Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ৬ শ্রাবণ ১৪২১ বুধবার ২৩ জুলাই ২০১৪
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  বিদেশ  সম্পাদকীয়  উত্তর সম্পাদকীয়  খেলা  আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
আধিকারিকদের তৃণমূলি হুমকি, বন্ধের মুখে ই সি এলের কোলিয়ারি ।। রাজ্য সতর্ক থাকলে এনসেফেলাইটিসে মৃত্যু কমত: সূর্য ।। তৃণমূল: পুর নির্বাচনে বি জে পি কোনও ফ্যা’র নয় ।। ৩ আগস্ট দিল্লি ও ১৭ আগস্ট সিঙ্গাপুর যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী ।। প্রীতি: মুখে জ্বলম্ত সিগারেট ছুঁড়ে মেরেছিল নেস ।। রাষ্ট্রপতি ভবনের জাদুঘর অবারিত করছেন প্রণব ।। পাড়ুই-কাণ্ড: সি বি আই তদম্ত কেন নয় ।। ভর্তির দাবিতে প্রেসিডেন্সিতে অবস্হান আই সি-র ।। ব্রিটিশ বিশেষজ্ঞরা পরীক্ষা করবেন ভেঙে পড়া বিমানটির ব্ল্যাক ব‘ ।। সংসদের স্হায়ী কমিটি: রেলে দীনেশ, কে ডি পরিবহণ ও পর্যটনে ।। শ্যাম সেল: উল্টে এবার মানহানির মামলা ২ তৃণমূলির! ।। আজ শহরে কেশরীনাথ, কাল শপথ
খেলা

ধোনিদের উচ্ছ্বাস ‘স্যর’কে নিয়ে!

এই ইংল্যান্ডকে না হারালে আর কাকে হারাবে!

ব্যারেটো, অর্ণব খুশি, মর্গানের জালে মেহতাব, মুম্বইয়ে সুব্রত, নবি

দলকে জিতিয়ে অভিমানী ঈশাম্ত

এবার টেকনিক্যাল দিকে জোর: সুভাষ

সৌরভের দলে নেই! আপশোস

তিকিতাকাই ভরসা আর্মান্দোর

কমনওয়েলথ উদ্বোধনে বিশেষ ভূমিকা শচীনের

গুরুত্বপূর্ণ মোড়! দ্রাবিড়কে কৃতিত্ব দিলেন গাভাসকার

কোচ দুঙ্গা

সৌরভের দল কলকাতাতেই খেলবে: ক্রীড়ামন্ত্রী

পেমেন্টে অখুশি বাইচুং

কুক হটাও দাবি উঠল

সতর্ক করলেন শচীন

বাকি সিরিজে নেই প্রায়র

অ্যান্ডারসনের সাক্ষ্য নেবেন লুইস, জাদেজার ডেভিড বুন

আমি পুরোপুরি চোটমুক্ত: রোনাল্ডো

এগিয়ে গেল বাংলা

শুভেচ্ছা মোদির

ধোনিদের উচ্ছ্বাস ‘স্যর’কে নিয়ে!

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share

দেবাশিস দত্ত, লন্ডন

২২ জুলাই– লর্ডস যেন স্তব্ধ হয়ে গিয়েছিল, অ্যান্ডারসন রান আউট হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে৷‌ অ্যালিস্টার কুক বা ইয়ান বেল-দের গালাগাল করার মতো শক্তিও যেন ছিল না গ্যালারিতে৷‌ ই সি বি অফিসে যাওয়ার পথে দেখলাম নার্সারি এন্ডের ছোট মাঠে শোকাহত দর্শককুল৷‌ ফ্যাল ফ্যাল করে তাকিয়ে ছিলেন কেউ কেউ৷‌ অধিকাংশেরই মাথা হেঁট৷‌ পিছনে সাইন বোর্ডে জ্বলজ্বল করছিল ভারতের ৯৫ রানে জেতার কথা৷‌ যাচ্ছিলাম, ধোনি এবং কুকের সাংবাদিক সম্মেলনে৷‌ অনেকটা পথ পেরোলে পরে পৌঁছনো যায়৷‌ যাওয়ার পথে, একই লিফটে ছিলেন দুই প্রাক্তন ইংরেজ অধিনায়ক৷‌ অ্যান্ড্রু স্ট্রস এবং মাইকেল ভন৷‌ দুজনের কথাবার্তা হুবহু তুলে দিচ্ছি: মাইকেল ভন: অ্যালিস্টার কুকের জন্য খারাপই লাগছে৷‌

অ্যান্ড্রু স্ট্রস: বয়স কম৷‌ ম্যাচিওরিটি কম৷‌ কিন্তু প্লেয়ারটা বড্ড ভাল৷‌ সবাই শুধু আমরা অ্যালিস্টার কুককে দায়ী করছি, কিন্তু ইয়ান বেল কী করছে? ওরও তো রান নেই৷‌

মাইকেল ভন: নেই মানে? একেবারেই নেই৷‌ এবং বেল হল দলের ভাইস ক্যাপ্টেন!

অ্যান্ড্রু স্ট্রস: কুক আসলে ডুবল সিনিয়রদের ব্যর্থতায়৷‌ ম্যাট প্রায়র, স্টুয়ার্ট ব্রড, কে কী করেছে?

মাইকেল ভন: কুককে সরিয়ে দিলে ক্যাপ্টেনসি করবে কে? একটা নাম বল৷‌ নিয়মানুযায়ী কুক যদি নিজে সরেও যায়, ক্যাপ্টেন হওয়ার কথা বেলের! কিন্তু তার যা ফর্ম....৷‌

অ্যান্ড্রু স্ট্রস: এখন আর শুধু একা কুক-কে দায়ী করা বোধহয় ঠিক হবে না৷‌ দলের খেলায় কোনও দিশা কিন্তু দেখতে পাওয়া যাচ্ছে না৷‌

পরের তিরিশ মিনিটেই আমরা জেনে গিয়েছিলাম যে অ্যালিস্টার কুক নেতৃত্বের দায়িত্ব এখনই ছাড়ছেন না৷‌ এবং তাতে গোসা হয়েছেন অনেকেই৷‌ এঁদের মধ্যে আছেন ইয়ান বথাম, নাসের হুসেন, জিওফ বয়কট প্রমুখ৷‌ প্রেস কনফারেন্স শেষ করে আবার যখন আমরা লর্ডসের ঝুলম্ত মিডিয়া বক্সে ফিরছি, তখন লর্ডস প্রায় শুনশান৷‌ সাফাই কর্মীরা শুধু নিজেদের কাজে ব্যস্ত ছিলেন৷‌ আড়াই তলায় স্টুডিওয় অবশ্য ছিলেন বথাম, বয়কটরা৷‌ ডেভিড গাওয়ার, নাসের হুসেনদের মুখ কালো৷‌ বয়কট ব্যতিক্রম৷‌ হাসছিলেন যথারীতি, ‘আগুন নিয়ে যেমন খেলতে নেই, তেমনই ক্রিকেট মাঠে বাজে অধিনায়কেরও কোনও জায়গা নেই৷‌ টিভি শো-এ দেখলাম, আমাদের অনেক বিখ্যাত প্রাক্তন ক্রিকেটার ইংল্যান্ডের পরাজয়ে শোকে কাতর হয়ে পড়েছে৷‌ আমি ওদের বলে এলাম, নটিংহ্যাম থেকেই তো দেওয়াল লিখন স্পষ্ট ছিল৷‌ তোমরা কেন তা দেখেও কুকের ওপর আস্হা রেখেছিলে?’

নাসের হুসেন যেন কথাই বলতে পারছিলেন না, ‘যা চেয়েছে, সব পেয়েছে ওরা৷‌ সবুজ পিচ৷‌ বাউন্সসম্পন্ন পিচ৷‌ এমনকী ধোনিদের সৌজন্যে বার তিনেক সুযোগও এসেছিল জেতার৷‌ তবু ওরা হেরে বসল৷‌ একটা দল এতটা আত্মবিশ্বাস হারিয়ে ফেলতে পারে?’ পারল তো! তবু ওঁরা কিন্তু কেভিন পিটারসেনকে ফিরিয়ে আনার কোনও উদ্যোগ নেবেন না! অধিনায়ক কুক আশাবাদী, তিনি রান পাবেন এবং দলও জিতবে নাকি সাউদাম্পটন টেস্ট থেকে! জিতলে ভালই হবে৷‌ সিরিজ আরও আকর্ষণীয় হয়ে উঠবে৷‌ ৫ টেস্টের সিরিজ হয়ে উঠবে জমজমাট৷‌

দিনকাল পাল্টেছে এতটাই যে ম্যাচ জেতার পর ভারতীয় ক্রিকেটাররা বিশেষ উচ্ছ্বাস দেখাল না! এমনকী ড্রেসিংরুম থেকে বেরিয়ে ওঁরা চলে গিয়েছিলেন হোটেলে যেখানে অপেক্ষা করছিলেন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডকর্তারা৷‌ এমনকী এন শ্রীনিবাসন পর্যম্ত৷‌ শ্রীনিবাসন এলেন, হঠাৎ অবশ হয়ে গেল ইংল্যান্ড! যেমন গত বছর আই সি সি চ্যাম্পিয়নশিপে ইংল্যান্ড একা নয়, দক্ষিণ আফ্রিকা, অস্ট্রেলিয়া পর্যম্ত অপ্রত্যাশিতভাবে আত্মসমর্পণ করেছিল একের পর এক! জাদেজাকে নিয়ে হইচই হচ্ছিল বেশি ভারতীয় শিবিরে৷‌ কপিলদেব কিন্তু বেশি উচ্ছ্বসিত হচ্ছিলেন ভুবনেশ্বর কুমারকে নিয়ে, ‘কেয়া প্লেয়ার নিকালা! বোলিং তো ভালই৷‌ কিন্তু ব্যাটসম্যান ভুবনেশ্বর তো আমার মন জয় করে নিয়েছে বেশি৷‌ ওর ব্যাটিং দেখে কে বলবে ও ৯ নম্বর ব্যাটসম্যান৷‌’ ছিয়াশির জয়ের কথাও উঠল, ‘মনোজ প্রভাকরের সঙ্গে আমার সম্পর্ক খারাপ হয়েছে অনেক পরে৷‌ কিন্তু একটা ভুলের কথা, আমি এই সুযোগে স্বীকার করে নিই৷‌ মনোজ খেলতে চেয়েছিল লর্ডস টেস্ট সেবার৷‌ কিন্তু আমি ওকে না খেলিয়ে, মদনলালকে ডেকে এনেছিলাম৷‌ লর্ডস টেস্ট যারা জিতেছে, তাদের মধ্যে এখনও যে রোমাঞ্চ হয়, তা মনোজের হয় না কারণ ওকে আমি খেলাইনি৷‌ তিরাশির ২৫ জুন লর্ডসে বিশ্বকাপ ফাইনালে আমার কাছ থেকে বল চেয়ে নিয়ে মদন আউট করেছিল ভিভিয়ান রিচার্ডসকে৷‌ আমি একজন অভি: বোলারকে খেলাতে চেয়েছিলাম বলেই মদনলালকে ডেকে খেলানোর সিদ্ধাম্ত নিয়েছিলাম৷‌ মদন খেলছিল বিলেতেই ক্লাব ক্রিকেট৷‌ সফরকারী দলে ও জায়গা পায়নি প্রথমে৷‌ তাই, মনোজের দুঃখটা আমি উপলব্ধি করি৷‌’ ভারতীয় শিবির যথারীতি জমজমাট৷‌ কান পাতলেই শোনা যাচ্ছে সেই স্লোগান যা কলকাতায় বাসের পেছনে লেখা থাকে, ‘দ্যাখ কেমন লাগে৷‌’ জিমি অ্যান্ডারসন বিতর্কই যে তাঁদের লর্ডস টেস্ট জেতার ইন্ধন জুগিয়েছে পরোক্ষে, তারই যেন প্রতিধ্বনি শোনা যাচ্ছে এই স্লোগানে! ওঁদের অনুমান, এই সিরিজের মতো অ্যান্ডারসনকে তাঁরা ঠান্ডা করে দিতে পেরেছেন!


kolkata || bangla || bharat || bidesh || editorial || post editorial || khela ||
Tripura || Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited