Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ৮ কার্তিক ১৪২১ রবিবার ২6 অক্টোবার ২০১৪
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  বিদেশ  সম্পাদকীয়  উত্তর সম্পাদকীয়  খেলা  রবিবাসর   আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
তৃণমূলে হানাহানি, ভাঙড়ে হত ২--গৌতম চক্রবর্তী ।। পাড়ুই-কাণ্ড: থমথমে চৌমণ্ডলপুর গ্রাম--অনুপম বন্দ্যোপাধ্যায়, চন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়, সিউড়ি ।। টিকিট পাচ্ছেন না রাজীব, কাউ ও শৈলেন--কলকাতা পুরসভায় তৃণমূল চায় ১৩০ ।। কাশ্মীর, ঝাড়খণ্ডে পাঁচ দফায় ভোট --শুরু ২৫ নভেম্বর ।। ভাঙড়ে পুলিস ঢুকবে? বোম মারবে যে: বিমান ।। বিসর্জনে বোমায় মৃত্যু শিক্ষকের ।। নদীর জল থেকে উদ্ধার তৃণমূল নেতার দেহ, বসিরহাটে উত্তেজনা ।। দত্তপুকুরে তৃণমূল-বি জে পি সঙঘর্ষ, আহত ৬, নামল র্যাফ ।। সোনিয়া-রাহুলকে চিদম্বরমের প্রকাশ্য-পরামর্শে দল বিরক্ত ।। ভাগবতের কাছে গাডকারি, মহারাষ্ট্রে শপথ শনি-রবিবার? ।। ভাঙড়ের ঘটনায় জেলা রিপোর্ট চাইল তৃণমূল ।। মন্ত্রীমশাই, হেলমেট কই?
ভারত

দিল্লিতে সন্দেহভাজন বিস্ফোরক পাচারকারী আটক

মুম্বইয়ে মোদি, দেখা হয়নি উদ্ধবের সঙ্গে

কাশ্মীর, ঝাড়খণ্ডে পাঁচ দফায় ভোট

সোনিয়া-রাহুলকে চিদম্বরমের প্রকাশ্য-পরামর্শে দল বিরক্ত

রাজ্য পুলিস নাকি সাহায্য করছে না, ক্ষোভ এন আই এ-র

২০০ কেজি সোনা গেল কোথায়?

মন্ত্রীমশাই, হেলমেট কই?

খুচরো খবর

দিল্লিতে সন্দেহভাজন বিস্ফোরক পাচারকারী আটক

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share

সোমনাথ মণ্ডল

ইম্প্রোভাইসড এ‘প্লোসিভ ডিভাইস (আই ই ডি) পাচারের রুট হিসেবে জলপথকেই বেছে নিয়েছিল জামাত-উল-মুজাহিদিন বাংলাদেশ (জে এম বি)৷‌ তাও আবার মহিলাদের দিয়ে৷‌ দেওয়া হত বিশেষ প্রশিক্ষণও৷‌ ভারত ও বাংলাদেশ লাগোয়া নদী এবং উপকূল এলাকা দিয়ে পাচার করা হত বিস্ফোরক আই ই ডি৷‌ বর্ধমান বিস্ফোরণ-কাণ্ডের তদম্তের অগ্রগতির পর ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি (এন আই এ)-র হাতে এ রকমই তথ্য উঠে এসেছে৷‌ শনিবার বর্ধমান বিস্ফোরণ-কাণ্ডে যুক্ত থাকার সন্দেহে দিল্লিতে এক ব্যক্তিকে আটক করেছে এন আই এ৷‌ বিস্ফোরক পাচারের সঙ্গে যুক্ত রয়েছে বলে সন্দেহ৷‌ জানা গেছে, আটক ওই ব্যক্তির নাম আমজাদ আলি৷‌ কলকাতা পুলিসের স্পেশাল টাস্ক ফোর্সের (এস টি এফ) দেওয়া সুত্রের ভিত্তিতে ওই ব্যক্তিকে এন আই এ আটক করেছে বলে খবর৷‌ এর পাশাপাশি রাজ্য পুলিসের ওপর নির্ভরশীলতা কমিয়ে নিজেদের পরিকাঠামোর ওপরই তদম্ত এগিয়ে নিয়ে যেতে চাইছেন এন আই এ-র অফিসারেরা৷‌ কারণ, বিস্ফোরণের পর বেশ কিছুদিন হয়ে গেলেও, সেভাবে কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি এন আই এ৷‌ রাজ্য গোয়েন্দাদের সাহায্য নিয়ে কাজ করেও বিশেষ সুবিধা হয়নি৷‌ বেনামে জমি এবং কয়েকশো অনুমোদনহীন মাদ্রাসার নাম ছাড়া সেভাবে কোনও তথ্য হাতে আসেনি৷‌ জেলা পুলিসের ঠিলেঠালা মনোভাবের জন্য অভিযুক্তরা রাজ্য ছেড়ে পালাতে পেরেছে৷‌ তা নিয়ে এর আগে উষ্মা প্রকাশ করা হয়েছিল৷‌ এন আই এ-র অফিসারেরা তদম্ত নিজেদের হাতে রাখলেও বিভিন্ন ক্ষেত্রে জেলা পুলিসের সাহায্য নিতেই হচ্ছে৷‌ কিন্তু এতে আদতে সময় নষ্ট ছাড়া আর কিছুই নয় বলে মনে করছেন তাঁরা৷‌ প্রয়োজনে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দাদের একটি ১০-১২ জনের দল রাজ্যে আসতে পারে বলা জানা যাচ্ছে৷‌ তাঁরা এন আই এ-কে তদম্তে সহায়তা করবে৷‌ এছাড়া কোথাও তল্লাশি চালাতে হলে কেন্দ্রীয় বাহিনীর সাহায্য নেওয়া হবে৷‌ এ বিষয়ে এবং জলপথে আই ই ডি পাচারের যে তথ্য পাওয়া গেছে, তা নিয়ে শুক্রবার এন আই এ-র ডি জি শরদ কুমারের সঙ্গে বৈঠকও হয়েছে৷‌ তাঁকে এ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য দেওয়া হয়েছে বলে সূত্রের খবর৷‌ রাজ্যের উপকূল সীমানায় আরও নজরদারি বাড়াতে কী কী ব্যবস্হা নেওয়া দরকার? কোথায় কোথায় নজরদারি অভাব রয়েছে, সে বিষয়ে একটি রূপরেখা তৈরি করা হয়৷‌ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকে রাজ্যের পরিস্হিতি নিয়ে রিপোর্ট দেওয়া হয়েছে এন আই এ সূত্রে জানা গেছে৷‌ সেই রিপোর্ট নিরাপত্তার কারণে উপকূল নিরাপত্তা বাহিনী বাড়ানোর কথা বলা হয়েছে৷‌ দুই দেশের সীমাম্তবর্তী নদীতে বি এস এফ টলদারি আরও জোরদার করার প্রয়োজন রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে৷‌ ডি জি-র সঙ্গে বৈঠকের পর রাজ্যের ৬ জেলা জঙ্গিঘাঁটিতে পরিণত হয়েছে বলে শুক্রবার রাতেই এন আই এ বিবৃতি জারি করে৷‌ আই ই ডি তৈরি করতে সাধারণত মহিলাদের রিক্রুটের করা হত৷‌ কিছু কিছু অনুমোদনহীন মাদ্রসার এক্ষেত্রে যথেষ্ট ভূমিকাও রয়েছে৷‌ বিস্ফোরক তৈরি কার্যত ‘শিল্পে’র পর্যায়ে নিয়ে গিয়েছিল জামাত-উল-মুজাহিদিন৷‌ ওই মহিলাদের বিশেষভাবে প্রশিক্ষণ দেওয়ার পরে, তাদের বিস্ফোরক তৈরির দায়িত্ব দেওয়া হত৷‌ এক বা দু’জন নয়, রাজ্যে বেশ কয়েকজন মহিলাকে এই কাজে লাগানো হয়৷‌ তারা প্রতিবেশী দেশের নাগরিক কিনা, সেবিষয়ে খোঁজখবর চলছে৷‌ জানা গেছে, বিস্ফোরক তৈরির পর জলপথে পাচারের জন্য আলাদাভাবে প্রশিক্ষণও দেওয়া হয়েছিল জামাত-উল-মুজাহিদিনের সদস্যদের৷‌ এ রাজ্যের বাসিন্দা কয়েকজন ‘এজেন্ট’ তাদের সাহায্য করত বলে এন আই এ-র কাছে খবর৷‌ এরা প্রধানত জাল নোট পাচারচক্রের সঙ্গে যুক্ত৷‌ তাদের বেশি টাকার প্রলোভন দেখিয়ে বিস্ফোরক পাচরে কাজে লাগানো হত৷‌ রাজ্যের নিরাপত্তার বিষয়টি খতিয়ে দেখতে রাজ্যে আসছেন জাতীয় নিরাপত্তা নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল এবং এন এস জি প্রধান জে এন চৌধুরি৷‌ সীমাম্তে নিরাপত্তার বিষয়ে নিয়ে রাজ্যের সঙ্গে তারা বৈঠক করবেন বলে নবান্ন সূত্রের খবর৷‌





kolkata || bangla || bharat || bidesh || editorial || post editorial || khela ||
sunday || Tripura || Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited