Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ১৩ ভাদ্র ১৪২১ শনিবার ৩০ আগস্ট ২০১৪
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  সম্পাদকীয়  উত্তর সম্পাদকীয়  খেলা  সংস্কৃতি  ঘরোয়া  পর্দা  আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
বি জে পি-কে রুখতে দরকার বামেদের সঙ্গে জোট: মমতা ।। মুখ্যমন্ত্রী: বাংলার প্রকল্পই দিল্লি নাম বদলে চালাচ্ছে--রিনা ভট্টাচার্য ।। সুদীপ্তর সুদীপার খোঁজে সি বি আই--সব্যসাচী সরকার, অগ্নি পান্ডে ।। দরকারে হিমঘরের আলু বের করে বিক্রি ।। নগ্ন ছবি তুলে ব্ল্যাকমেল--নির্যাতিতা ছাত্রীকে নিয়ে বিশ্বভারতী ছাড়লেন বাবা ।। অর্থতত্ত্বের মালিককে কলকাতায় এনে সোনা-ব্যবসায়ীদের জেরা --বরেন্দ্রকৃষ্ণ ধল ।। চলছে চূড়াম্ত প্রস্তুতি, ১ সেপ্টেম্বরের মহামিছিলের অবয়ব আরও বাড়বে! ।। পুঁজির খোঁজে শিল্পপতিদের নিয়ে আজ শুরু মোদির জাপান সফর ।। ঋতব্রতর নেতৃত্বে সুনিয়ায় বাম ছাত্র-যুব প্রতিনিধিরা ।। বসিরহাট দক্ষিণে তৃণমূল হারলে পুরবোর্ড থেকে সরে যাবে: মুকুল ।। সাইনার বিদায়ের দিনে উজ্জ্বল সিন্ধু ।। হকার পুনর্বাসন রিপোর্ট জমা মহানাগরিককে
আজকাল-ত্রিপুরা

ডি ওয়াই এফের প্রথম শহিদ স্মারক বক্তৃতা সভায় উপচে-পড়া ভিড়

কাজ না করে মজুরি দাবি বিরোধীদের অভিযোগ, পাল্টা অভিযোগে উত্তপ্ত ধনপুর

রাজ্যে পর্যটকদের সংখ্যা প্রতি বছর বাড়ছে: পর্যটনমন্ত্রী

রেগায় সঙ্কোচন

বৈধ পাসপোর্ট থাকা সত্ত্বেও বাংলাদেশে বি জি বি-র নির্যাতনের শিকার এক ভারতীয়, অভিযোগ দায়ের

বি এস এফের তল্লাশি উত্তর শ্রীরামপুর সীমাম্তে, গণরোষ ঠেকাতে শূন্যে গুলি

দ্বিতীয় ডিভিশন লিগ ফুটবল

নীরমহল পর্যটন উৎসব ১-৩ সেপ্টেম্বর

১১ জনের ছাড়পত্রের কাগজ জমা দিল

ডি ওয়াই এফের প্রথম শহিদ স্মারক বক্তৃতা সভায় উপচে-পড়া ভিড়

কেন্দ্রের নতুন সরকারের সৃষ্টি জটিল পরিস্হিতি মোকাবিলায় বৃহত্তর ঐক্যের ডাক মুখ্যমন্ত্রীর

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share

আজকালের প্রতিবেদন: কেন্দ্রে বি জে পি নেতৃত্বাধীন নতুন সরকার প্রতিষ্ঠার পর দেশে শ্রমজীবী, গরিব, বেকার, কৃষকদের ওপর আক্রমণ আরও তীব্র হয়েছে৷‌ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি হুমকির মুখে৷‌ কঠিন এই পরিস্হিতিতে বৃহত্তর ঐক্য গড়ার ডাক দিলেন সি পি এম পলিটব্যুরো সদস্য মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার৷‌ এ কাজে যুব কর্মীদের বিরাট ভূমিকার কথাও স্মরণ করান তিনি৷‌ শুক্রবার বাম যুব সংগঠন ডি ওয়াই এফের উদ্যোগে আগরতলার রবীন্দ্র শতবার্ষিকী ভবনে আয়োজিত হয় শহিদ স্মারক বক্তৃতা৷‌ রাজ্যে বাম গণতান্ত্রিক আন্দোলনে যাঁরা নিহত হয়েছেন, আত্মত্যাগ করেছেন তাঁদের স্মরণেই ডি ওয়াই এফ আই এই স্মারক বক্তৃতার আয়োজন করেছে৷‌ অভূতপূর্ব, এই প্রথম এই ধরনের আয়োজন৷‌ ত্রিপুরায় বামফ্রন্ট সরকার প্রতিষ্ঠা শুধু নয়, রাজ্যে শাম্তি-সম্প্রীতি, ঐক্য ও উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখতে বহু চক্রাম্ত, বহু ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করতে হয়েছে৷‌ এই সংগ্রামে বহু আত্মত্যাগ, তাঁদেরই স্মরণ করল সভা৷‌ ত্রিপুরার উন্নয়নের পেছনে তাঁদেরও অবদান, সভা এদিন তাঁদেরও স্মরণ করল৷‌ কিন্তু ষড়যন্ত্র থেমে নেই৷‌ সারা দেশেই ঐক্য সম্প্রীতি রক্ষা কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে৷‌ চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় মজবুত ঐক্য চাই৷‌ মুখ্যমন্ত্রী এই ঐক্যের ওপরই জোর দিলেন৷‌ ঐক্য রক্ষায় ত্রিপুরার দায়িত্ব যে বেশি, তা-ই বোঝালেন মুখ্যমন্ত্রী৷‌ বক্তৃতা সভায় ডি ওয়াই এফ রাজ্য সভাপতি পঙ্কজ ঘোষ বলেন, এখন থেকে প্রতি বছর ডি ওয়াই এফ এই স্মারক বক্তৃতা সভা করবে৷‌ সম্পাদক অমল চক্রবর্তী বলেন, রাজ্যের এই ইতিহাস নতুন প্রজন্মের কাছে নিয়ে যেতেই এই ধরনের বক্তৃতা সভার আয়োজন৷‌ মুখ্যমন্ত্রীও বলেন, তরুণ প্রজন্ম জানুক এ-সব ইতিহাসের কথা৷‌ কত ত্যাগ-তিতিক্ষার মধ্য দিয়ে রাজ্যে বামফ্রন্ট সরকার৷‌ রাজ্যে এখন যে ঐক্য সমৃদ্ধি ও উন্নয়ন, তার মূলেই হল বামফ্রন্ট সরকার৷‌ উন্নয়ন মানেই বামফ্রন্ট সরকার, বামফ্রন্ট সরকার মানেই উন্নয়ন৷‌ স্মারক বক্তৃতায় মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ধারাবাহিক গণসংগ্রাম, শ্রেণী সংগ্রাম বামফ্রন্ট সরকারের ভিত্তি৷‌ এই সংগ্রামে যাঁরা শহিদ হয়েছেন, তাঁদের আত্মত্যাগেই আজকের উন্নত ত্রিপুরার ভিত্তিভূমি৷‌ এ বিষয়ে ডি ওয়াই এফ আই যে স্মারক বক্তৃতার আয়োজন করেছে তা সময়োপযোগী৷‌ মুখ্যমন্ত্রী বলেন, এক সময় ত্রিপুরা সম্বন্ধে দেশবাসীর ধারণা ছিল অনুন্নত, অনগ্রসর, সন্ত্রাসদীর্ণ একটি রাজ্য৷‌ ত্রিপুরা মানেই সন্ত্রাসবাদ, এমনটা মনে করতেন৷‌ আজ তার পরিবর্তন হয়েছে৷‌ ত্রিপুরা এখন দেশে বহু ক্ষেত্রেই প্রথম সারির একটি রাজ্য৷‌ মাথাপিছু আয়, পানীয় জল সরবরাহ, বিদ্যুৎ লাইন সম্প্রসারণ, শিক্ষা, সাক্ষরতার হার– সব ক্ষেত্রেই ত্রিপুরা দেশের উল্লেখযোগ্য সাফল্য অর্জনকারী একটি রাজ্য৷‌ সবার জন্য গৃহ, ক্ষুধামুক্ত একটি আদর্শ রাজ্য হিসেবে ত্রিপুরাকে গড়ে তোলাই এখন লক্ষ্য৷‌ যে রাজ্যের প্রতিটি মানুষ নিজের অধিকার, নিজের স্বাভিমান নিয়ে বাঁচবেন, এটাই তো লক্ষ্য৷‌ সেই লক্ষ্য অর্জনে অতীতে যেমন লড়াই সংগ্রাম ছিল, আগামী দিনও লড়াই সংগ্রামের জন্য আমাদের প্রস্তুত থাকতে হবে৷‌ কঠিন সময়৷‌ কেন্দ্রে নতুন সরকার আসার পর পরিস্হিতি আরও জটিল হয়েছে৷‌ যদিও কংগ্রেস এবং বি জে পি একই মুদ্রার দুই পিঠ৷‌ কিন্তু কেন্দ্রের এই সরকারের পেছনে যারা, সেই আর এস এসের কেউ দেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের সঙ্গে জড়িত ছিলেন না৷‌ ভারত একটি স্বাধীন সার্বভৌম ধর্মনিরপেক্ষ গণতান্ত্রিক দেশ৷‌ কিন্তু আর এস এস আমাদের দেশকে একটি হিন্দু রাষ্ট্র গড়তে চাইছে৷‌ হিন্দুস্তান বলতে বলছে৷‌ তীব্র ভাষায় এর সমালোচনা করেন মুখমন্ত্রী৷‌ মুখ্যমন্ত্রী বলেন, দেশের প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম তৈরি-সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিদেশি বিনিয়োগ (এফ ডি আই) ডেকে আনছে কেন্দ্রের নতুন সরকার৷‌ নতুন শ্রমনীতি করতে চাইছে৷‌ এম জি এন রেগা সব ব্লকে দেওয়া যাবে না বলে সিদ্ধাম্ত৷‌ ত্রিপুরায় ৫৮টি ব্লকের মধ্যে নাকি ১৫টি ব্লকে রেগা চালু রাখা যাবে৷‌ এই ধরনের সিদ্ধাম্ত দেশের গরিব শ্রমজীবী, কৃষক, বেকার, সাধারণ মানুষের স্বার্থের পরিপম্হী৷‌ কেন্দ্রের এই সরকার যে-সব সিদ্ধাম্ত নিয়েছে এখন পর্যম্ত, তার সবই ভূস্বামী, বিদেশি পুঁজিপতিদের স্বার্থে৷‌ দেশবাসী এখন বুঝতে পারছে৷‌ বিহারে সম্প্রতি যে বিধানসভার ১০ আসনে উপনির্বাচন হয়ে গেল তাতে ফল ভাল করতে পারেনি বি জে পি৷‌ মোদি সরকার আসার পর দেশের সাম্প্রদায়িক পরিস্হিতি ঘোরালো হয়েছে৷‌ সংখ্যালঘুদের ওপর আক্রমণ বাড়ছে৷‌ এর মধ্যেই দেশে অম্তত তিন ডজন সাম্প্রদায়িক দাঙ্গাহাঙ্গামা হয়ে গেছে৷‌ মুখ্যমন্ত্রী বলেন, কঠিন ও জটিল পরিস্হিতি৷‌ এর মোকাবিলা করেই আমাদের এগিয়ে যেতে হবে৷‌ আমরা বৃহত্তর ঐক্য গড়ে তোলার আহ্বান রেখেছি৷‌ এ কাজে যুব শক্তিকেই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে হবে, বলেন মুখ্যমন্ত্রী৷‌ আলোচনার শুরুতে মুখ্যমন্ত্রীর হাতে স্মারক তুলে দেওয়া হয়৷‌ বক্তৃতা সভায় ছিলেন এস এফ আই রাজ্য সভানেত্রী নীলাঞ্জনা রায়, সম্পাদক নবারুণ দেব৷‌ স্মারক বক্তৃতা উপলক্ষে রবীন্দ্র ভবনের ১ নং হলের ওপর-নিচ সব আসন তো পূর্ণ ছিলই, অনেকে মেঝেতে বসে-দাঁড়িয়ে বক্তব্য শোনেন৷‌ অনুষ্ঠানের শুরুতে অন্য মাত্রায় তুলে দেন শিল্পী সমীর ধর৷‌ শিল্পী শিবপ্রসাদ ধরও সঙ্গীত পরিবেশন করেন৷‌ শহিদ স্মারক বক্তৃতা উপলক্ষে রবীন্দ্র ভবনের বারান্দায় শহিদদের নিয়ে এবং ত্রিপুরার উন্নয়ন নিয়ে একটি প্রদর্শনীরও আয়োজন করা হয়৷‌ রাজ্যের বিভিন্ন অংশ থেকে ডি ওয়াই এফ প্রতিনিধিরা এই বক্তৃতা সভায় অংশ নেন৷‌


kolkata || bangla || bharat || editorial || post editorial || khela || sangskriti ||
ghoroa || tv/cinema || Tripura || Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited