Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ১৭ ফাল্গুন ১৪২১ সোমবার ২ মার্চ ২০১৫
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  খেলা  আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
জায়গা খুঁজছেন মুকুল--‘বি জে পি সাম্প্রদায়িক দল নয়’ ।। অভিজিৎ-হত্যার তদম্তে এফ বি আই?--জঙ্গি ফারাবি পশ্চিমবঙ্গে? ।। মুখ্যমন্ত্রী হয়েই পাকিস্তান ও জঙ্গিদের ধন্যবাদ ।। দল সাজাতে নোট দিয়েই রাহুল ইউরোপে উপসনায়? ।। মুকুলপম্হীদের সরিয়ে নতুন কমিটি নদীয়ায় ।। যথাযথ পালন করব নতুন দায়িত্ব: বক্সি ।। জাল টাকা, মাদক পাচার রুখতে খাল কাটছে বি এস এফ--সব্যসাচী সরকার ।। মুকুলের পাপ ঘাড়ে নিতে চায় না কং: অধীর--বিজয়প্রকাশ দাস, স্নেহাশিস সৈয়দ ।। ডালমিয়াই প্রেসিডেন্ট--দেবাশিস দত্ত ।। বিশ্বকাপে ১০ দল?--ঠান্ডা ঘরে বসে ওঁরা সিদ্ধাম্তটা নিন: ধোনি ।। অভিজিৎ-হত্যার প্রতিবাদে সোচ্চার কলকাতা ।। আবার মুফতি
আজকাল-ত্রিপুরা

ছোটদের জন্য সঞ্জয়ের রকমারি গল্প

ইংরেজি উপন্যাস অ্যান এবোড অন দ্য হিল

কৈলাসহর বইমেলায় আলোচনা

গাছ মরছে! ঋষ্যমুখে তরমুজ চাষীরা বিপন্ন, মাঠে নেমেছে উদ্যান দপ্তর

রবীন্দ্র ভবনে ১২ ঘণ্টা ম্যারাথন নাচ

উপজাতি কর্মচারী কনভেনশন

ধান উৎপাদনে দেড়-দু’বছরেই রাজ্য স্বয়ম্ভর হবে: মুখ্যমন্ত্রী

রমেশ চৌমুহনিতে ৮২ লাখে তৈরি হবে মাছের পোনা-বাজার

কেন্দ্রের কর্পোরেটমুখী বাজেটের প্রতিবাদে পথে নামছে সি পি এম

ঐতিহ্যের হাতে হাত মেলাল মণিপুর-ত্রিপুরা

ছোটদের জন্য সঞ্জয়ের রকমারি গল্প

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share

ব্রজগোপাল রায়

‘ছোটদের রকমারি গল্প’ লিখেছেন সঞ্জয় পুরকায়স্হ৷‌ প্রচ্ছদশিল্পী বিমলেন্দ্র চক্রবর্তী৷‌ বইটির অলংকরণ তাঁরই৷‌ বইটি অক্ষর পাবলিকেশনস থেকে ২০১২ সালে প্রকাশিত হয়েছে৷‌ মূল্য ১০০ টাকা৷‌

বইটিতে মোট ১০টি শিশুতোষ গল্প আছে৷‌

লেখক সঞ্জয় পুরকায়স্হ পেশায় একজন শিক্ষক৷‌ ছাত্র, শিক্ষক, অভিভাবক সমাজের সঙ্গে তাঁর ঘনিষ্ঠতা৷‌ শ্রী পুরকায়স্হের সমাজদৃষ্টি প্রখর৷‌ বইটিতে চোখ বুলিয়ে মনে হয়েছে মানুষকে যুক্তিতর্ক ও বিজ্ঞান সচেতন করার একটা ইচ্ছে রয়েছে তাঁর যা গল্পগুলোর ভিতর দিয়ে আত্মপ্রকাশ করেছে৷‌

আজকাল অভিভাবকদের বাসনা পূরণ করতে গিয়ে শিশুরা হারাচ্ছে তাদের শৈশব৷‌ সকাল থেকে সন্ধে বড়দের হাত ধরে শুরু হয় ইঁদুর- দৌড়৷‌ আমোদ, আহ্লাদ, খেলাধুলো, দেশ দেখার আনন্দ এমনকি সঙ্গী-সাথি ও পরিবারের সবার সঙ্গে দুদণ্ড কথা বলার অবকাশ নেই তাদের৷‌ ইচ্ছেয় হোক, অনিচ্ছেয় হোক একটা যান্ত্রিক ছুটে চলার ফাঁকে শিশুদের জীবন থেকে শৈশবটাই লোপ পেতে বসেছে৷‌ ‘এটা কি ঠিক হচ্ছে’ গল্পের অরুণ, বুধাইদের যখন স্কুলে যাওয়া এবং খেলাধুলা করে কাটাবার কথা তখন অভাবের তাড়নায় ওদের সামান্য বেতনে চাকরি করতে হয়৷‌ সেই সুযোগে মহাজনরা স্বল্প দামে শিশুশ্রম কিনে নিয়ে ওদের মুনাফা বাড়ায়৷‌ শুভবুদ্ধি সম্পন্ন শিক্ষক রাসবিহারীবাবুর যুক্তি-পরামর্শে হীরু ঘোষের হৃদয় পরিবর্তন হয়৷‌ তিনি নিজের ভুল বুঝতে পেরে শিশুদের হাতে বই তুলে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন৷‌

জগতের ক্রোড়-বিচ্যুত একটি শিশুর নাম সুন্দর৷‌ সে সুন্দরের সন্ধানে দূর্বাপুর গ্রামে এসে দেখল এ গাঁয়ে সবুজের সমারোহ থাকলেও মানুষের মনে রয়েছে হিংসা, দ্বেষ, রেষারেষি, ঝগড়াঝাঁটি ইত্যাদি৷‌ সুন্দরের আগমনের পর আস্তে আস্তে গ্রামে শাম্তি, সম্প্রীতি ও আনন্দের হাওয়া বইতে লাগল৷‌ সদানন্দবাবু ভেবে পান না এ আকস্মিক পরিবর্তনের মূলে কি সেই সুন্দর! সুন্দর গল্পটি এ ভাবনারই দ্যোতক৷‌

শিশুরা ভূতপ্রেত-দৈত্যদানোর গল্প শুনতে ও পড়তে খুব ভালবাসে৷‌ ‘ভূতের ঢেলা’ গল্পটি লিখতে গিয়ে গল্পকারের মনে নীতিবোধ জেগে উঠেছে, জেগে উঠেছে বিজ্ঞানবোধ, জাগিয়ে তোলার কথা৷‌ তাই বিভিন্ন চরিত্রের অবতারণা করে শিক্ষক কল্যাণবাবুকে দিয়ে কাহিনীর জট খুলবার চেষ্টা করেছেন৷‌ গল্পটি ছোটদের খুব ভাল লাগবে আশা করি৷‌

আজকাল সততা দুর্লভ হয়ে উঠেছে৷‌ সৎ লোককে অনেকেই ভাবেন বোকা, মূর্খ, পাগল৷‌ সাধারণত ওদের সামাজিক মর্যাদা দেওয়া হয় না৷‌ তথাপি সততার একটা মূল্য আছে যা শেষ পর্যম্ত সমাজ-সংসার স্বীকার করে নিতে বাধ্য হয়৷‌ এ বিষয়টিকে উপভোগ করা যাবে ‘দাম’ গল্পটি পড়লে৷‌

‘বন্ধু’ গল্পটিতে কাহিনীকার পরিবেশকে সুস্হ সুন্দর রাখবার জন্য গাছপালা, তৃণলতার সংরক্ষণ ও যত্নের কথা বলতে গিয়ে চমৎকার একটি গল্প ফেঁদেছেন৷‌

‘কাজের লোক’ গল্পটিতে একটি ভিন্নস্বাদের মানুষের স্নেহ-ভালবাসায় বিপথগামীরাও যে সুস্হ জীবনে ফিরে আসতে পারে এ গল্পটিতে সে কথাই বলা হয়েছে৷‌

‘নিপুর বন্ধু’ গল্পটি একটি কল্পকাহিনী৷‌ গল্প বিস্তারের কাজে গল্পকার ভিন গ্রহের মানুষকে এনেছেন এবং তার মুখ দিয়ে বলিয়েছেন নিপু শিশু তার মন খুব ভাল– কিন্তু এ পৃথিবীর মানুষগুলোর মন ভাল না৷‌ ওদের মন ভাল হলে এখান থেকেও সর্বত্র সুগন্ধ ছড়িয়ে পড়ত৷‌ এ গল্পটিতেও কিছু নীতি কথা আছে৷‌

‘গাও পাখি’ গল্পটির মাধ্যমে স্বাধীনতার যে কী আনন্দ তাই বোঝাবার চেষ্টা করা হয়েছে৷‌

‘নকুমামার কাণ্ড’ গল্পটিতে নীল দাদুর দুরবস্হার চিত্রটি আমাদের শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের কথা মনে করিয়ে দেয়৷‌ তবে গল্পটি পড়লে ছোটরা খুব মজা পাবে৷‌

‘পেয়ারা’ গল্পটিতে চোরের ভয়ে পেয়ারা-প্রিয় হাবু নস্করের আর ডাঁসা পেয়ারা খাওয়ার সাধ পূরণ হল না৷‌ এ বিষয়টিকেই বর্ণনার চাতুর্যে গল্পকার অনেক দূর এগিয়ে নিয়ে গেছেন৷‌ এটি একটি সুখপাঠ্য গল্প৷‌

সব মিলিয়ে বইটি শিশুদের কাছে খুব ভাল লাগবে বলে আমার বিশ্বাস৷‌ শিশুদের মনোজগতের খবর রাখাটা শক্ত ব্যাপার৷‌ সমাজের হিত এবং শিশুদের আনন্দ বর্ধন এ দুটো কাজ একসঙ্গে করে দেখিয়েছেন সঞ্জয় পুরকায়স্হ মহোদয়৷‌ তাঁর প্রচেষ্টাকে সাধুবাদ জানাই৷‌





kolkata || bangla || bharat || khela || Tripura || Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited