Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ১৩ মাঘ ১৪২১ বুধবার ২৮ জানুয়ারি ২০১৫
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  বিদেশ  সম্পাদকীয়  খেলা  আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
সারদা, সিঙ্গুর: শুনানি পিছোল সুপ্রিম কোর্টে--রাজীব চক্রবর্তী, দিল্লি ।। গান্ধী, বিবেকানন্দ থেকে শাহরুখে মাতিয়ে গেলেন--রাজীব চক্রবর্তী, দিল্লি ।। মুখ্যমন্ত্রী: গণতন্ত্রের অঙ্গন হল বইমেলা ।। প্রার্থী নিয়ে কং-কোন্দল ।। দলকে আরও কড়া বার্তা দিতে শনিবার কালীঘাটে দলের বৈঠক ।। বেসুর ছাত্রীকে যৌন হেনস্হায় ছুটিতে শিক্ষক ।। ব্যাগে ১৬ কোটি বিদেশি মুদ্রা নিয়ে রাইমা গ্রেপ্তার--সব্যসাচী সরকার ।। ফের পিছিয়ে গেল সিঙ্গুর মামলা, হতাশ সিঙ্গুরবাসী--নীলরতন কুণ্ডু ।। সিবাল সরিয়ে জোট সম্ভাবনা ওড়ালেন অধীর--অলক সরকার ।। তৃণমূল ও বি জে পি-র ফারাক নেই: সূর্যকাম্ত--সুখেন্দু আচার্য ।। রেড রোডে উৎসবের আমেজ ।। আনন্দধারার দায়িত্বে বেচারাম
সম্পাদকীয়

হতাশা অবসাদের প্রযুক্তি

হতাশা অবসাদের প্রযুক্তি

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share

প্রয়োজনীয়, সময়োপযোগী এবং সাহসী উদ্যোগ৷‌ কাজে নেমেছে এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্হা৷‌ ফেসবুক, টুইটার, হোয়াটস অ্যাপে আসক্ত মানুষকে সুস্হ জীবনে ফিরিয়ে আনবার কাজ শুরু করতে চলেছে৷‌ বিশ্বজুড়ে সমাজবিজ্ঞানী ও চিকিৎসকেরা বলছেন, এই সব সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং ব্যবস্হা মানুষকে মানসিক ভাবে অসুস্হ করে তুলছে৷‌ হতাশা, অবসাদ, নিরাপত্তাহীনতা, বিচ্ছিন্নতাবোধ তৈরি হচ্ছে৷‌ স্কুলের ছাত্রছাত্রী থেকে শুরু করে বয়স্ক মানুষরা অনেকেই দিনের একটা বড় সময়ে ফেসবুক, টুইটার, হোয়াটস অ্যাপে পড়ে থাকছে৷‌ হারাচ্ছে মনঃসংযোগ, হারাচ্ছে বুদ্ধিবৃত্তি, হারাচ্ছে সম্পর্ক৷‌ বিশ্বের বেশিরভাগ সমাজবিজ্ঞানী, মনোবিজ্ঞানীরা ফেসবুক, হোয়াট অ্যাপের বিরুদ্ধে মত দিচ্ছেন৷‌ ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক আমন্দা ফরেস্ট, ওয়াটারলু বিশ্ববিদ্যালয়ের জোয়ান উড সম্প্রতি সাইকোলজিক্যাল সায়েন্স পত্রিকায় এ বিষয়ে তাদের গবেষণা প্রকাশ করেছেন৷‌ তারা বলেছেন, কম আত্মবিশ্বাসী মানুষরাই ফেসবুক ধরনের বিষয়ে বেশি আগ্রহী৷‌ টরেন্টোর ইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয়ের মনস্তত্ত্ব গবেষক সোরায়া মেহভিজাডের বক্তব্য হল, যারা আত্মকেন্দ্রিক তাদের মধ্যেই ফেসবুক চর্চা বেশি৷‌ এ তো গেল তত্ত্বের কথা৷‌ স্বেচ্ছাসেবী সংস্হা ট্রান্সটোন গ্লোবালের সঙ্গে যুক্ত চিকিৎসকেরা মনে করছেন, মনের সঙ্গে শরীরেরও ক্ষতি করছে ফেসবুক, হোয়াটস অ্যাপের চর্চা৷‌ এটি একটি নেশা৷‌ এই নেশার কারণে পড়ুয়ারা পড়াশোনা থেকে সরে যাচ্ছে৷‌ সরে যাচ্ছে গভীরভাবে কোনও বিষয় নিয়ে ভাবনা চিম্তা করতে৷‌ আনন্দের কথা স্বেচ্ছাসেবী সংস্হা এই ‘নেট নেশা’ কাটাতে খুলেছে ‘ইন্টারনেট ডিঅ্যাডিকশন সেন্টার’৷‌ উদ্যোগকে স্বাগত৷‌ যারা ফেসবুক, টুইটার, হোয়াটস অ্যাপের জয়গান করেন, আদিখ্যেতা করেন, তারা সম্ভবত জানেন না কতটা গভীরে এই অন্ধকারের অসুখ বাসা বাঁধছে৷‌ শিকড় ছড়াচ্ছে৷‌ আমরা চাই ইন্টারনেটের ভাল অংশটুকু থাকুক, বন্ধ হোক হতাশা অবসাদের প্রযুক্তি৷‌





kolkata || bangla || bharat || bidesh || editorial || khela || Tripura ||
Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited