Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ৮ কার্তিক ১৪২১ রবিবার ২6 অক্টোবার ২০১৪
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  বিদেশ  সম্পাদকীয়  উত্তর সম্পাদকীয়  খেলা  আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
তৃণমূলে হানাহানি, ভাঙড়ে হত ২--গৌতম চক্রবর্তী ।। পাড়ুই-কাণ্ড: থমথমে চৌমণ্ডলপুর গ্রাম--অনুপম বন্দ্যোপাধ্যায়, চন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়, সিউড়ি ।। টিকিট পাচ্ছেন না রাজীব, কাউ ও শৈলেন--কলকাতা পুরসভায় তৃণমূল চায় ১৩০ ।। কাশ্মীর, ঝাড়খণ্ডে পাঁচ দফায় ভোট --শুরু ২৫ নভেম্বর ।। ভাঙড়ে পুলিস ঢুকবে? বোম মারবে যে: বিমান ।। বিসর্জনে বোমায় মৃত্যু শিক্ষকের ।। নদীর জল থেকে উদ্ধার তৃণমূল নেতার দেহ, বসিরহাটে উত্তেজনা ।। দত্তপুকুরে তৃণমূল-বি জে পি সঙঘর্ষ, আহত ৬, নামল র্যাফ ।। সোনিয়া-রাহুলকে চিদম্বরমের প্রকাশ্য-পরামর্শে দল বিরক্ত ।। ভাগবতের কাছে গাডকারি, মহারাষ্ট্রে শপথ শনি-রবিবার? ।। ভাঙড়ের ঘটনায় জেলা রিপোর্ট চাইল তৃণমূল ।। মন্ত্রীমশাই, হেলমেট কই?
খেলা

হোম অ্যাডভান্টেজের পুরো সুযোগ নিল রিয়েল

তরুণ ব্যাটসম্যানদের শচীনের উদাহরণ দিলেন লক্ষ্মণ

গোড়ালিতে চোট পেয়ে আজ নেই মাইকেল চোপরা

হাবাস চার ম্যাচ, ফিকরু ও পিরেসের দুই ম্যাচ নির্বাসন

নির্বাসন, চোট, তবু আত্মবিশ্বাসী কলকাতা, চিম্তা শুধু মর্গান

রাষ্ট্রপতি না আসায় শ্রীনিবাসন!

নজর দিক আই সি সি

কটকে পরীক্ষা, ঋদ্ধির আশা সুস্হ হয়ে উঠবেন

দেল পিয়েরোরা ওড়ালেন মাতেরাজ্জিদের

মেসি-আগুয়েরো রাত কাটানোর গল্প

ধোনি এবার হকিতেও

গারওয়ালের ১৩২ বলে ২১২

আজ ম্যাচের আগে বাংলার প্রাক্তন অধিনায়কদের সংবর্ধনা

৪০ বছর পর অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ২ ইনিংসেই শতরান

৩ নভেম্বর নাদালের অস্ত্রোপচার

ধোনি ভাল, কিন্তু সৌরভই সেরা অধিনায়ক: যুবরাজ

হেরেই গেল ম্যাঞ্চেস্টার সিটি

দায়িত্ব ছাড়লেন সুব্রত

অনুশীলন শুরু, কাল ডুরান্ড খেলতে যাচ্ছে মহমেডান

দলীপের ফাইনালে মধ্যাঞ্চল

হোম অ্যাডভান্টেজের পুরো সুযোগ নিল রিয়েল

মেসির গোল মিস অবিশ্বাস্য!

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share

সুরজিৎ সেনগুপ্ত




রিয়েল মাদ্রিদ ৩ বার্সিলোনা ১

(রোনাল্ডো, পেপে, বেনজিমা) (নেইমার)

(৭)৪-রিয়েলের মাঠে গিয়ে এত তাড়াতাড়ি গোল পেয়ে যাওয়ায় বার্সিলোনার একদিকে অ্যাডভান্টেজ হয়েছিল৷‌ অন্যদিকে এত তাড়াতাড়ি গোল হওয়ায় রিয়েল মাদ্রিদ অ্যালার্ট হওয়ার সুযোগও পেয়ে গিয়েছিল৷‌ ডানদিকে সুয়ারেজের পাস থেকে নেইমার যে গোল করল তা অসাধারণ৷‌ গ্রেট গোল৷‌ প্রতিভাবানরাই এমন গোল করতে পারে৷‌ মুহূর্ত যেতে না যেতেই বেনজিমা পৌঁছে গিয়েছিল বার্সার গোলের কাছাকাছি৷‌ বেনজিমার ওই মুভমেন্ট আর গোল খেয়ে যাওয়ার খোঁচাটাই তাতিয়ে দিয়েছিল রিয়েলকে৷‌ তারপর প্রায় ১০ মিনিট অ্যাটাক করতে থাকল৷‌ রোনাল্ডোর ক্রস, বেনজিমার হেড বারে লেগে ফিরে আসে৷‌ ফিরতি বল পেয়েছিল বেনজিমা, তবে এবার ঠিক রাখতে পারেনি৷‌ বাইরে চলে যায়৷‌ এরপর ম্যাচটা একটু ধরে বার্সা৷‌ ক্রমশই বোঝা যাচ্ছিল দুটো শ্রেষ্ঠ দলের খেলা চলছে৷‌ খেলার মান সত্যিই এমনই উচ্চতায় পৌঁছেছিল৷‌ গোলের অ্যাডভান্টেজ থাকলেও প্রথমার্ধের ২০ থেকে ৪০ মিনিট পর্যম্ত কে যে এগিয়ে, ম্যাচের লাগাম কার হাতে বোঝা যাচ্ছিল না৷‌ কারণ, দুটো দলই প্রচণ্ড গতিতে অ্যাটাক করছিল৷‌ মনে হচ্ছিল, যে কোনও দল, যে কোনও মুহূর্তে গোল করতে পারে৷‌ ওই সময় দুটো টিমেরই, বিশেষ করে রিয়েলের রক্ষণে পেপে-র্যামোসকে দেখেই বোঝা যাচ্ছিল চাপে আছে৷‌

মেসির পা থেকে গোল যে কী করে মিস হল! সুয়ারেজ ঠিক জায়গাতেই বল রেখেছিল৷‌ মেসি যখন বলের কাছে পৌঁছে গেছে, তখন ৬ গজের মধ্যে৷‌ ওই অবস্হায় মেসির মিস করাটা অবিশ্বাস্য! ওই সময় মেসি বোধহয় ভেবেছিল গোল করে ফেলেছি৷‌ ওই আত্মতুষ্টির ফলে যা হয়েছে, তাতে ক্যাসিয়াস প্রচণ্ড রিফ্লেক্সে সেভ করে দিয়েছে৷‌ নিশ্চিত গোল বাঁচিয়েছে৷‌ তার পর ৫ মিনিটে তিনটে চান্স৷‌ মেসির ডানদিক থেকে লো ক্রস৷‌ নেইমারের ট্যাপ ঠিক না হওয়ায় বল বাইরে চলে যায়৷‌

এরপর ৩৪ মিনিটে পেনাল্টি৷‌ ওই সময় কিন্তু ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ বার্সার হাতে ছিল৷‌ গতির বিপরীতে গিয়ে আক্রমণে যায় রিয়েল৷‌ মার্সেলো দৌড়ে গিয়েছিল৷‌ ব্যাক পাসে পিকে হাত লাগাল৷‌ রেফারিকে বোঝানোর সময় পিকের মুখের ভাব দেখে মনে হয়েছে, ও স্লিপ করে গিয়েছিল৷‌ হাত সরাতে পারেনি৷‌ ওই জায়গায় বল হাতে লাগলে, হলুদ কার্ড, পেনাল্টি হবেই৷‌

বিরতির সময় খেলার ফল ১-১৷‌ প্রথমার্ধের খেলা দেখে একটা প্রশ্ন জেগেছে মনে৷‌ জাভি যখন কর্নার শট নিল, তখন বক্সের মধ্যে নেইমারের কোমর ধরে ফেলে দিয়েছিল মার্সেলো৷‌ কেন রেফারি এটা ওভারলুক করল? মার্সেলো যা করেছে, সেটা খুবই ঝুঁকির কাজ৷‌ রেফারি দেখলে ওটা পেনাল্টি দিত৷‌ বেনজিমাকে যখন পিকে ফাউল করেছে, সেটা ওভারলুক হওয়া অস্বাভাবিক নয়৷‌ তবে মার্সেলোর কাণ্ড রেফারির চোখ এড়িয়ে যাওয়া আশ্চর্যের! প্রথমার্ধের খেলা দেখে বোঝা যায়নি, কী রেজাল্ট হবে৷‌ ম্যাচের কোনও কোনও মুহূর্ত তো অসাধারণ উচ্চতায় পৌঁছেছিল৷‌

তবে দ্বিতীয়ার্ধের খেলার বিবরণে যাওয়ার আগে বলে নেওয়া উচিত, পাঞ্জাব দলের বিরুদ্ধে পাঞ্জাবের মাঠে গিয়ে যেমন খেলা কঠিন, রিয়েলের মাঠেও তাই৷‌ হোম অ্যাডভান্টেজ বলতে যা বোঝায়, রিয়েলে পুরোপুরি সুযোগ কাজে লাগিয়েছে৷‌ দ্বিতীয়ার্ধের খেলায় চোরাগোপ্তা পা চালাচালি ছিল৷‌ ম্যাচের সেরা প্লেয়ার যদি আমাকে বাছতে দেওয়া হয়, মার্সেলোকে বাছব৷‌ বার্সিলোনার ডিফেন্সে সব সময়ই একটা থ্রেট থাকে৷‌ মাসচেরানো ছাড়া কাউকেই রক্ষণে খুঁজে পাওয়া যায়নি৷‌ তবে লাথি মারা, ধাক্কা মারা বলতে আমরা যা বুঝি, এদিন দ্বিতীয়ার্ধে কিন্তু সবই হয়েছে৷‌ কারভাজাল, নেইমারের সঙ্গে যা করেছে, তারপরও যে সারাক্ষণ ও কী করে মাঠে থেকে গেল, সেটাই আশ্চর্যের৷‌ এটাও হোম অ্যাডভান্টেজেরই নিদর্শন৷‌ ভাল প্লেয়ারকে আটকে দেওয়ার জন্য এভাবেই একজন কমা প্লেয়ারকে রাখা হয়, যে টাফ ট্যাকল করবে৷‌ মারতে গিয়ে ওই কমা প্লেয়ার যদি কার্ডও দেখে, তা হলেও দলের তেমন ক্ষতি হবে না৷‌ পাঞ্জাবেও এই পদ্ধতির মুখোমুখি হতে হয়েছে আমাদের৷‌ ৪ মিনিটের মাথায় নেইমার গোল পেয়ে যাওয়ার পরই রিয়েল এবং কারভাজাল বুঝে গিয়েছিল একে সহজে আটকানো যাবে না৷‌ তাই তখনই সিদ্ধাম্ত নেয় মারার! সাধারণ, কোনও দল গোল না পেলে মারপিট করে৷‌ রিয়েল গোল পাওয়ার পর মারপিট শুরু করল৷‌ আর এই মারপিটে নেতৃত্ব দিল পেপে৷‌ র্যামোসও তাই করে গেল৷‌

জানি না, আলবাকে বাঁদিকে কেন খেলাল না! ম্যাথুকে স্টপারে খেলিয়ে ওকে বাঁদিকে খেলানোই যেত৷‌ দ্বিতীয়ার্ধে বলার মতো ম্যাথুর দূরপাল্লার শট৷‌ যা ক্যাসিয়াস সেভ করেছে৷‌ একটা কথা বলতে ইচ্ছে করছে৷‌ পিকের বোধহয় এবার সময় হয়েছে৷‌ বার্সার ডিফেন্সের বোঝা৷‌

তৃতীয় গোলটা ও তার পরে রিয়েল যে তিন-চারবার বার্সার বক্সে পৌঁছেছে, তা মেসি-নেইমারদের দলের সিলি মিসটেকে৷‌ চাপের মুখে ভুল করে বসেছে৷‌ রাকিটিচ নামার পর বেশ নড়বড়ে দেখিয়েছে৷‌ ওই সময় ডিফেন্স থেকে ক্লিয়ারেন্স হল, ইস্কো ফলো করে আসছিল, ইনিয়েস্তা চেস করতে গিয়ে টোকা দিল, বল রোনাল্ডোর কাছে, সেখান থেকে রডরিগেজের পা হয়ে পৌঁছল বেনজিমার কাছে৷‌ ও ভুল করেনি৷‌ ৬১ মিনিটে সঠিক শটে গোল৷‌ ইনিয়েস্তার মতো অভি: প্লেয়ারও সিলি মিসটেক করে ফেলল!

ম্যাচের ফল ৩-১৷‌ গোল নিয়ে কোনও বিতর্ক নেই৷‌ তবে হোম অ্যাডভান্টেজেই কারভাজাল মাঠে থেকে গেল নেইমারের সঙ্গে এত কিছু করার পরও! অনেক আগেই দুটো হলুদ কার্ড দেখিয়ে ওকে মাঠের বাইরে বের করে দেওয়া উচিত ছিল৷‌ রিয়েলের প্লেয়ারদের পা চালাচালি যে রেফারির নজরে এল না, হলুদ কার্ড উপেক্ষার সব সুবিধা যে রিয়েল পেল– তাও ওই হোম অ্যাডভান্টেজেই৷‌ তবে এসবের সঙ্গে ম্যাচের ফলের সম্পর্ক নেই৷‌ রিয়েল সঙ্গতভাবে জিতেছে৷‌ তবে দ্বিতীয়ার্ধে বার্সার প্রাধান্য ছিল৷‌ মেসি নিজের অবস্হা থেকে সামান্য দূরে থাকলে যা হয়, বার্সার ঠিক তাই হল৷‌





kolkata || bangla || bharat || bidesh || editorial || post editorial || khela ||
Tripura || Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited