Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ৩ ভাদ্র ১৪২১ বুধবার ২০ আগস্ট ২০১৪
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  বিদেশ  সম্পাদকীয়  উত্তর সম্পাদকীয়  খেলা  আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বিনিয়োগ নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সফল বৈঠক ।। শুনিয়া-কাণ্ডে গ্রেপ্তার ৩ তৃণমূলি--ধর্ষণ, খুনের অভিযোগ ওড়াল পুলিস ।। সারদার সমস্ত সম্পত্তি লুটপাট হচ্ছে: সুদীপ্ত ।। না জানিয়ে পান্ধই-চার্জশিট! ক্ষুব্ধ কোর্টের তলব ডি জি-কে ।। দিল্লি কঠোর, তাও পাক দূতের কাছে গিলানি, বাইরে বিক্ষোভ ।। কাল উপনির্বাচন, সমীক্ষা বলছে বিহারে সমানে সমানে দুই শিবির ।। যোজনা কমিশনের বিকল্প নিয়ে জনমত চাইছেন মোদি ।। বিরোধী নেতার পদ: কংগ্রেসের আবেদন খারিজ করলেন সুমিত্রা ।। ইন্দোরের কারখানা বেচে হিন্দমোটর পুনরুজ্জীবন? ।। পায়ে বল নিয়েই ভোটের ময়দানে নেমে পড়লেন দীপেন্দু ।। ৩০ আগস্ট পর্যম্ত বাস ধর্মঘট নয় ।। চৌরঙ্গি: বামপ্রার্থী আনোয়ারা?
ভারত

দিল্লি কঠোর, তাও পাক দূতের কাছে গিলানি, বাইরে বিক্ষোভ

‘সদ‍্ভাবনা দিবস’ পালন করছে না মোদির সরকার

মুলায়মের সঙ্গে বৈঠক, স পা-য় ফিরছেন অমর?

যোজনা কমিশনের বিকল্প নিয়ে জনমত চাইছেন মোদি

কাল উপনির্বাচন, সমীক্ষা বলছে বিহারে সমানে সমানে দুই শিবির

বিরোধী নেতার পদ: কংগ্রেসের আবেদন খারিজ করলেন সুমিত্রা

কাঁথিতে সি পি এম নেতার স্ত্রী-কে গণধর্ষণের পর হত্যা

খুচরো খবর

দিল্লি কঠোর, তাও পাক দূতের কাছে গিলানি, বাইরে বিক্ষোভ

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share

আজকালের প্রতিবেদন: দিল্লি, ১৯ আগস্ট– জল আরও ঘোলা হয়ে উঠল৷‌ কাশ্মীরের কট্টরপম্হী বিচ্ছিন্নতাবাদী হুরিয়ত নেতা সাবির শাহের সঙ্গে দিল্লিতে পাক হাইকমিশনার আবদুল বাসিত বৈঠক করায় কঠোর মনোভাব দেখিয়ে মোদি সরকার দু’দেশের বিদেশ সচিবদের ২৫ আগস্টের বৈঠক বাতিল করে দিয়েছে৷‌ এর পরও আজ পাক রাষ্ট্রদূত বাসিত বৈঠক করলেন আরেক বিচ্ছিন্নতাবাদী হুরিয়ত নেতা সৈয়দ আলি শাহ গিলানির সঙ্গে৷‌ দিল্লির পাকিস্তানি দূতাবাস থেকে অবশ্য আগেই বলা হয়েছিল তারা তিন দিন ধরে হুরিয়ত নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করবে৷‌ আজ যখন দিল্লির পাক দূতাবাস ভবনের ভেতর সৈয়দ গিলানির সঙ্গে পাক হাইকমিশনার বাসিতের বৈঠক চলছিল, বাইরে তখন একদল লোক তুমুল বিক্ষোভ দেখান৷‌ তাঁরা পাক রাষ্ট্রদূত আবদুল বাসিতকে এদেশ থেকে বহিষ্কারের দাবি জানান৷‌ পুলিস তাঁদের হটাতে গেলে হাতাহাতিও শুরু হয়ে যায়৷‌ পুলিস লাঠিচার্জ করে তাঁদের হটিয়ে দেয়৷‌ পাক হাইকমিশনারের সঙ্গে বৈঠক করতে আজ সকালে শ্রীনগর থেকে দিল্লি পৌঁছেই বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের হুরিয়তের বর্ষীয়ান কট্টরপম্হী নেতা সৈয়দ আলি শাহ গিলানি বলেন, কাশ্মীর সমস্যা ভারতের অভ্যম্তরীণ সমস্যা নয়, কাশ্মীর সমস্যা আম্তর্জাতিক সমস্যা৷‌ গিলানি বলেন, যাঁরা বলেন কাশ্মীর সমস্যা ভারতের অভ্যম্তরীণ সমস্যা তাঁদের অভিমত বাস্তবতাবিরোধী৷‌ গতকাল পাক হাইকমিশনার বাসিত হুরিয়ত নেতা সাবির আহমেদ শাহের সঙ্গে বৈঠক করার পরই ২৫ আগস্টের বিদেশ সচিব পর্যায়ের বৈঠক বাতিল করে দেয় ভারত৷‌ ভারতের বিদেশ সচিব সুজাতা সিং সে-কথা পাক হাইকমিশনার আবদুল বাসিতকে জানিয়ে কড়া ভাষায় বলে দেন, পাক হাইকমিশনারের সঙ্গে বিচ্ছিন্নতাবাদী হুরিয়ত নেতাদের বৈঠক দু’দেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে শুভ নয়৷‌ বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র সৈয়দ আকবরউদ্দিনও স্পষ্ট ভাষায় বলে দেন, ভারতের অভ্যম্তরীণ বিষয়ে পাকিস্তানের এভাবে নাক গলানো ভারত বরদাস্ত করবে না৷‌ এ-সব কথা পাকিস্তানকে কড়া ভাষাতেই বলে মোদি সরকার কঠোর নীতি নিয়ে ২৫ তারিখের বিদেশ সচিব পর্যায়ের বৈঠক বাতিল করে দিয়েছে৷‌ পাকিস্তান সরকার এ নিয়ে এখনও প্রতিক্রিয়া না জানালেও পাক সংবাদপত্রগুলি এক বাক্যে বলেছে, ভারতের এই সিদ্ধাম্তে ভারত-পাক শাম্তি প্রক্রিয়া ব্যাহত হবে৷‌ দু’দেশের সম্পর্ক উন্নয়নে বিঘ্ন ঘটবে৷‌ কিন্তু কথা হচ্ছে, কী করে সাবির শাহ, সৈয়দ গিলানির মতো কট্টর বিচ্ছিন্নতাবাদী কাশ্মীরি হুরিয়ত নেতারা দিল্লিতে পাক রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বৈঠক করছেন? গণতন্ত্রের দেশ, যে কেউ পাক দূতের সঙ্গে দেখা করতে পারেন, পাক দূতাবাসও এদেশের নাগরিকদের আমন্ত্রণ জানাতে পারে৷‌ কংগ্রেস, বামপম্হী দলগুলি-সহ বিরোধীরা এই বিষয়টি তুলেই মোদি সরকারের এই কঠোর সিদ্ধাম্তের সমালোচনা করেছে৷‌ কংগ্রেস নেতা মণীশ তিওয়ারি বলেছেন, মোদি সরকার কঠোর ভাবমূর্তি দেখাতে গিয়ে পাকস্তান নীতির ব্যাপারে একেবারে কোণঠাসা জায়গায় এসে দাঁড়াল৷‌ খোঁচা দিয়ে মণীশ বলেছেন, পাকিস্তান নিয়ে ভাবনাচিম্তা বাদ দিয়ে এ একেবারে নাক ডেকে ঘুমোনো৷‌ মণীশ বলেছেন, দু’দেশের বৈঠকের আগে বরাবর পাকিস্তানের দূতাবাস কাশ্মীরের নেতাদের ডেকে আলোচনা করে নেয়৷‌ এটা ওদের রীতি৷‌ হঠাৎ করে কড়া সিদ্ধাম্ত নিয়ে এন ডি এ সরকার পাক নীতিতে কোণঠাসা জায়গায় চলে গেল৷‌ চলতি সময়ে যখন জন্মু-কাশ্মীরে বারবার যুদ্ধবিরতি লঙঘন করে গুলিগোলা চালাচ্ছে পাক সেনারা, তখন পাকিস্তানের সঙ্গে বৈঠক করে শাম্তি প্রয়াস নেওয়া, দু’দেশের সম্পর্ক উন্নয়ন তো দরকার ছিল৷‌ দিল্লিতে সি পি এম পলিটব্যুরো সদস্য সীতারাম ইয়েচুরিও বলেছেন, পাক রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে হুরিয়ত নেতাদের বৈঠক তো সরকারের সম্মতি না থাকলে হতে পারে না৷‌ তিনি বলেছেন, পাকিস্তানের নেতারা এদেশে এলে বরাবরই হুরিয়ত-সহ কাশ্মীরের নেতারা তাঁদের সঙ্গে দেখা করে থাকেন৷‌ সরকার তো এতে বাধা দেয়নি৷‌ তাহলে কেন ভারত-পাক বিদেশ সচিব বৈঠক বাতিল হল? সি পি এমের জম্মু-কাশ্মীর রাজ্য সম্পাদক মহম্মদ ইউসুফও বলেছেন, মোদি সরকারের এই সিদ্ধাম্তে দু’দেশের শাম্তি প্রক্রিয়া ব্যাহত হল৷‌ প্রধানমন্ত্রী পদে শপথ গ্রহণের দিন সার্ক রাষ্ট্রপ্রধানদের মধ্যে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফকে আমন্ত্রণ করে নরেন্দ্র মোদি দু’দেশের সম্পর্ক উন্নয়নে তাঁর সরকার সচেষ্ট থাকবে, এমনই ইঙ্গিত দিয়েছিলেন৷‌ জানা গেছে, নওয়াজের ওই সফরের সময় তিনি যেন কাশ্মীরি হুরিয়ত নেতাদের সঙ্গে দেখা না করেন, দিল্লি সে অনুরোধ জানিয়েছিল৷‌ নওয়াজ তা শুনেছিলেন৷‌ আড়াই মাসে জল আরও গড়িয়েছে৷‌ সম্প্রতি জম্মু-কাশ্মীর সফরে গিয়ে নরেন্দ্র মোদি ভারতীয় সেনাবাহিনীর শক্তির কথা তুলে অভিযোগ করেছেন, সামনাসামনি যুদ্ধে পারবে না বলেই পাকিস্তান জঙ্গিদের মদত দিয়ে ছায়াযুদ্ধ চালাচ্ছে৷‌ গত ১৪ আগস্ট থেকে এ পর্যম্ত জম্মু-কাশ্মীরে যুদ্ধবিরতি লঙঘন করে ১২ বার গুলিগোলা চালানোয় দু’দিন আগে প্রতিরক্ষামন্ত্রী অরুণ জেটলিও প্রচ্ছন্ন হুমকি দিয়ে বলেছেন, পাক সেনারা এভাবে যুদ্ধবিরতি লঙঘন করলে ভারতীয় সেনারাও উপযুক্ত জবাব দিতে প্রস্তুত৷‌ এই মুহূর্তে পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ স্বস্তিতে নেই৷‌ পাকিস্তানে তাঁর বিরুদ্ধে নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ তুলে ইমরান খানের তেহরিক-ই-পাকিস্তান সমেত বিরোধী দল ব্যাপক আন্দোলন চালাচ্ছে৷‌ এরকম পরিস্হিতি জাগলে বরাবরই পাকিস্তান সরকার জনসাধারণের মন অন্য দিকে ঘোরাতে কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে সেনাবাহিনীর ওপরই নির্ভর করে৷‌ এই পরিস্হিতিতে বিদেশ সচিব বৈঠক বাতিল করে ভারত আরও জটিলতা বাড়াল৷‌


kolkata || bangla || bharat || bidesh || editorial || post editorial || khela ||
Tripura || Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited