Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ৩ ভাদ্র ১৪২১ বুধবার ২০ আগস্ট ২০১৪
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  বিদেশ  সম্পাদকীয়  উত্তর সম্পাদকীয়  খেলা  আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বিনিয়োগ নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সফল বৈঠক ।। শুনিয়া-কাণ্ডে গ্রেপ্তার ৩ তৃণমূলি--ধর্ষণ, খুনের অভিযোগ ওড়াল পুলিস ।। সারদার সমস্ত সম্পত্তি লুটপাট হচ্ছে: সুদীপ্ত ।। না জানিয়ে পান্ধই-চার্জশিট! ক্ষুব্ধ কোর্টের তলব ডি জি-কে ।। দিল্লি কঠোর, তাও পাক দূতের কাছে গিলানি, বাইরে বিক্ষোভ ।। কাল উপনির্বাচন, সমীক্ষা বলছে বিহারে সমানে সমানে দুই শিবির ।। যোজনা কমিশনের বিকল্প নিয়ে জনমত চাইছেন মোদি ।। বিরোধী নেতার পদ: কংগ্রেসের আবেদন খারিজ করলেন সুমিত্রা ।। ইন্দোরের কারখানা বেচে হিন্দমোটর পুনরুজ্জীবন? ।। পায়ে বল নিয়েই ভোটের ময়দানে নেমে পড়লেন দীপেন্দু ।। ৩০ আগস্ট পর্যম্ত বাস ধর্মঘট নয় ।। চৌরঙ্গি: বামপ্রার্থী আনোয়ারা?
খেলা

একদিনের সিরিজে ফ্লেচারের ‘মাথায়’ শাস্ত্রী

ডানকানকে বলে দেওয়া হয়েছে, আমিই বস: শাস্ত্রী

জঘন্য ফুটবল, প্রাপ্তি শুধু দীপক

ফাতাইয়ের সই হল, সুভাষ সন্তুষ্ট হতে নারাজ

বাংলার চার কন্যা এশিয়াডে

সুয়ারেজের অভিষেক ম্যাচে ৬ গোল বার্সার

ক্ষিপ্ত আর্মান্দো: ক্যালাস ফুটবল, এর চেয়ে স্কুল ছাত্ররাও ভাল

নেতা নয়, দোষী বি সি সি আই: রণতুঙ্গা

পাক ম্যানেজারকে থানায় ডেকে জেরা, আজ দ্বিতীয় ম্যাচ

শচীনের জন্যই ম্যানেজার জেমস

ফের মুখোমুখি নেইমার-জুনিগা?

ইনস্ট্যান্ট কফি নয়, সময় দিন: সানি

জিতেই চলেছে টালিগঞ্জ

রোহনের ১১৮ সত্ত্বেও হার

ভারত ৫!

সিরিজ জিতল দক্ষিণ আফ্রিকা

মুদগাল কমিটি ধোনিদের জেরা করবে লন্ডনে

উইম্বলডনে সিদ্ধাম্ত

একদিনের সিরিজে ফ্লেচারের ‘মাথায়’ শাস্ত্রী

‘ছুটি’তে যেতে বলা হল বোলিং ও ফিল্ডিং কোচদের

সহকারী কোচ সঞ্জয় বাঙ্গার, ভরত অরুণ, আর শ্রীধর

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share

দেবাশিস দত্ত, লন্ডন




১৯ আগস্ট– নিজেদের পিঠ বাঁচাতে এবং ‘বি সি সি আই হাত গুটিয়ে বসে নেই’ বোঝানোর জন্য রবি শাস্ত্রীকে আবারও ঢাল হিসেবে ব্যবহার করা হল৷‌ পোশাকি পদ ডাইরে’র অফ কোচিং, একদিনের সিরিজের জন্য৷‌ এ কথা ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে ডানকান ফ্লেচারকে ‘রেখে’ দেওয়া হল হেড কোচ হিসেবে৷‌ কিন্তু, বোর্ড সচিব সঞ্জয় প্যাটেল জানালেন, ‘এখন ভারতীয় ক্রিকেট দল হল রবি শাস্ত্রীর শিশু৷‌ রবির পরামর্শেই এগোবে ভারতীয় ক্রিকেট৷‌ এবার প্রধান কোচ ডানকান ফ্লেচারকে নানা পরামর্শ দিতে থাকবে রবি৷‌ দলের ভাল-মন্দ, সব ব্যাপারটাই এখন বোর্ড রবি শাস্ত্রীর ওপর ছেড়ে দেবে৷‌’ সহকারী কোচ হিসেবে তিন জনের নাম ঘোষণা করা হয়েছে– সঞ্জয় বাঙ্গার, ভরত অরুণ এবং আর শ্রীধর৷‌ আপাতত, ‘ছুটিতে’ যেতে বলা হয়েছে বোলিং কোচ জো ডস এবং ফিল্ডিং কোচ ট্রেভর পেনি-কে৷‌

‘ছুটিতে’ যেতে বলা হল বোলিং ও ফিল্ডিং কোচদের৷‌ এবং ডানকান ফ্লেচারের ঘাড়ের ওপর চাপিয়ে দেওয়া হল রবি শাস্ত্রীকে৷‌ বলা হয়েছে, এই বন্দোবস্ত চলবে শুধুই আসন্ন একদিনের সিরিজের জন্যে৷‌ গোটা মরশুম বা বিশ্বকাপ পর্যম্ত নয় কেন? মুম্বইয়ের ক্রিকেট সেন্টারে টেলিফোন করে যেটা জানা গেল, তা হল, বোর্ডের ওয়ার্কিং কমিটির অনুমোদন ছাড়া গোটা মরশুম বা লম্বা সময়ের জন্য কোচদের নিয়োগ করার নিয়ম নেই৷‌ যে সিদ্ধাম্ত এখন নেওয়া হল, তা আপৎকালীন৷‌ ইংরেজিতে যাকে বলা হয় ইমার্জেন্সি৷‌

বোর্ড চাইছে, ডানকান ফ্লেচার নিজে সরে যান৷‌ রবি শাস্ত্রী নামের বাটখারা তাই চাপিয়ে দেওয়া হল এই বর্ষীয়ান কোচের ঘাড়ে৷‌ এমন একটা পরিস্হিতি তৈরি করা হল, যাতে তিনি কিছুটা সম্মান নিয়ে নিজেই সরে যেতে পারেন৷‌ চুক্তি ছিল তাঁর সঙ্গে ২০১৫ সালের এপ্রিল পর্যম্ত৷‌ অর্থাৎ বিশ্বকাপের সময় যেন ধোনি-ফ্লেচার জুটির হাতেই থাকে দায়িত্ব৷‌ কিন্তু, টানা হারের পর বোর্ড কর্তাদের যখন জনতা প্রকাশ্যে তুলোধোনা করছে, তখন রাতারাতি, কিছু একটা করতে গিয়ে সাপোর্ট স্টাফদের বলি দেওয়ার সিদ্ধাম্ত নিল বোর্ড. চুক্তিভঙ্গ করলে ফ্লেচার আদালতে নিয়ে যেতে পারেন বোর্ডকে, তাই আইন বাঁচাতে তাঁকে অপদস্হ করে নিজ দায়িত্বে রেখে দেওয়ার ভান করা হল৷‌ দেওয়াল লিখন স্পষ্ট৷‌ এটা বুঝে ফ্লেচার পদত্যাগ করবেন, এমনই আশা করছে বোর্ড. সফরের মাঝপথে হঠাৎ বোলিং ও ফিল্ডিং কোচকে ‘ছুটি’ দেওয়াও হল এক আইনের ফাঁক৷‌ ফ্লেচার, পেনি ও ডস– এই ত্রিমূর্তি দ্রুত সরে গেলে, বোর্ড নতুন করে দল সাজানোর পরিকল্পনা করবে রবি শাস্ত্রীকে সামনে রেখে৷‌

বোর্ডের একটি সূত্র জানাচ্ছে, বোলিং কোচ ডস এবং ফিল্ডিং কোচ পেনিকে যখন সরকারিভাবে ছুটিতে যাওয়ার কথা বলা হয়েছিল সোমবার রাতে, তাঁরা জানতে চেয়েছিলেন, ছুটি কেন, ক’দিনের জন্য এবং এপ্রিল পর্যম্ত চুক্তির কী হবে? প্রথমে বলা হয়, নিজের দেশ বা অন্যত্র ছুটি কাটাতে যাওয়ার জন্য৷‌ পরে (একটু ঘুরিয়ে) জানিয়েই দেওয়া হয় যে চাইলে তাঁরা চুক্তির মেয়াদ পর্যম্ত বেঙ্গালুরুতে জাতীয় ক্রিকেট আকাদেমিতে কাজ করতে পারেন৷‌ অর্থাৎ টিম ইন্ডিয়ার জন্য দরজা আপাতত বন্ধ৷‌ এরপরও কি বিদেশি কোচরা পদত্যাগ করার কথা ভাববেন না?

কিন্তু, বিদেশি কোচদের সরানোর দাবি তো প্রচারমাধ্যম তুলে আসছিল অনেক আগে থেকেই৷‌ কেউ জানে না, জো ডস-কে বোলিং কোচ করা হয়েছিল কীসের ভিত্তিতে? কার পরামর্শে? শ্রীনিবাসন নিজের মর্জি মতো এই ত্রিমূর্তিকে ২০১৫ সালের বিশ্বকাপ পর্যম্ত চুক্তির মেয়াদ বাড়িয়ে দিয়েছিলেন৷‌ হারতে হারতে যখন খাদের তলানিতে এসে পৌঁছেছে সুনাম, তখন রবি শাস্ত্রীর ঘাড়ে দায়িত্ব তুলে দিয়ে নিজেদের ব্যর্থতা ও খামখেয়ালিপনার তীর অন্যদিকে ঘুরিয়ে দিতে চাওয়ার লক্ষ্যেই কিন্তু তড়িঘড়ি করে কোচ পরিবর্তন করার হিড়িক তুলে দিলেন৷‌ যা করার কথা ছিল অম্তত ২ বছর আগেই!

এবং তাঁরা ঘাঁটাতে চাইলেন না নাটের গুরুকে৷‌ এমন ধারাবাহিক ব্যর্থতার আসল দায়ী যে মহেন্দ্র সিং ধোনি, তা বোর্ড বুঝতে চাইল না৷‌ হতে পারে, বিশ্বকাপের কথা ভেবে তাঁকে এখন স্পর্শ করতে চাইছে না বোর্ড. কিন্তু এটা ঘটনা, চিফ কোচ ডানকান ফ্লেচার-সহ সব সাপোর্ট স্টাফ, সহ-অধিনায়ক, সব ক্রিকেটারকে তিনি কান ধরে ওঠবোস করিয়েছেন৷‌ সুতরাং, ব্যর্থতার সব দায় কোচদের ঘাড়ে চাপানোটা ঠিক নয়৷‌ আসামিদের কাঠগড়ায় অধিনায়ক ধোনিকে না রাখাটা সমর্থন করা উচিত হবে না৷‌ এখানে ১-৩ ব্যবধানে হারের কারণ খুঁজতে গেলে অধিনায়কের প্রচুর ভুলভাল সিদ্ধাম্তকে পাশ কাটিয়ে যাওয়া হল৷‌

২০০৭ সালে বিশ্বকাপ ভয়াবহ বিপর্যয়ের পর, বাংলাদেশ সফরের জন্য রবি শাস্ত্রীকে কোচ করে দেওয়া হয়েছিল হঠাৎই৷‌ মাত্র একটি সফরের জন্য৷‌ এর পর শাস্ত্রীকে সুযোগ দেওয়ার কথা ভাবেনি বোর্ড. জন রাইট, গ্রেগ চ্যাপেলের পর আদর করে নিয়ে আসা হয়েছিল ডানকান ফ্লেচারকে৷‌ ধোনি যাঁকে মনে করেন ‘সবচেয়ে ভাল টেকনিক্যাল কোচ’৷‌ ধারাবাহিক ব্যর্থতার পরও, তিনি বলে যাচ্ছেন, ডানকান কত ভাল কোচ৷‌ সেই ‘দুর্ধর্ষ’ কোচের ঘাড়ে শাস্ত্রীকে চাপিয়ে বোর্ড কি ধোনিকেও কোনও বার্তা দিতে চাইল? বোর্ড সেভাবে খোলসা করে কিছু না বলায়, নানা গল্প উড়ছে এখন বিলেতে৷‌ যার মধ্যে একটি হল, ধোনি কি এজন্য দুম করে নেতৃত্বের দায়িত্ব ছেড়ে দেবেন? বোর্ডের এমন তৎপর হয়ে ওঠায় অনেকেই বিস্মিত৷‌ বিস্ময়ের আরও কারণ হল, সব বিদেশিকে, একসঙ্গে ঝেঁটিয়ে বিদায় করার উদ্যোগ দেখে৷‌ দেখেশুনে মনে হচ্ছে, দেশি কোচদের হাতেই এখন যাবতীয় দায়িত্ব বোর্ড তুলে দিতে চাইছে টিম ইন্ডিয়াকে৷‌ কোনও লাভ হবে? মৌরসি পাট্টা ভাঙতে হল, এটা একটা দীর্ঘ প্রতিবাদের ফসল৷‌ আই পি এলে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবকে ভাল দলে রূপাম্তরিত করার পুরস্কার পেলেন সঞ্জয় বাঙ্গার৷‌ ভরত অরুণ এলেন চেন্নাই কোটা থেকে৷‌ তেমনি শ্রীধরের আগমন শিবনাথ যাদবকে খুশি রাখার জন্য৷‌ এটাকে পুরোপুরি পরিবর্তনের মঞ্চ হিসেবে ভাবাটা ভুল হবে৷‌ ধারাভাষ্যেই থাকতে চান রবি শাস্ত্রী৷‌ তাই আপাতত একদিনের সিরিজের জন্য দায়িত্ব নিতে রাজি হয়েছেন ডিরেক্টর অফ কোচিং৷‌ খুব বড় পদ৷‌ ভারতীয় বোর্ডে এই পদে আগে কাউকে বসানো হয়নি৷‌ এই চ্যালেঞ্জ নেওয়ার জন্য শাস্ত্রী কিন্তু প্রস্তুত৷‌


kolkata || bangla || bharat || bidesh || editorial || post editorial || khela ||
Tripura || Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited