির ৯৫ ভাগ আসন, গ্রামপঞ্চায়েতের পায় ৯৩ ভাগ আসনে বামেদের জয়ী করে কংগ্রেসকে আরও কোণঠাসা করে ত্রিপুরার মানুষ সারা ভারতের সামনে বার্তা দিয়েছেন– এটাই পথ, এটাই ভবিষ্যৎ৷‌ বামপম্হার কোনও বিকল্প নেই৷‌ কংগ্রেসকে জনবিচ্ছিন্ন করার লড়াই অহর্নিশ জারি রাখাই শহিদ রাজ্যেশ্বর-সুমিত্রার আত্মদানের রজতজয়ম্তীর অন্যতম শপথ বলে তুলে ধরলেন মুখ্যমন্ত্রী৷‌ লোকসভা নির্বাচনের মাধ্যমে দেশের রাজনৈতিক পরিস্হিতির একটা বিরাট পরিবর্তন হয়েছে বলে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, কংগ্রেসকে মানুষ পরাজিত করেছে৷‌ কিন্তু যারা ক্ষমতায় এসেছে তারাও কংগ্রেসের চাইতে কোনও অংশে ভাল নয়৷‌ বি জে পি-র মূল চালিকাশক্তি আর এস এসের মূল বক্তব্য, ভারতে থাকতে হলে সবাইকে হিন্দু হয়ে থাকতে হবে৷‌ এটা বিপজ্জনক কথা৷‌ নির্বাচনের আগে জিনিসপত্রের দাম কমবে, মুদ্রাস্ফীতি কমবে, বেকাররা চাকরি পারে, সোনার ভারত, নতুন ভারত গড়া হবে প্রতিশ্রুতি দিয়ে ওরা ক্ষমতায় এসেছে৷‌ কিন্তু ক্ষমতায় বসেই জিনিসের দাম কমানোর বদলে রেলের যাত্রীভাড়া বাড়াল, পণ্যমাশুল বাড়াল৷‌ জিনিসের দাম আরও বাড়াÿল৷‌ এখন কেরোসিনের দাম বাড়বে৷‌ কংগ্রেসের সঙ্গে বি জে পি সরকারের কোনও পার্থক্য নেই৷‌ রেগার বরাদ্দ কমিয়ে দিয়েছে৷‌ দেশের ৫০ হাজার জেলার মধ্যে ২০-২১ হাজার জেলায় রেগার কাজ চালাবে, বাকি রাজ্যগুলিতে কী হবে তারা জানে না৷‌ বেকারদের চাকরির প্রতিশ্রুতি দিয়ে এলেও এখনও চাকরি দেওয়ার কোনও উদ্যোগ নেই৷‌ উল্টে ও এন জে সি-সহ ১২টি লাভজনক রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্হার শেয়ার বিক্রি করে ৪৮ হাজার কোটি টাকা সংগ্রহ করবে৷‌ মুখ্যমন্ত্রী প্রশ্ন করেন, কী করে এটা উন্নয়নের সরকার, গরিবের সরকার, পরিবর্তনের সরকার হল? রাজ্যের প্রসঙ্গ তুলে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, শাম্তি আর উন্নয়নের পথে চলা ত্রিপুরায়ও গভীর ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে৷‌ সন্ত্রাসবাদীরা যখন বিচ্ছিন্ন, কোণঠাসা, তাদের অক্সিজেন জোগানোর জন্য আলাদা রাজ্যের স্লোগান তুলে খালি গায়ে আগরতলা শহরে মিছিল করছে৷‌ সতর্ক থাকুন৷‌ চোখ-কান খোলা রাখুন৷‌ ত্রিপুরাকে গোটা দেশের মধ্যে একটা আদর্শ রাজ্যে পরিণত করার চেষ্টা করছি আমরা৷‌ আগের কেন্দ্রীয় সরকারও অসহযোগিতা করেছে, নতুন সরকারও সহযোগিতা করবে এমন লক্ষণ নেই৷‌ প্রধানমন্ত্রীর সমালোচনা করে মানিক বলেন, সব ক্ষমতা কেন্দ্রের কুক্ষিগত শুধু নয়, নিজের দলের ক্ষমতাও যিনি হাতে নিচ্ছেন, তিনি কীভাবে অন্যদের সাহায্য করবেন! তবে বাম সরকার এখনই সঙঘাতের পথে যাবে না কেন্দ্রের বিরুদ্ধে৷‌ অপেক্ষা করবে এবং লড়াইও জারি রাখবে৷‌ এভাবেই রাজ্য সরকারের অবস্হান স্পষ্ট করলেন মুখ্যমন্ত্রী৷‌ রাজ্য সরকারের কাজের ধরন তুলে ধরে মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণা, গ্রামের কাজেই দেওয়া হবে অগ্রাধিকার৷‌ ভোট দিয়েই কাজ শেষ না ভেবে উন্নয়নের কাজে সকলকে যুক্ত হওয়ার আবেদন জানিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, নিজেদের ছেলেমেয়েদের ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল করতেই বামেদের ভোট দিয়েছেন৷‌ ভোটে জিতিয়ে যাঁদের দায়িত্ব দিয়েছেন, তাঁরা ঠিকমতো কাজ করছে কি না খেয়াল রাখুন৷‌ কোনও দুর্বলতা দেখলে প্রশ্রয় দেবেন না৷‌ চুপ করে থাকবেন না৷‌ বড় নেতা না ছোট নেতা, হিসেব করবেন না৷‌ মুখের দিকে না তাকিয়ে সঙঘবদ্ধ প্রতিবাদ করুন৷‌ কড়া ভাষায় গ্রামস্তরের জনপ্রতিনিধিদের এভাবেই সতর্ক করলেন মুখ্যমন্ত্রী৷‌ বলেন, আদর্শ উন্নত বিকল্প রাজ্য গড়তে গেলে দুর্নীতিকে প্রশ্রয় দেওয়া যায় না৷‌ শুধু চোখের জল ফেলে শহিদদের স্মরণ-শ্রদ্ধা নয়, শ্রেণীসংগ্রামের দৃষ্টিতে উন্নত, সমৃদ্ধ ত্রিপুরা গড়ার শপথ নিতে হবে৷‌ কী কঠিন অবস্হার মধ্য দিয়ে জেলা শিবিরে বাম আন্দোলন শক্তিশালী হয়েছে, তা তুলে ধরেন সি পি এম কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মন্ত্রী বাদল চৌধুরি৷‌ সেই বীভৎসতার কথা তোলেন সি পি এম রাজ্য সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য নারায়ণ করও৷‌ শহিদ হওয়ার ২৫তম বর্ষে স্মরণিকার আবরণ উন্মোচন করেন মুখ্যমন্ত্রী৷‌ শহিদ দম্পতির ছেলেমেয়ে রানা ও শুভ্রার হাতে স্মারক তুলে দেন ডি ওয়াই এফ আই রাজ্য সম্পাদক অমল চক্রবর্তী৷‌ এক পশলা বৃষ্টি কিছুটা ব্যাঘাত ঘটালেও সমাবেশে আসেন বিলোনিয়া ও শাম্তিরবাজার মহকুমার বেশিরভাগ মানুষ গিয়ে দেখেন এসেছেন সেই দিনের বাধ্যভূমি৷‌ বিধায়ক যশবীর ত্রিপুরা ছিলেন সমাবেশের সভাপতি৷‌


kolkata || bangla || bharat || bidesh || editorial || post editorial || nepathya bhasan ||
khela || sunday || Tripura || Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited