Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ৪ বৈশাখ ১৪২২ শনিবার ১৮ এপ্রিল ২০১৫
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  সম্পাদকীয়  উত্তর সম্পাদকীয়  খেলা  সংস্কৃতি  ঘরোয়া  পর্দা  আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
কলকাতায় ভোটের বোধন--সব্যসাচী সরকার, তারিক হাসান ও কাকলি মুখোপাধ্যায় ।। কংগ্রেসের সঙ্গে সুসম্পর্কের পথ খোলা রাখছে সি পি এম--দেবারুণ রায় ।। তৃণমূলের নেতারা খোশমেজাজে রয়েছেন--দীপঙ্কর নন্দী ।। পড়ে গিয়ে কপাল ফাটল বিমান বসুর--ভোলানাথ ঘড়ই ।। প্রতিবন্ধী স্কুলে ইট, জখম কাম্তি ।। কাশীপুরে তুলকালাম, অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা ।। গ্রেটার-মামলায় বেকসুর বংশীবদন-সহ ৪৩! ।। বোঝাপড়া, তাই কেন্দ্র বাহিনী পাঠায়নি: অধীর ।। পার্টিকে আকর্ষণীয় করার ডাক প্রভাত পটনায়েকের--গৌতম রায় ।। রাহুলকে সামনে রেখেই কৃষকদের লড়াইয়ে কং ।। শালিমার কাণ্ড ।। আজ গোপন ক্যামেরায় সি পি এমের নজরদারি
ভারত

কংগ্রেসের সঙ্গে সুসম্পর্কের পথ খোলা রাখছে সি পি এম

নারী নির্যাতন রোধে ‘পুরুষের আচরণ বিধি’র

তথ্য দিয়ে সমালোচকদের চুপ করিয়ে দিলেন অসীম

কেন্দ্রের চাপে?

১২১ বকেয়া রেলপ্রকল্পের দায় রাজ্যের ঘাড়েই চাপাতে চায় রেল

এবার বিদেশে

রাহুলকে সামনে রেখেই কৃষকদের লড়াইয়ে কং

পার্টিকে আকর্ষণীয় করার ডাক প্রভাত পটনায়েকের

মোদি শক্তিশালী , অস্হির মনমোহন

মোদির হয়ে সওয়াল টাটার

পড়ে গিয়ে কপাল ফাটল বিমান বসুর

মোদি-দর্শন

কার্পেটচারিণী

কংগ্রেসের সঙ্গে সুসম্পর্কের পথ খোলা রাখছে সি পি এম

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share

দেবারুণ রায়

বিশাখাপত্তনম, ১৭ এপ্রিল– কংগ্রেসের সঙ্গে যাওয়ার পথ খুলে রাখল সি পি এম৷‌ বলল, পরিস্হিতি সেরকম হলে এবং ইস্যু নিয়ে সহমত হওয়া গেলে কংগ্রেসের সঙ্গে সহযোগিতায় যাওয়া যেতে পারে৷‌ আজ এক নির্দিষ্ট প্রশ্নের উত্তরে এ কথা বলেন সি পি এম পলিটব্যুরো সদস্য সীতারাম ইয়েচুরি৷‌ তবে তিনি বলেন, সহযোগিতার সম্পর্ক স্হাপন মানেই আঁতাত নয়৷‌ কংগ্রেসের সঙ্গে কোনও অবস্হাতেই আঁতাত করা চলবে না৷‌ কংগ্রেসের সঙ্গে আমাদের পার্থক্য মৌলিক৷‌ সহযোগিতার প্রশ্নে আমরা নজর রাখব, পরিস্হিতি কেমনভাবে উন্মোচিত হচ্ছে৷‌ কংগ্রেসের সঙ্গে আঁতাতের বাধার কথা উল্লেখ করে বলেন, বি জে পি কেন্দ্রের সরকারে আসার জন্য কংগ্রেসই দায়ী৷‌ কংগ্রেসই কার্যত বি জে পি-কে ডেকে এনেছে৷‌ তা ছাড়া অর্থনৈতিক নীতিতে কংগ্রেস যে লাইন নিয়ে চলেছে, বি জে পি-র প্রধানমন্ত্রী মোদি সেই লাইনকেই আরও আক্রমণাত্মকভাবে অনুসরণ করছেন৷‌ সেজন্যই আমাদের প্রাথমিক কর্তব্য হল নিজেদের দল সি পি এমকেই শক্তিশালী করা৷‌ দ্বিতীয় কাজ হল বাম দলগুলির ঐক্যকে মজবুত করা এবং তৃতীয় ধাপে গিয়ে বাম ও গণতান্ত্রিক বিকল্প গড়ে তোলা৷‌ সীতারাম ইয়েচুরি বলেন, তবে বৃহত্তর ইস্যুতে কংগ্রেস বা অন্যান্য দলগুলির সঙ্গে সহযোগিতার সম্পর্ক স্হাপনে বাধা নেই৷‌ যেমন, জমি বিল রুখতে সংসদ ভবন থেকে রাষ্ট্রপতি ভবন থেকে মিছিলে কংগ্রেস ও অন্যান্য কিছু দলের সঙ্গে আমরাও ছিলাম৷‌ এরকম কর্মসূচিতে ভবিষ্যতেও থাকব৷‌ এদিকে ২১তম পার্টি কংগ্রেসের অধিবেশনে রাজনৈতিক খসড়া দলিল পেশ করে সি পি এম সাধারণ সম্পাদক প্রকাশ কারাত সাম্প্রদায়িকতাকেই মূল শত্রু হিসেবে চিহ্নিত করেন৷‌ তিনি বলেন, কর্পোরেট সাম্প্রদায়িকতার হাত ধরেছে৷‌ গত ১০০ বছরে বুর্জোয়ারা সাম্প্রদায়িকতাকে সঙ্গী করেনি ভারতবর্ষে৷‌ কিন্তু এবারের নির্বাচনে করেছে৷‌ এজন্য সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে না লড়ে কর্পোরেটের বিরুদ্ধে নীতিগত লড়াইয়ে নামা যাবে না৷‌ কর্পোরট-ঘেঁষা অর্থনৈতিক লাইনই অনুসরণ করছে বি জে পি সরকার৷‌ এই সরকারের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের প্রক্রিয়ায় দ্বিবিধ শত্রুর মোকাবিলা করতে হবে৷‌ প্রথমত, কর্পোরেট জগৎ, দ্বিতীয়ত, আর এস এসের নেতৃত্বাধীন হিন্দুত্বের শক্তি৷‌ এই লড়াইয়ে সাফল্যের জন্যই সর্বাগ্রে দলকে মজবুত করতে হবে৷‌ দ্বিতীয়ত, বাম ঐক্যকে আরও শক্তিশালী করতে হবে এবং তৃতীয়ত, বাম ও গণতান্ত্রিক বিকল্পের পথ প্রশস্ত করতে হবে৷‌ সাম্প্রদায়িক শক্তির বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্যই মোদি সরকারের অনুসৃত অর্থনৈতিক নীতির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে৷‌ এক্ষেত্রে সাম্প্রদায়িকতা ও উদারনীতির যৌথ আক্রমণের বিরুদ্ধে ধর্মনিরপেক্ষ ও গণতান্ত্রিক দলগুলিকে এক মঞ্চে আনতে হবে৷‌ বৃহত্তর জমায়েত করতে হবে৷‌ অন্য দিকে পার্টি কংগ্রেসের রাজনৈতিক রণকৌশল সম্পর্কে দলের খসড়া দলিল গৃহীত হওয়ার পর ব্যাখ্যায় বলা হয়েছে, রাজ্যস্তরের পার্টি যদি মনে করে, কোনও দলের সঙ্গে নির্বাচনী সমঝোতা করলে সে রাজ্যে সি পি এমকে সম্প্রসারিত করা যাবে এবং গণ আন্দোলনের পথ প্রশস্ত হবে, তবেই সেই দলের সঙ্গে নির্বাচনী সমঝোতা করা যেতে পারে৷‌ এ ব্যাপারে কেন্দ্রীয় দল কোনও নির্দেশ চাপিয়ে দেবে না৷‌ রাজ্যস্তরেই চূড়াম্ত সিদ্ধাম্ত নেওয়া যাবে৷‌ এদিকে ২৫ বছরের ভুল নিয়ে প্রতিনিধি সম্মেলনে যে প্রশ্ন উঠেছিল, সাধারণ সম্পাদক তার জবাব দিয়েছেন৷‌ তিনি বলেন, ভুল সংশোধনের রাস্তা খুঁজতে গিয়ে দেরি হলেও নেতৃত্ব ভুলটা আগেই চিহ্নিত করতে পেরেছিলেন৷‌ সপ্তদশ ও অষ্টাদশ পার্টি কংগ্রেসেই বলা হয়েছিল, অন্য দলের সঙ্গে নির্বাচনী আঁতাত করে সি পি এমের প্রসার হচ্ছে না৷‌ সুতরাং ভুল শোধরানোর পথ খুঁজতে দেরি হলেও নেতৃত্ব এ ব্যাপারে ওয়াকিবহাল ছিলেন৷‌ আজ পার্টি কংগ্রেসের রাজনৈতিক দলিলের খসড়ার ওপর ২৫৫২টি সংশোধনী এবং ২৪৮টি প্রস্তাব জমা পড়ে৷‌ এর মধ্যে ৭১টি সংশোধনী গৃহীত হয়েছে৷‌ এই সংশোধনীগুলিতে মৌলিক কোনও দাবি ওঠেনি৷‌ চলতি রাজনৈতিক লাইনটিকেই আরও জোরদার করতে ও পুরনো কিছু তথ্যকে শুধরে আধুনিক করতে বলা হয়েছে৷‌ কারণ, দলিলের খসড়াটি জানুয়ারি মাসে প্রকাশিত হয়েছিল৷‌ এ ছাড়া সংশোধনীগুলিতে ছিল কিছু টেকনিক্যাল বিষয়৷‌ অন্য দিকে সীতারাম ইয়েচুরি জানান, চলতি বছরের শেষ নাগাদ সি পি এমের সংগঠনিক প্লেনাম অনুষ্ঠিত হবে৷‌ সেজন্য সংগঠন নিয়ে আলোচনা হবে কিছুটা সংক্ষিপ্ত৷‌ কে সাধারণ সম্পাদক হবেন, তা নিয়ে আজ তাঁকে প্রশ্ন করা হয়৷‌ তিনি বলেন, আমি পুরনো কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য৷‌ এ ব্যাপারে আমার কোনও এক্তিয়ার নেই৷‌ নতুন কমিটি সাধারণ সম্পাদক নির্বাচন করবে৷‌ দলীয় সূত্রের মতে, বিদায়ী সাধারণ সম্পাদক তাঁর উত্তরসূরির নাম প্রস্তাব করতে পারেন৷‌ তার ভিত্তিতেই নতুন কেন্দ্রীয় কমিটি সাধারণ সম্পাদকের নামে সিলমোহর দেবে৷‌





kolkata || bangla || bharat || editorial || post editorial || khela || sangskriti ||
ghoroa || tv/cinema || Tripura || Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited