Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ৫ কার্তিক ১৪২১ বৃহস্পতিবার ২৩ অক্টোবার ২০১৪
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  সম্পাদকীয়  খেলা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
সারদা: সেন কমিশনের ইতি ।। সারদা-তদম্তে প্রথম চার্জশিট দিল সি বি আই ।। সারদার সম্পত্তির খোঁজে এবার রাজ্যের কাছে নথি চায় ই ডি ।। ভোট কোথায় পেলেন? বি জে পি-কে সি পি এম ।। সূর্যকাম্ত: মেহনতি মানুষ জাগছে বলেই বিভাজনের রাজনীতি বি জে পি, তৃণমূলের ।। অধীর: সাম্প্রদায়িক রাজনীতিকে হাতিয়ার করে বাংলা ভাগের চেষ্টা ।। উপাচার্যের মতে, প্রায় স্বাভাবিক যাদবপুর ।। বর্ধমান-কাণ্ডে দুই মহিলার জেল, হাসেমের পুলিস হেফাজত ।। নেই পুলিসের কড়াকড়ি, নুঙ্গিতে দেদার বিক্রি হচ্ছে শব্দবাজি ।। জোটসঙ্গী হতে বি জে পি-র দরবারে শিবসেনা নেতারা ।। রাত বাড়তেই ফাটল শব্দবাজি ।। দেশের নিরাপত্তার সমান দায় কেন্দ্র, রাজ্যের: প্রভাস
ভারত

বেছে নাম বলে ব্ল্যাকমেল নাকি?

জোটসঙ্গী হতে বি জে পি-র দরবারে শিবসেনা নেতারা

ভোট কোথায় পেলেন? বি জে পি-কে সি পি এম

তদম্তের মুখে রবার্ট ভদ্র

বেছে নাম বলে ব্ল্যাকমেল নাকি?

কালো টাকা নিয়ে জেটলিকে কং

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share

রাজীব চক্রবর্তী: দিল্লি, ২২ অক্টোবর– সুইস ব্যাঙ্কে মজুত কালো টাকার মালিকদের তালিকায় ইউ পি এ সরকারের একাধিক মন্ত্রী? সরাসরি উত্তর না দিয়ে মুচকি হেসে জল্পনা উস্কে দিলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি৷‌ বুধবার একটি সর্বভারতীয় টিভি চ্যানেলে বিদেশি ব্যাঙ্কে মজুত কালো টাকা প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রীকে প্রশ্ন করা হয়েছিল– সুইস ব্যাঙ্কের অ্যাকাউন্ট হোল্ডারদের তালিকায় ইউ পি এ সরকারের প্রাক্তন মন্ত্রীদের নাম আছে কি? জেটলি বলেছেন, আমি স্বীকারও করছি না, অস্বীকারও করছি না৷‌ শুধু হাসব৷‌ আইনগত বিশেষ কিছু কারণে এখনই কালো টাকার মালিকদের নাম প্রকাশ করা যাচ্ছে না৷‌ তবে, খুব শিগ‍্গিরই সুইস ব্যাঙ্কে যে সব ভারতীয়র অ্যাকাউন্ট আছে, তাঁদের নাম প্রকাশ্যে আসবে৷‌ কালো টাকা ইস্যুতে কয়েকদিন ধরেই বি জে পি ও কংগ্রেসের বাক‍্যুদ্ধ চলছে৷‌ বুধবার কংগ্রেস নেতা অজয় মাকেন ও অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলির বক্তব্য-পাল্টা বক্তব্যে আরও একবার সরগরম জাতীয় রাজনীতি৷‌ কংগ্রেসের দাবি, নির্দিষ্ট সময়ে কালো টাকা দেশে ফেরাতে ব্যর্থ হয়ে তা নিয়ে নোংরা রাজনীতি করছে বি জে পি৷‌ বি জে পি-র পাল্টা বক্তব্য, তালিকা সামনে আসার খবরেই এত বিচলিত কেন কংগ্রেস! ওই তালিকায় ইউ পি এ সরকারের কোনও মন্ত্রীর নাম থাকলে কংগ্রেস হাই কমান্ডকে তার দায় নিতে হবে৷‌ প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর সূত্রে খবর, সুইস ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ ভারতীয় অ্যাকাউন্ট হোল্ডারদের নামের তালিকা জানাতে রাজি হয়েছে৷‌ অন্যান্য সূত্র থেকে একটি তালিকা এসে পৌঁছেছে সরকারের হাতে৷‌ দু দিন আগেই মন্ত্রিসভার বৈঠকে কালো টাকা বিষয়ে আলোচনা হয়েছে৷‌ সমস্ত নাম খতিয়ে দেখে প্রাথমিকভাবে খুব শিগ‍্গিরই দেশের ১৩৬ জন ভারতীয়ের নাম প্রকাশ করবে সরকার৷‌ জানা গেছে, ওই তালিকায় দেশের কয়েকজন নামী শিল্পপতির পাশাপাশি প্রাক্তন মন্ত্রী ও রাজনৈতিক নেতার নামও রয়েছে৷‌ এদিন কংগ্রেস মুখপাত্র অজয় মাকেন বলেন, কংগ্রেসকে ব্ল্যাকমেল করে কোনও লাভ হবে না৷‌ কংগ্রেস কোনও একজন ব্যক্তির দল নয়৷‌ যথেষ্ট হয়েছে, আর তামাশা না করে অবিলম্বে কালো টাকার মালিকদের নাম প্রকাশ করুক সরকার৷‌ প্রত্যেকের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্হা নেওয়া হোক৷‌ তবে, ‘অর্ধসত্য’ নয়, পুরো সত্যই সামনে আসুক৷‌ মাত্র ১৩৬ জনের নামের তালিকা নয়, সমস্ত অ্যাকাউন্ট হোল্ডারের নামই প্রকাশ করুক সরকার৷‌ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে কংগ্রেসের বার্তা, অর্ধসত্য কখনই সত্য হিসেবে বিবেচিত হয় না৷‌ ফলে পুরো সত্যটাই সামনে আনা হোক৷‌ সব নাম প্রকাশ করা হোক৷‌ মাকেন এদিন লোকসভা নির্বাচনের প্রচারে নরেন্দ্র মোদি এবং রাজনাথ সিংয়ের প্রতিশ্রুতিগুলি স্মরণ করিয়ে দেন৷‌ মোদি বলেছিলেন, ‘বিদেশের ব্যাঙ্কে মজুত সব কালো টাকা ফিরিয়ে আনতে পারলে দেশের প্রত্যেক নাগরিক মাথাপিছু ১৫ লাখ টাকা করে পেতে পারেন৷‌’ রাজনাথ বলেছিলেন, ‘কেন্দ্রে ক্ষমতায় এলে ১০০ দিনের মধ্যে কালো টাকা ফিরিয়ে আনবে বি জে পি৷‌’ মাকেন বলেন, কালো টাকার মালিকদের নামের তালিকা নিয়ে জনতাকে বিভ্রাম্ত করছে সরকার৷‌ জনগণ নাম নিয়ে চিম্তিত নয়৷‌ তারা চায়, কালো টাকা দেশে ফেরত আসুক৷‌ সরকারের ১০০ দিন পার হয়ে ১৫০ দিন হতে চলেছে৷‌ অথচ এক টাকাও ফেরত আনতে পারেনি সরকার৷‌ সাধারণ মানুষ অপেক্ষা করে আছে, কবে তাদের অ্যাকাউন্টে ১৫ লাখ টাকা ঢুকবে৷‌ প্রসঙ্গত, কালো টাকা সম্পর্কিত মামলায় কয়েক দিন আগে সুপ্রিম কোর্টে কেন্দ্র সরকার জানায়, বিশেষ কিছু কারণে এখনই সুইস ব্যাঙ্কে মজুত কালো টাকা নিয়ে সমস্ত তথ্য জনসমক্ষে আনা সম্ভব নয়৷‌ ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট হোল্ডারদের নাম প্রকাশ করার ক্ষেত্রে ঠিক কী সমস্যা তা অবশ্য খোলসা করেনি সরকার৷‌ এর আগে ইউ পি এ সরকারও কালো টাকা নিয়ে এই একই নীতি নিয়েছিল৷‌ এদিকে, মোদি-সরকারের এই অবস্হানকে কটাক্ষ করে কংগ্রেস সরকারের কালো টাকা ফিরিয়ে আনার সদিচ্ছা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে৷‌ গতকালই অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি বলেন, খুব শিগ‍্গিরই সুইস ব্যাঙ্কে যাঁদের টাকা আছে তাঁদের নাম প্রকাশ করা হবে৷‌ সমস্ত নাম প্রকাশ করা হলে কিছু নাম নিয়ে অস্বস্তিতে পড়তে হবে কংগ্রেসকে৷‌ গতকালই জেটলির এই দাবি খণ্ডন করেছেন কংগ্রেস সাধারণ সম্পাদক দিগ্বিজয় সিং৷‌ উল্টে তিনি জেটলিকে ‘মিথ্যেবাদী’ আখ্যা দিয়েছেন৷‌ টুইট করে দিগ্বিজয় জানিয়েছেন, কবে আমাদের অ্যাকাউন্টে টাকা ঢুকবে অপেক্ষা করে আছি৷‌ ‘জনধন যোজনা’য় দেশবাসীর কাছে সেটা দীপাবলীর সবচেয়ে বড় উপহার হিসেবে কালো টাকা ফিরে আসবে, নাকি তার জন্য ২০১৯ পর্যম্ত অপেক্ষা করতে হবে? সি পি এম নেতা সীতারাম ইয়েচুরি বলেন, কালো টাকা ফেরানোর দাবি দীর্ঘদিনের৷‌ আর টালবাহানা না করে সরকারের উচিত এখনই তালিকা জনসমক্ষে তুলে ধরা৷‌ কিন্তু, বিদেশের ব্যাঙ্কে মজুত কালো টাকা ফেরাতে ইতিমধ্যেই সিট গঠন করেছে কেন্দ্র সরকার৷‌ সিট তদম্ত করছে৷‌





kolkata || bangla || bharat || editorial || khela || Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited