Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ২ আশ্বিন ১৪২১ শুক্রবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৪
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  বিদেশ  সম্পাদকীয়  উত্তর সম্পাদকীয়  খেলা  আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
শুভেন্দু, রবীনকে ডাকল সি বি আই ।। ‌ট্যাক্সি নেই পথে, আজও নাকাল হবেন যাত্রীরা ।। যাদবপুর: উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে অনড় ছাত্রছাত্রীরা ।। পুলিস আইন মেনেই কাজ করেছে: নগরপাল ।। শিক্ষামন্ত্রীকে রাজ্যপাল: যত তাড়াতাড়ি সম্ভব মিটিয়ে ফেলুন ।। ছোট ঘটনাকে তিল থেকে তাল করে দেখানোর চেষ্টা হচ্ছে: মুখ্যমন্ত্রী ।। বাড়ছে বাণিজ্য, সীমাম্ত সমস্যার দ্রুত সমাধানে রাজি চীন-ভারত ।। সুদীপ্ত, দেবিকা হাজিরা দেবেন বালেশ্বরের আদালতে ।। ব্রিটেন থেকে বিচ্ছিন্ন? ভোট দিল স্কটল্যান্ড ।। বকেয়া বিষয়ে উদ্যোগী হোক দিল্লি, চায় ঢাকা ।। সারদা তদম্তে সি বি আই আমাকে ডাকে না কেন? সূর্য ।। যাদবপুর-কাণ্ডে প্রতিবাদ
সম্পাদকীয়

পদত্যাগ চাই

পদত্যাগ চাই

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে মাঝরাতে৷‌ভোররাতে পুলিসি তাণ্ডবের প্রতিবাদে মানুষ মুখর৷‌ অরবিন্দ ভবনের আলো বন্ধ করে দিয়ে পেটানো হল ছাত্রছাত্রীদের৷‌ অনেকে আহত৷‌ ছাত্রীরা গুরুতর নিগ্রহের শিকার৷‌ থানার পুলিসের সঙ্গে বিশেষ বাহিনীও৷‌ অভিযোগ, বহিরাগত কিছু লোকও ছিল পুলিসের সঙ্গে৷‌ পুলিসি হামলার প্রতিবাদ হচ্ছে, হোক৷‌ তবে অন্য দিকটা বোধহয় আরও মারাত্মক৷‌ ‘ফেস্ট’-এর দিন এক ছাত্রীকে টেনে ছাত্রাবাসে ঢুকিয়ে নিগ্রহ করে কিছু ভয়ঙ্কর ছাত্র৷‌ তদম্তযোগ্য, এদের মধ্যেও বহিরাগত ছিল কিনা৷‌ নিগৃহীতার বাবা অভিযোগ জানাতে যান উপাচার্য অভিজিৎ চক্রবর্তীর কাছে৷‌ তাঁকে বিন্দুমাত্র বিচলিত মনে হয়নি৷‌ যেন কোনও উদাসীন আমলা৷‌ জানান, দু’দিন পরে যা বলার বলবেন, যা করার করবেন৷‌ কার্যত শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চ্যাটার্জির নির্দেশে তদম্ত শুরু হয়৷‌ কমিটির দুই সদস্য ছাত্রীর কাছে গিয়ে উল্টে অসম্মানজনক জেরা করেন৷‌ যেন দোষটা ওই ছাত্রীরই৷‌ শুরু হয় ছাত্রছাত্রীদের আন্দোলন৷‌ তদম্ত কমিটি থেকে ওই দুই সদস্যকে সরাতে হবে৷‌ অনড়, অটল উপাচার্য৷‌ তিনি তাঁরই ছাত্রছাত্রীদের সঙ্গে আলোচনা করতেও নারাজ৷‌ তাতে নাকি তাঁর ‘ডিগনিটি’ নষ্ট হবে৷‌ ঘেরাও৷‌ যা কখনও কোনও উপাচার্য করেননি, তা-ই করলেন অভিজিৎবাবু৷‌ কয়েক ঘণ্টা পর থেকেই পুলিস কর্তাদের ফোন করতে লাগলেন, বাঁচান! বাঁচান! পুলিসের সাহায্য চাইলেন লিখিতভাবে৷‌ পরদিন যা বললেন, বাঁধিয়ে রাখার মতো৷‌ ‘পুলিস মারেনি, ছাত্ররাই পুলিসকে মেরেছে৷‌ মহিলা পুলিসকর্মীদের গায়ে হাত তুলেছে৷‌ ওরা আমাকে ছিনিয়ে নিতে চাইছিল৷‌ আমি বিপন্ন বোধ করছিলাম, খুনও হয়ে যেতে পারি!’ ছাত্রছাত্রীরা তাঁকে ছিনিয়ে নিতে চাইবেন কেন? মুক্তিপণ দাবি করার জন্য? ছাত্ররাই মেরেছে, এত বড় মিথ্যা বলতে লজ্জা হল না বিন্দুমাত্র? অভিজিৎবাবু শিক্ষক৷‌ উপাচার্য৷‌ নিজের ছাত্রছাত্রীদের সঙ্গে তাঁর এই সম্পর্ক? অবিলম্বে, অবিলম্বে পদত্যাগ চাই অযোগ্য উপাচার্যের৷‌ এই দাবিতে রাজনীতি নেই৷‌


kolkata || bangla || bharat || bidesh || editorial || post editorial || khela ||
Tripura || Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited