Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ১৩ আশ্বিন ১৪২১ মঙ্গলবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৪
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  বিদেশ  সম্পাদকীয়  উত্তর সম্পাদকীয়  খেলা  আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
আনন্দ শুরু, সন্ধে থেকেই বোধন ।। আড়াই হাজার কোটি পণ্যমাশুল ফাঁকি! ।। কুণালের জবানবন্দী নেওয়ার অনুমতি আদালতের--ই ডি দপ্তরে কথা বললেন সৃঞ্জয় ।। ভাঙন ঠেকাতে বিধায়কদের নিয়ে বৈঠক ডাকল কংগ্রেস ।। জামিনের আবেদন, আজ শুনানি--জেলে জয়া: আত্মহত্যা, হৃদরোগে মৃত ১৬ ।। বোলপুর: পুলিসকে নিগ্রহের ঘটনায় আগাম জামিন খারিজ তৃণমূল নেতার ।। মার্কিন শিল্পপতি থেকে ওবামার মন চাইলেন মোদি প্রাতরাশে, নৈশভোজে ।। মোদিভক্তদের রাজদীপ-নিগ্রহের খবর উল্টে দিতে চাইলেন স্বামী ।। পাড়ুই-কাণ্ড: সি বি আই তদম্তের ওপর স্হগিতাদেশের মেয়াদ বৃদ্ধি ।। পুজোয় কলকাতা এক মিনি ভারত--শিখর কর্মকার ।। কুণাল তৃণমূলের সঙ্গে দরদাম করছেন: রাহুল ।। গরম দিয়ে শুরু হল পুজো, শেষের দিকে হালকা বৃষ্টি
খেলা

সৌরভ গাঙ্গুলির জায়গায় কোনও দিনই পৌঁছতে পারব না: সৌরভ

টাকা নেই, খালি পায়েই হাঁটতেন খুশবীর

চোটের জন্য বার্সা ম্যাচে নেই ইব্রা

টেনিসে প্রথম সোনা সানিয়াদের, অ্যাথলেটিক্সে সীমার

নাইটদের স্বপ্নের দৌড় থামছেই না

স্কোর

কুৎসিত ব্যাটিং, হার বাংলার

নর্ডির পুজোর ছুটি নেই

আত্মবিশ্বাসী নেতা, কোচ সতর্ক

বজরঙের রুপো

শচীনের খেদ

সুস্মিতা চতুর্থ, স্বপ্না পঞ্চম

যুবভারতীতে প্রস্তুতি শুরু গার্সিয়াদের

ইস্টবেঙ্গলের কিছু অ্যাকাউন্ট সিল করতে উদ্যোগী ই ডি

লালকার্ড! ক্ষমা চাইলেন রুনি

সৌরভ গাঙ্গুলির জায়গায় কোনও দিনই পৌঁছতে পারব না: সৌরভ

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share

নজরুল ইসলাম




শহরের নতুন ‘সেলিব্রিটি’৷‌ এক সৌরভের গ্ল্যামারে উদ্ভাসিত হয়েছিল কলকাতা, সেই ধারা বজায় রেখে চলেছেন আর এক সৌরভ৷‌ তুলনা চলে আসাটাই স্বাভাবিক৷‌ কিন্তু সৌরভ ঘোষাল যে এত লাজুক হয়ে পড়বেন, কে জানত? সৌরভ গাঙ্গুলির সঙ্গে তুলনা করতেই বলে ফেললেন, ‘প্লিজ, ওইভাবে তুলনা করবেন না৷‌ সৌরভ গাঙ্গুলির যা কৃতিত্ব, আমি কোনও দিনই ওই জায়গায় পৌঁছতে পারব না৷‌’ স্কোয়াশ র্যাকেট হাতে তুলে না নিলে হয়ত একদিন দুই সৌরভকে নিয়ে কাঁটাছেড়া চলত বঙ্গ ক্রিকেটে৷‌ অরুণলাল ক্রিকেট আকাদেমির এক দাপুটে অলরাউন্ডার আজ স্কোয়াশে ভারতের মহাতারকা৷‌

পতপত করে উড়ছে তেরঙা পতাকা৷‌ সাউন্ড সিস্টেমে বাজছে জাতীয় সঙ্গীত৷‌ সোনার পদক গলায় নিয়ে পোডিয়ামে দাঁড়িয়ে৷‌ ইনচেওনের মাটিতে গর্বে বুক ভরে উঠছিল বাংলার সৌরভ ঘোষালের৷‌ এই দিনের জন্যই তো তাকিয়ে থাকা, ২০ বছরের স্কোয়াশ জীবন সার্থক, ক্রিকেটার হতে না পারার কোনও আক্ষেপ নেই৷‌

কলকাতার চোখ তখন ঘুমে ডুবুডুবু৷‌ মাঝরাতে কলকাতা বিমানবন্দরে নেমে বেরিয়ে আসতেই সামনে দাদ্দু-ঠাম্মা৷‌ স্নেহের স্পর্শ ছুঁয়ে গিয়েছিল কলকাতার নতুন গৌরবকে৷‌ বাড়িতে ফিরেই ঘুম৷‌ সাতসকালেই ফ্ল্যাটের দরজায় মিডিয়ার কড়া নাড়া৷‌ শহরের নতুন ‘সেলিব্রিটি’কে নিয়ে অন্য উন্মাদনা৷‌ দীর্ঘ বিমানযাত্রার ক্লাম্তি ছিটেফোঁটা নেই৷‌ না থাকাটাই স্বাভাবিক, যতই হোক শহরের নতুন ‘সেলিব্রটি’ বলে কথা৷‌ এটুকু হ্যাপা তো সামলাতেই হবে৷‌ দেশের হয়ে সোনা জেতাটাই যেন সব ক্লাম্তি দূর করে দিয়েছে সৌরভ ঘোষালের৷‌ এশিয়ান গেমসে পদক জেতাটা যেন অভ্যাসে পরিণত করে ফেলেছেন৷‌ ২০০৬, ২০১০-এর পর ২০১৪৷‌ বারবার ব্রোঞ্জেই থেমে যেতে হচ্ছিল৷‌ এবার ব্যক্তিগত বিভাগে রুপো জয়৷‌ অল্পের জন্য সোনা হাতছাড়া৷‌ ফাইনালে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে থেকেও কুয়েতের আবদুল্লার কাছে হার৷‌ ব্যক্তিগত বিভাগে সোনা না জেতার আক্ষেপটা ছিল৷‌ দলগত বিভাগে সুদে-আসলে মিটিয়ে নিলেন৷‌ সেমিফাইনালে সেই আবদুল্লাদের হারিয়েই ফাইনালের ছাড়পত্র, তার পর তো ইতিহাস৷‌ এশিয়ান গেমস থেকে দেশকে প্রথম সোনা এনে দিতে পেরে গর্বিত সৌরভ৷‌ বলছিলেন, ‘অনেক বছর ধরে এই জায়গায় পৌঁছনোর জন্য মেহনত করেছি৷‌ দেশের জন্য সোনা নিয়ে আসতে পেরেছি, এটা সত্যিই গর্বের৷‌ ২০ বছর ধরে স্কোয়াশ খেলা আজ সার্থক৷‌ ব্যক্তিগত বিভাগে সোনা জিততে পারিনি, একটা আক্ষেপ ছিল৷‌ দেশকে সোনা এনে দিতে পেরে সেই আক্ষেপ মিটে গেছে৷‌’ ব্যক্তিগত বিভাগে কেন শেষরক্ষা হল না? বিপক্ষকেই কৃতিত্ব দিয়ে গেলেন সৌরভ, ‘আবদুল্লা ওই দিন খুব ভাল খেলছিল৷‌ আমিও খুব ভাল খেলছিলাম৷‌ ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে থেকেও শেষরক্ষা করতে পারলাম না৷‌ দু’জনেই যদি জিততাম, তা হলে সেটাই সঠিক ফলাফল হত৷‌ কিন্তু তা তো আর সম্ভব নয়৷‌’ এশিয়ান গেমসে সোনা জেতাটা স্কোয়াশ জীবনের সবচেয়ে বড় সাফল্য হিসেবে দেখলেও, এতেই সন্তুষ্ট হতে রাজি নন সৌরভ৷‌ এশিয়ান গেমসের পদক স্বপ্নের পরিধি আরও বাড়িয়ে দিয়েছে৷‌ বাংলার এই নতুন গৌরব বলছিলেন, ‘এই মুহূর্তে আমার বিশ্ব র্যাঙ্কিং ১৬৷‌ এক বছরের মধ্যে প্রথম দশে পৌঁছতে হবে৷‌’ পুজোর ক’টা দিন কলকাতায় কাটিয়ে উড়ে যাবেন ফিলাডেলফিয়া, ইউ এস ওপেনে অংশ নিতে৷‌ সারা বছরে স্কোয়াশে যে ৮টি সেরা প্রতিযোগিতা হয়, ইউ এস ওপেন তার মধ্যে অন্যতম৷‌ এশিয়ান গেমসে দেশের হয়ে সোনা জিতলেও অলিম্পিকে নামা হবে না সৌরভের৷‌ না, যোগত্যামান পার করার প্রশ্ন নয়৷‌ আসলে স্কোয়াশ যে অলিম্পিক থেকেই ব্রাত্য৷‌ আক্ষেপ করছিলেন সৌরভ, ‘অলিম্পিকে স্কোয়াশ নেই, এটা খুবই দুঃখজনক৷‌ বিশ্বের সবথেকে বড় স্টেজে নিজেকে জাহির করতে পারব না৷‌ এ বছর কমনওয়েলথ, এশিয়ান গেমস টার্গেট ছিল৷‌ লক্ষ্যপূরণ হয়েছে৷‌’ এশিয়ান গেমসে সোনা জয়, স্কোয়াশকে আরও পরিচিতি এনে দেবে বলে মনে করছেন সৌরভ ঘোষাল৷‌ ছোটবেলায় ক্রিকেট ও স্কোয়াশ, দুটি খেলার প্রতি তীব্র আগ্রহ ছিল৷‌ ১৩ বছর বয়সে ক্রিকেট ছেড়ে পুরোপুরি স্কোয়াশেই মনোযোগ দেন সৌরভ৷‌ ব্যাখ্যাও দিলেন, ‘আসলে পড়াশোনা, ক্রিকেট, স্কোয়াশ তিনটে এক সঙ্গে সামলানো সম্ভব ছিল না৷‌ তাই ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়ে স্কোয়াশকেই বেছে নিয়েছিলাম৷‌ আসলে ক্রিকেটের থেকে আমি ছোটবেলায় স্কোয়াশটাই বেশি উপভোগ করতাম৷‌’ স্কোয়াশের জন্যই কলকাতার পাট চুকিয়ে পাড়ি দেন চেন্নাই৷‌ সেখান থেকে লিডস৷‌ লিডসে যাওয়ার সিদ্ধাম্তই তাঁর জীবনের টার্নিং পয়েন্ট বলে মনে করছেন সৌরভ৷‌ বলছিলেন, ‘লিডস না গেলে আজ হয়ত এই জায়গায় পৌঁছতাম না৷‌’ কথা বলতে বলতে শুভেচ্ছা জানাতে বাড়িতে চলে এলেন রাজ্যের মন্ত্রী সুব্রত ভট্টাচার্য৷‌ ঘোষণা করলেন, রাজ্যের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেওয়া হবে৷‌ অথচ ব্যক্তিগত বিভাগে পদক জেতার পরদিনই তামিলনাডু সরকার পুরস্কারের কথা ঘোষণা করেছে৷‌ সেই প্রসঙ্গ তুলতেই সৌরভ বলে গেলেন, ‘কোথায় কী পুরস্কার পেলাম, সে কথা ভাবি না৷‌ যদি নিজের রাজ্য থেকে কিছু পাই, অবশ্যই খুশি হব৷‌’ সারাদিন বিশ্রাম, বিকেলে বন্ধুদের সঙ্গে পুজোমণ্ডপে৷‌ না, কোথাও বিড়ম্বনায় পড়তে হয়নি সৌরভ ঘোষালকে৷‌ ‘সেলিব্রিটি’ হয়েও যে তিনি ‘সেলিব্রিটি’ নন৷‌ ক্রিকেটের সৌরভ আর স্কোয়াশের সৌরভের মধ্যে যে আকাশ-পাতাল তফাত৷‌ ‘তারকা’ হতে সময় লাগবে ঘোষাল পরিবারের এই ছেলেটার৷‌


kolkata || bangla || bharat || bidesh || editorial || post editorial || khela ||
Tripura || Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited