Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ১৫ শ্রাবণ ১৪২১ শুক্রবার ১ আগস্ট ২০১৪
 প্রথম পাতা   বাংলা  ভারত  সম্পাদকীয়  খেলা  আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
মমতা: দিল্লির সঙ্গে লড়ে উন্নয়ন অব্যাহত রেখেছি--দীপেন গুপ্ত ।। না ঘরকা না ঘাটকা ২ বিধায়ক--দীপঙ্কর নন্দী ।। সারদা: বাংলা, ওড়িশায় তালা ভেঙে তল্লাশিতে সি বি আই ।। তাপসের নামে সোমবার পর্যম্ত এফ আই আর নয় ।। পুনে: ধসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩১ ।। পেট্রলের দাম কমল, বাড়ল ডিজেলের ।। গণফ্রন্টকে স্বাধীন করে খেতমজুর সংগঠনও চায় সি পি এম ।। ১০০ দিনের কাজ নিয়ে কড়া নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর ।। ‘বাবলি’র আবদার মেটাতেই ‘বান্টি’র প্রতারণায় হাতেখড়ি ।। লেকটাউন-কাণ্ড: গৃহশিক্ষিকা পূজা সিং-এর জামিন নাকচ ।। তসলিমার ভিসা বাতিল ।। নবারুণ ভট্টাচার্য প্রয়াত
খেলা

লজ্জা! মঈন আলির সামনেও আত্মসমর্পণ!

এক্ষুনি গম্ভীরকে ফেরানো দরকার

হার নিয়ে বেশি ভাবার দরকার নেই! ধোনি

বিকাশ, যোগেশ্বর, ববিতার সোনা

তারকাবিহীন আসরে ৬ মিট রেকর্ড

কালিসের সততায় মুগ্ধ স্মিথ

কবাডির মতো ছোট খেলার প্রসারে সৌরভ, শচীনকে চান অভিষেক

প্রতিটা সেশনেই আমরা জয় পেয়েছি: কুক

ম্যাঞ্চেস্টার টেস্ট খেলতে চান অ্যান্ডারসন

৩৫৩ দিন পর জয়, ব্যবধান ২৬৬ রানের!

সুভাষের পরীক্ষা ২৭ আগস্ট?

ব্যাটসম্যানদের কৃতিত্ব দিলেন অ্যান্ডারসন

চন্দনের লড়াই চলছে

ইস্টবেঙ্গলে নানা অনুষ্ঠান

সুস্মিতার চোখ এশিয়াডে

স্কোলারি ঘরে ফিরলেন

এক ম্যাচে ৯ গোল

আঙুল ভেঙেছে, ঋদ্ধিমান ফিরছেন, যাচ্ছেন নমন ওঝা

১৮ আগস্ট মাঠে নামতে চান নেইমার

মনোজের ৫ উইকেট, জয়

স্কোর

লজ্জা! মঈন আলির সামনেও আত্মসমর্পণ!

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share

দেবাশিস দত্ত, সাউদামটন




৩১ জূলাই– ৬ উইকেট নিয়েছেন তো বৃহস্পতিবার, কিন্তু সব ব্রিটিশ সংবাদপত্রে বুধবার যত বড় করে মঈন আলির ছবি দেখলাম, তা দেখে স্বয়ং মঈনও অবাক হয়ে গিয়ে থাকবেন৷‌ এবং মনে রাখবেন, মাত্র ২টি উইকেট নেওয়ার কারণেই অত বড় বড় ছবি ছাপা হয়েছে৷‌ জানি না, ৬৭ রানে ৬ উইকেট পাওয়ার পর সংবাদপত্রের সাইজ আরও বড় করে তাঁর ছবি ছাপা হবে কিনা৷‌ এটা ঘটনা, মঈন আলি না থাকলে ভারতকে মধ্যাহ্নভোজের ১২ মিনিট আগে আত্মসমর্পণ করতে হত না৷‌ নটিংহ্যাম, লর্ডস, সাউদামটন, তিন টেস্টে আপাতত তাঁর ঝুলিতে রয়েছে ১৫টি তাজা ভারতীয় ব্যাটসম্যানের প্রাণ৷‌ শেন ওয়ার্ন সতর্ক করে দিয়েছিলেন সকালেই, ‘মঈন আলিকে উপেক্ষা করলে কিন্তু ডুববে ভারত৷‌’ এদিন একসময় ২২ বলে ১৭ রান দিয়ে তিনি ৪ উইকেট তুলে নিলেন! ভারত নাকি স্পিন বোলিং খেলে সবচেয়ে ভাল৷‌ অখ্যাত মঈন আলির কাছে হেরে যাওয়ার পরও ধোনি বললেন, ‘এমন হতেই পারে৷‌’

মানতে হবে বল লাফিয়েছে, স্পিনও করেছে৷‌ তাহলে জো রুটের মতো অনিয়মিত বোলারও উইকেট নিয়ে যাবে হাসতে হাসতে? এবার হয়ত ধোনির দলের আবদার হবে, বিদেশে এক মাস আগে যেতে হবে কোনও সিরিজের আগে, যাতে সেদেশের ভেঙে যাওয়া উইকেটে অনুশীলন করে ধাতস্হ হয়ে উঠতে পারেন তাঁরা৷‌ সৌরভ গাঙ্গুলি বিস্মিত, ‘মঈন আলিকে জুজু ভেবে ফেলল আমাদের ব্যাটসম্যানেরা৷‌ রাহানে ছাড়া একজন ব্যাটসম্যানও মঈনের বল পিচে পড়ার মুহূর্তে ব্যাট নিয়ে পৌঁছতে পারল না?’ সব মিলিয়ে ধোনির নেতৃত্বে বিশ্বকাপ জেতার পর, এই নিয়ে ১৩টি টেস্টে হারল ভারত৷‌ না না, ওঁকে সরিয়ে দেবে বোর্ড, এ আশা করছি না৷‌ তবে, অধিনায়ক ধোনির সঙ্গে অনেকেই যখন বাড়তি এক গ্লাস জল গলায় ঢেলে দেন, তাঁদের সামনে এই তথ্যটা আলতো করে শুধু মেলে ধরার অনুরোধ জানাচ্ছি৷‌

রীতিমতো কাঁপছিল এদিন ভারত৷‌ প্রথম রান উঠেছে সকালে ২৮ বল পর৷‌ ততক্ষণে রোহিত শর্মাকে তুলে নিয়েছিলেন অ্যান্ডারসন৷‌ আগের দিন ৬ রানে অপরাজিত ছিলেন৷‌ এদিন কোনও রান যোগ হওয়ার আগেই অ্যান্ডারসনের বল তাঁর বাড়ানো ব্যাটে নাকি ব্যাটে হালকা হাওয়া দিয়ে বাটলারের গ্লাভসে লুকিয়ে পড়েছিল৷‌ রোহিতের নাকি ব্যাটে লাগেনি! তিনি অপেক্ষাও করলেন কয়েক সেকেন্ড. ডি আর এস থাকলে তিনি বেঁচে যেতেন৷‌ হয়ত৷‌ কিন্তু এ কথা বলা অর্থহীন নয়? ডি আর এস বস্তুটা তো নেই এই সিরিজে৷‌ শুক্রবারের সংবাদপত্রে লেখা থাকবে, রোহিত কট বাটলার ব অ্যান্ডারসন৷‌ ধোনি এসে ২ রান নিলেন, স্কোরবোর্ড দিনে এই প্রথম সচল হল৷‌ কিন্তু তিনিও অ্যান্ডারসনের অফ স্টাম্পের বাইরে খোঁচা দিয়ে বিদায় নিলেন৷‌ ম্যাচ বাঁচানোর কারিগররা এভাবেই দ্রুত ফিরে গেলেন ড্রেসিংরুমে৷‌ তারপর, মঈন আলি এক গাল দাড়ি এবং এক গাল হাসি মেলে ধরে জাদেজা ও সামিকে বোল্ড করে দিলেন৷‌ অল্প অফ স্পিনে ভুবনেশ্বর ব্যাট-প্যাড ক্যাচ দিয়ে ফিরে গেলেন৷‌ পঙ্কজ সিংও তাঁর শিকার৷‌ ১৭৮ রানে শেষ হয়ে গিয়েছিল ভারত৷‌ হারতে হল ২৬৬ রানে৷‌ তাও ধোনি বললেন, ‘সিরিজে ফিরব’৷‌ কিছু বুঝতে পারছি না৷‌ ১০ দিন আগে যে দলটা চনমনে মানসিকতা নিয়ে লর্ডস টেস্ট জিতেছিল, তাঁরাই কিনা পরের ১০ দিনে ক্লাম্তি, অবসাদে রুগ‍্ণ হয়ে গেল! এ কলি কালে সবই সম্ভব! এ এক অনির্বচনীয় বিস্ময়! সাধ ও সাধ্যের অভাব ছিল আগাগোড়া৷‌

তাই হেরে যাওয়ার পরও তেমন কোনও তাপ-উত্তাপ দেখা গেল না ভারতীয় শিবিরে৷‌ প্রবাসী ভারতীয়রা অবশ্য এমন ব্যর্থতার পরও ভারতের পতাকা গায়ে জড়িয়ে ওঁদের পাশে দাঁড়িয়ে ছবি তোলার জন্য অপেক্ষা করছিলেন৷‌ বিষন্ন হওয়ার মতো কোনও ঘটনাকি ঘটেনি? ২৬৬ রানের ব্যবধানে একটা টেস্ট ম্যাচ হারার পরও দেখলাম, শিবিরে সবাই স্বাভাবিক৷‌ এমন লজ্জাজনক পরাজয়ের পর ওঁরা ফুটবল খেললেন৷‌ বি সি সি আই কি রাশিযার বিশ্বকাপে টিম ইন্ডিয়াকে পাঠানোর গোপন ইচ্ছের কথা ধোনিদের জানিয়েছে? জোরে বোলিংয়ে অসুবিধা, সীমিং উইকেটে কান্নাকাটি তো ছিলই৷‌ এবার ওই তালিকায় যোগ হল অখ্যাত স্পিনারদের সামনে নাজেহাল হওয়ার ছবিও৷‌ তবু অধিনায়ক বলছেন, ‘সিরিজ জিতব৷‌’ কীভাবে? অদ্ভুত দল, যারা ইচ্ছে হলে ভাল খেলে, আবার ইচ্ছে হলে খারাপ খেলে৷‌ বোঝা গেল, ‘বুঝি না’ শব্দটা কেন লিখলাম বারবার?

পুনশ্চ: ম্যান অফ দ্য ম্যাচের পুরস্কার পেলেন আবার অ্যান্ডারসন৷‌ কুক বা মঈন আলিকেও দেওয়া যেত৷‌ সম্ভবত আই সি সি-র শুনানির আগে ই সি বি অ্যান্ডারসনকে ম্যাচের সেরা পুরস্কার দিয়ে উদ্দীপ্ত করার চেষ্টা করল৷‌


bangla || bharat || editorial || khela || Tripura || Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited