Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ৪ বৈশাখ ১৪২১ শুক্রবার ১৮ এপ্রিল ২০১৪
Aajkaal 33
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  সম্পাদকীয়  উত্তর সম্পাদকীয়  খেলা  আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
পশ্চিমবঙ্গের প্রথম দফার ভোট নির্বিঘ্নেই ।। মালদায় মমতা: শেষ করুন জমিদারতম্র ।। স্ত্রী এবং ছেলের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে তড়িঘড়ি সাড়ে ৪ কোটি টাকা গেল কোথায়? ।। কমিশনের কাজে পুরো খুশি নয়, তবে সাহসী ভোটারদের অভিনন্দন: সি পি এম ।। ছক কষেই মোদি বেনারসে: কারাত--দেবারুণ রায়,বারাণসী ।। ৪০০ গ্রাম চষে ফেলেছেন--অরুন্ধতী মুখার্জি৷‌ বাঁকুড়া ।। ধামসা-মাদল, গরুর গাড়ি, মহামিছিলে মনোনয়ন ।। ৪ আসনেই এত হিংসা, ওরা কী করে গণতন্ত্রের পক্ষে হয়! বিমান ।। রাজনীতির ওপর আশা নেই, তাই ভোট দিলেন না ১১৩ বছর বয়সী বৃদ্ধা ।। জেলার চিটফান্ডগুলি যাতে টাকা ফেরত দেয় তার জন্য প্রশাসনকে ব্যবস্হা নিতে নির্দেশ ।। মুখ্যমন্ত্রীর হোটেলে আগুন ।। পঞ্চম দফায় ১২১ আসনে ভোট শাম্তিতেই
সম্পাদকীয়

খোলা পাহাড়

খোলা পাহাড়

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share

গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার সভাপতি তথা জি টি এ প্রধান বিমল গুরুং দার্জিলিঙে জনসভায় সুবচন ছড়ালেন: আর বন‍্ধ নয়, জনজীবন ব্যাহত করে কোনও আন্দোলন নয়৷‌ বলা বাহুল্য, এখন চাইলেও পারবেন না৷‌ রাজ্য সরকার সক্রিয়, তৃণমূল ঢুকে পড়েছে, সাধারণ পাহাড়বাসী তিতিবিরক্ত৷‌ পরাজিত পক্ষ যখন শাম্তির বার্তা দেয়, একটু হাসি পায়, কিন্তু, তবু তো ভাল কথা৷‌ ভাল৷‌ এখন তাহলে কী করবেন গুরুংরা? আপাতত লক্ষ্য, দার্জিলিং কেন্দ্রে বি জে পি প্রার্থী সুরিন্দর সিং আলুওয়ালিয়াকে জিতিয়ে আনা৷‌ পাঁচ বছর আগে অবস্হা ছিল অন্যরকম৷‌ মোর্চা যাঁকে চায় তাঁকেই জেতাতে পারত৷‌ বি জে পি নেতা যশবম্ত সিং সহজে জিতলেন৷‌ কালিম্পঙে বাড়ি কিনে পাহাড়ে থাকার কথা ঘোষণা করেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী৷‌ লোকসভায় দু’বার মৃদুভাবে তুলেছেন ‘গোর্খাল্যান্ড’-এর কথা৷‌ পাহাড় তাঁর দেখা পেয়েছে কদাচিৎ৷‌ বিমল-রোশনরা বলেন, বি জে পি তো ক্ষমতায় ছিল না, কিছু করতে পারেনি৷‌ এবার বি জে পি আসছেই, সুতরাং, পৃথক রাজ্য হবেই৷‌ ছোট রাজ্যের পক্ষে বি জে পি, কিন্তু কত ছোট? ৩ বিধানসভা কেন্দ্র নিয়ে একটা রাজ্য? গুরুং বলছেন, এবার থেকে আলোচনা হবে দিল্লিতে৷‌ হাজার হাজার লোক নিয়ে যাবেন রাজধানীতে? পাঁচ বছরে ৫৪ বার দিল্লি গেছেন গুরুং৷‌ কিছু হয়নি৷‌ এবারও হবে না৷‌ দর কষাকষির শক্তি হারিয়েছে মোর্চা৷‌ রাজনৈতিক দিকটাও বুঝছেন না অথবা ঢেকে রাখতে চাইছেন ওঁরা৷‌ বি জে পি রাজ্য সভাপতি রাহুল সিনহা স্পষ্ট জানিয়েছেন, রাজ্য ভাগে দলের সায় নেই৷‌ এবার পশ্চিমবঙ্গে বি জে পি-র ভোট শতাংশ বাড়ছেই৷‌ কেন্দ্রে ক্ষমতায় আসতে পারলে, এ রাজ্যেও শক্তি বাড়ানোর দিকে জোর দেবে বি জে পি৷‌ একটি লোকসভা কেন্দ্রের জন্য গোটা রাজ্যে দলের সর্বনাশ ডেকে আনার প্রশ্ন ওঠে না৷‌ বিমলের সভায় ভিড় হচ্ছে, বক্তব্যে আলোড়ন নেই৷‌ বেশ৷‌ এখন জি টি এ প্রধানের ক্ষমতা ভোগ করুন৷‌ মাঝেমধ্যে দিল্লি যান৷‌ বন‍্ধ নয়৷‌ খোলা থাকুক পাহাড়৷‌






kolkata || bangla || bharat || editorial || post editorial || khela || Tripura ||
Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited