Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ১৩ শ্রাবণ ১৪২১ বুধবার ৩০ জুলাই ২০১৪
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  বিদেশ  সম্পাদকীয়  উত্তর সম্পাদকীয়  খেলা  আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
খুশির ইদ ।। রাস্তায় ‘রুপো’! লুটতে হুটোপুটি ।। তাপসের কুৎসিত মম্তব্যের বিরুদ্ধে সরব দলের সাংসদ মুমতাজম ।। কলকাতা পুরভোট: অবাঙালিদের আস্হা তৃণমূলিদের ।। এনসেফেলাইটিসে এবার মৃত্যু নার্সিংহোমে ।। শুভেন্দু-অখিল গোষ্ঠীর সঙঘর্ষে উত্তপ্ত তমলুক ।। অন্ধ্রের চাল বাংলাদেশ ঘুরে ত্রিপুরায়--তাপস দেব, আগরতলা ।। মার্কিনি পড়ুয়ারা এবার পড়বেন কলকাতায়--ওবামা-মনমোহন উদ্যোগের সাফল্য ।। রক্তাক্ত ইদ, খেলার মাঠে ইজরায়েলি বোমা, হত ৯ শিশু ।। বিদেশে ব্যবসা বাড়াতে ফেসবুকে কুমোরটুলি ।। উত্তরে নামী শিল্পীর ঢল ।। কড়া নিরাপত্তা, মুখ্যমন্ত্রী আজ পুরুলিয়ায়
সম্পাদকীয়

গৈরিক গরিষ্ঠতা

গৈরিক গরিষ্ঠতা

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share

নির্বাচনের ফল যে ইঙ্গিত দিয়েছিল, ক্রমেই তা আরও স্পষ্ট৷‌ উত্তর ভারতের রাজনৈতিক দল বি জে পি, ‘ভারতীয়’ হয়ে উঠতে তাদের অনীহা অতি প্রবল৷‌ স্কুলে সংস্কৃতের পাঠ চাপিয়ে দেওয়া তারই অঙ্গ৷‌ বি জে পি-র প্রবক্তারা বিশ্বাস করেন, সংস্কৃতই প্রতিটি ভারতীয় ভাষার জন্মদাতা৷‌ তাঁরা হয়ত জানেন না, জানলেও মানেন না যে তামিল সংস্কৃতের মতোই প্রাচীন ভাষা, ভারতে জীবম্ত ভাষাগুলির মধ্যে প্রাচীনতম৷‌ স্বভাবতই বি জে পি-র ওই সিদ্ধাম্ত তামিলদের খুশি করেনি, কিছু শরিকও যারপরনাই আহত৷‌ তবে গরিষ্ঠতার গর্বে বি জে পি-র নেতারা মনে করছেন আর্যাবর্তই প্রকৃত ভারতবর্ষ, প্রতিটি পদক্ষেপে সেটা বুঝিয়ে দিতেও ছাড়ছেন না৷‌ নরেন্দ্র মোদি কিছুদিন আগেই তাঁর ভাষণে বলেছিলেন ভারত ১২০০ বছর পরাধীন ছিল৷‌ এই তত্ত্বটি ছড়িয়ে দেওয়ার অর্থ মহম্মদ বিন কাশেমের সময় থেকেই তিনি ভারতকে পরাধীন ধরছেন৷‌ তবে সেই আগ্রাসন ঘটেছিল শুধু উত্তর ভারতেই, দক্ষিণে নয়৷‌ মুঘল আমলের আগে উত্তর ভারতের পুরোপুরি দখল মুসলমানদের হাতে ছিল না৷‌ পাঞ্জাব তারা দখল করতে পারেনি, আসামও দিল্লির নিয়ন্ত্রণে ছিল না৷‌ পলাশির যুদ্ধের অম্তত ৭০ বছর পর ইংরেজরা সর্বভারতীয় কর্তৃত্ব পেয়েছিল৷‌ দাক্ষিণাত্যে মুসলমান শাসনের তেমন কোনও প্রভাবই পড়েনি৷‌ তথাকথিত হিন্দুত্বের ইতিহাসও বলছে, ভক্তি আন্দোলনের সূচনা করেছিলেন তামিল কবিরা৷‌ হিন্দুত্ব শুধু সংস্কৃতের সম্তান নয়, তামিলেরও৷‌ উত্তর ভারতের রাজারা যখন নিজেদের মধ্যে লড়াই করছেন, তখন চোল বংশ ভারতের বাইরেও প্রভাব বিস্তার করে ফেলেছে৷‌ দিল্লি তথা উত্তর ভারতের প্রভুত্বের তত্ত্বটি গেরুয়া আমলে ছড়িয়ে দেওয়ার নতুন উদ্যোগ শুরু হয়েছে, ইতিহাস এর উল্টোকথাই বলছে৷‌ উত্তর ভারতের প্রবীণ ব্রাহ্মণ নেতাদের বিভিন্ন রাজ্যের রাজ্যপাল পদে বসিয়ে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী একাধারে নিষ্কণ্টক হতে চাইছেন এবং উত্তর ভারতের মতামত চাপিয়ে দিতে চাইছেন ভিন্ন ভাষা ও সংস্কৃতির বুকে৷‌ এই হঠকারিতায় আছে বিভাজনী বীজ, যা ভারতকে মহাশক্তিধর করে তোলার পথে বিপুল অম্তরায় হয়ে দেখা দেবে বলেই আশঙ্কা৷‌


kolkata || bangla || bharat || bidesh || editorial || post editorial || khela ||
Tripura || Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited