Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ১৩ চৈত্র ১৪২১ শনিবার ২৮ মার্চ ২০১৫
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  সম্পাদকীয়  উত্তর সম্পাদকীয়  খেলা  সংস্কৃতি  ঘরোয়া  পর্দা  আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
রানাঘাট গণধর্ষণ: সি বি আই তদম্ত ভার না নেওয়ায় বিস্মিত মুখ্যমন্ত্রী ।। গোপালই চক্রী, ডাকাতদের চিনিয়ে এনে ছিল--সব্যসাচী সরকার ।। চিটফান্ড সংস্হার দপ্তরে সি বি আই তল্লাশি ।। আলুর সঙ্কট: রাজ্যের লিখিত জবাব চাইল হাইকোর্ট ।। স্কুলে ঢুকে তাণ্ডব, ভাঙচুর ১২ বাস, তছনছ অফিসঘর ।। কড়াকড়ি কেন? স্কুলে আগুন পরীক্ষার্থীদের! ।। ফের জমি অর্ডিনান্স আনতে চলেছে সরকার ।। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে ২৬৯০ ফি‘ড ডিপোজিট ।। টসে হারাই নাকি বিপর্যয়ের প্রধান কারণ--দেবাশিস দত্ত, মেলবোর্ন ।। হোমওয়ার্ক করেনি ভারত--সম্বরণ ব্যানার্জি ।। বাজপেয়ীকে ভারতরত্ন সম্মান প্রদান ।। বেলগাছিয়ায় আজ মিছিলে বিমান বসু
ভারত

ঝগড়া তুঙ্গে, যোগেন্দ্র-প্রশাম্তকে আজ তাড়াচ্ছেন কেজরিওয়াল?

বাজপেয়ীকে ভারতরত্ন সম্মান প্রদান

সলমনের ‘না’

ফের জমি অর্ডিনান্স আনতে চলেছে সরকার

রানাঘাট গণধর্ষণ: সি বি আই তদম্ত ভার না নেওয়ায় বিস্মিত মুখ্যমন্ত্রী

খুচরো খবর

ঝগড়া তুঙ্গে, যোগেন্দ্র-প্রশাম্তকে আজ তাড়াচ্ছেন কেজরিওয়াল?

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share



রাজীব চক্রবর্তী: দিল্লি, ২৭ মার্চ– আম আদমি পার্টির ঘরের কোন্দল চরমে৷‌ দ্বিতীয়বার দিল্লিতে ক্ষমতায় আসার পর থেকেই ঘরোয়া অশাম্তিতে জেরবার কেজরিওয়ালের দল৷‌ শুক্রবার পরিস্হিতি যা দাঁড়িয়েছে তাতে দলের ভাঙন স্পষ্ট৷‌ অরবিন্দ কেজরিওয়াল গোষ্ঠী এবং যোগেন্দ্র যাদব-প্রশাম্ত ভূষণ গোষ্ঠীতে বিভক্ত দল৷‌ জাতীয় পরিষদ থেকে যোগেন্দ্র যাদব ও প্রশাম্ত ভূষণ পদত্যাগ করেছেন বলে বৃহস্পতিবার রাতে কেজরিওয়াল শিবির থেকে খবর ছড়িয়ে যায়৷‌ আজ সেই দাবি খারিজ করে দেন তাঁরা দু’জনেই৷‌ শনিবার দলের জাতীয় পরিষদের বৈঠক৷‌ সেই বৈঠকেই দুই নেতাকে সরানোর কথা ঘোষণা হতে চলেছে৷‌ তার আগে যোগেন্দ্র যাদব এবং প্রশাম্ত ভূষণ আজ দাবি করেছেন, কালকের বৈঠকটি ভিডিওতে ধরে রাখার ব্যবস্হা রাখতে হবে৷‌ এবং ভোটাভুটির পরিস্হিতি এলে গোপন ব্যালটে তা করতে হবে৷‌

বৃহস্পতিবার রাতে বৈঠকে বসেছিল দুই যুযুধান শিবির৷‌ যদি সমঝোতায় পৌঁছোনো যায়৷‌ কিন্তু, প্রশাম্ত-যোগেন্দ্রর সঙ্গে কেজরিওয়াল, শিশোদিয়াদের বিবাদ আরও তীব্র হল৷‌ ভেস্তে গেল সন্ধির প্রয়াস৷‌ দু’পক্ষই একে অপরের দিকে কাদা ছুঁড়তে ব্যস্ত হয়ে উঠেছে৷‌ দলের ভেতরেই চলছে স্টিং অপারেশন! আজ প্রকাশ্যে এসেছে একটি টেলি-কথোপকথনের টেপ, যেখানে নাকি কেজরিওয়াল উত্তেজিত গলায় এক সমর্থককে বলছেন,‘ অন্য কোনও দল হলে ওঁদের (যোগেন্দ্র)প্রশাম্তকে- ছুঁড়ে ফেলে দেওয়া হত৷‌’ শনিবার জাতীয় পরিষদের বৈঠকের আগেই দল থেকে বিতাড়িত হতে পারেন ভূষণ ও যাদব৷‌ কেজরিওয়াল শিবিরের অভিযোগ, দলের জাতীয় আহ্বায়ক পদ থেকে অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে সরাতে উদ্যোগী হয়েছিলেন এই দুই নেতা৷‌ প্রসঙ্গত, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পরেও কেন আপ-এর জাতীয় অধ্যক্ষের পদ আঁকড়ে আছেন কেজরিওয়াল– এই প্রশ্ন তোলায় দলের রাজনৈতিক বিষয়ক কমিটি থেকে আগেই বিতাড়িত হয়েছেন প্রশাম্ত ভূষণ এবং যোগেন্দ্র যাদব৷‌ এখন রকমসকম দেখে হাততালি দিছে বি জে পি৷‌ আপ ছেড়ে বি জে পি-তে যাওয়া নেত্রী শাজিয়া ইলমির মম্তব্য, প্রশাম্ত ভূষণ এবং যোগেন্দ্র যাদবকে যেভাবে দলবিরোধী হিসেবে দেখানো হচ্ছে, তা অত্যম্ত দুর্ভাগ্যজনক৷‌ বি জে পি মুখপাত্র জি ভি এল নরসিংহ রাও জানিয়েছেন, রাজনৈতিক দল হিসেবে জঘন্যতম নজির গড়ছে আপ৷‌ দলটা আসলে কংগ্রেস হওয়ার পথে এগোচ্ছে যা ব্যক্তি-কেন্দ্রিক৷‌

এদিন দুপুরে প্রেস ক্লাব অফ ইন্ডিয়াতে দলের জাতীয় আহ্বায়ক এবং মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে তোপ দাগলেন তাঁর এক সময়কার গুরুত্বপূর্ণ সঙ্গী যোগেন্দ্র যাদব ও প্রশাম্ত ভূষণ৷‌ দু’জনেই দলের ৪০০ সদস্যের জাতীয় পরিষদের সদস্য৷‌ তাঁরা অভিযোগ করেন, কেজরিওয়াল একনায়কতন্ত্র চালাতে চান৷‌ দলে গণতন্ত্রের বড়াই করা হলেও আদৌ তা প্রতিষ্ঠা করতে রাজি নন৷‌ নিজের সিদ্ধাম্তকে সবার সিদ্ধাম্ত বলে চালাতে চান৷‌ দলকে আর টি আইয়ের অধীন নিয়ে আসা, প্রদেশ নেতৃত্বকে স্বাধীনতা দেওয়া এবং দলের অন্দরে লোকপাল চালু করার মতো দাবি জানিয়ে আমরা বিরাগভাজন হয়েছি৷‌ যতবারই ওঁর সঙ্গে কথা বলতে চেয়েছি এড়িয়ে গেছেন৷‌ বলেছেন, সময় নেই৷‌ দাবিগুলি লিখিত ভাবে জানানোর পর আমাদের বলা হয়েছে, যা চাইছেন সব হয়ে যাবে, আগে আপনারা পদত্যাগ করুন৷‌ ই-মেলে দলকে আমরা আমাদের দাবি জানিয়ে বলেছি, দলে আরও স্বচ্ছতা আনতে আমাদের সব ক’টি দাবি মেনে নেওয়া হোক৷‌ আজ মেনে নেওয়া হলে কালই পদত্যাগ করব৷‌ কিন্তু, এই ই-মেলকে ওরা আমাদের পদত্যাগপত্র বলে ঘোষণা করছে৷‌ এটা মিথ্যে, অন্যায়৷‌ এখনও আমাদের একটিও দাবি মানা হয়নি৷‌ তাঁদের আরও অভিযোগ, গতবার কংগ্রেস বিধায়কদের সমর্থন নিয়ে সরকার গড়তে উঠেপড়ে লেগেছিলেন অরবিন্দ৷‌ কংগ্রেস বিধায়করা ৪ কোটি টাকায় বি জে পি-র কাছে বিক্রি হযে গেছেন– নিজে এই অভিযোগ করার পর কীভাবে কংগ্রেস বিধায়কদের সমর্থন নিয়ে সরকার গড়া হবে তা নিয়ে দলের মধ্যে বিবাদ শুরু হয়৷‌ এমনকী দলের রাজনৈতিক নীতি নির্ধারণ কমিটিতে এই প্রস্তাব খারিজ হয়ে যাওয়ার পরেও উপরাজ্যপালকে চিঠি দিয়ে বিধানসভা না ভেঙে দেওয়ার অনুরোধ করেন কেজরিওয়াল৷‌ সংবাদমাধ্যমে তা অস্বীকারও করেন৷‌ এই সব অভিযোগ বা বিরোধ নিয়ে এখনও মুখ খোলেননি কেজরিওয়াল নিজে৷‌ এদিন দিল্লি সচিবালয়ে তাঁকে এই বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে হাত নাড়িয়ে এড়িয়ে চলে যান তিনি৷‌ দলের অপর গুরুত্বপূর্ণ নেতা কুমার বিশ্বাস বলেন, বাইরের কোনও পক্ষ এঁদের চালনা করছে৷‌ ওঁরা যে গোপনে চক্রাম্ত করছিলেন সেটা এখন স্পষ্ট হয়ে গেছে৷‌ কেজরিওয়ালের জায়গা ছিনিয়ে নেওয়া যায় না৷‌ গতকাল রাতেও সাংবাদিক সম্মেলন ডেকে যোগেন্দ্র যাদব জানিয়ে ছিলেন, তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ সর্বৈব মিথ্যে৷‌ দলের শীর্ষ নেতৃত্ব তাঁর বিরুদ্ধে যে-সব অভিযোগ আনছেন, তা নিতাম্তই মনগড়া৷‌ একটি খোলা চিঠিতে কেজরিওয়ালকে অভিযুক্ত করেছেন প্রশাম্ত ভূষণ এবং যোগেন্দ্র যাদব৷‌ লিখেছেন, দলের জাতীয় কর্মসমিতি থেকে তাঁদের পদত্যাগপত্র আদায় করতেই নাকি গতকাল জরুরি বৈঠক ডেকেছিলেন কেজরি৷‌ এদিন বিকেলে আপ-এর সাধারণ সম্পাদক সঞ্জয় সিং বলেন, শুরু থেকেই দলে একতা বজায় রাখতে এবং সবার মতকে গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করা হয়েছে৷‌ যোগেন্দ্র যাদব এবং প্রশাম্ত ভূষণরা কেজরিওয়াল-সহ আপ নেতাদের মিথ্যেবাদী প্রমাণ করতে চাইছেন৷‌ ওঁদের অভিযোগের কোনও ভিত্তি নেই৷‌





kolkata || bangla || bharat || editorial || post editorial || khela || sangskriti ||
ghoroa || tv/cinema || Tripura || Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited