Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ৮ শ্রাবণ ১৪২১ শুক্রবার ২৫ জুলাই ২০১৪
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  বিদেশ  সম্পাদকীয়  উত্তর সম্পাদকীয়  খেলা  আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
শিশুকে গণধর্ষণ! তান্ত্রিক মরল গণপিটুনিতে ।। ব্যাঙ্কের কর্মী পরিচয় দিয়ে ছাত্রীকে অ্যাসিড ছুঁড়ে পলাতক যুবক ।। সারদায় আমিই প্রতারিত: ই ডি-কে বললেন মিঠুন ।। ই সি এলের চুনীলাল সাসপেন্ড হতেই গ্রেপ্তার ।। পাক-বধূ বলে সানিয়াকে অপমান বি জে পি-র! ।। বিদেশি পুঁজি বাড়ল, বিমা বিল এবার? ।। শপথ নিয়ে কেশরীনাথ: মমতার সঙ্গে সঙঘাত নয় ।। কুমোরটুলিতে মশাসুরের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে পুরসভা ।। এবার আফ্রিকায়! বিমান ধ্বংস ১১৬ আরোহী নিয়ে ।। পূজার খোঁজে ভিন রাজ্যে হানা পুলিসের ।। উত্তম-সুচিত্রা চলচ্চিত্র উৎসব শুরু নন্দনে ।। দুটি ফিল্মসিটি হবে রাজ্যে: মুখ্যমন্ত্রী
খেলা

ঢোকার মুখে মার্শাল স্মৃতি! মাঠজুড়ে ওয়ার্ন

অফিসিয়াল সঙে, উল্টো ভারতের পতাকা!

বিলেতের ডায়েরি

পরিকল্পনামাফিক দল: ব্যারেটো

৭ গোলে শুরু করলেন ভ্যান গাল

সবুজ উইকেট তৃতীয় টেস্টেও

ভারতকে প্রথম সোনা এনে দিলেন সঞ্জিতা

ট্রায়ালে এলেন ফেলেইরো, বাগানের কোচ শঙ্করলাল চক্রবর্তী

কলঙ্কিত ভারত, ডোপে ধরা পড়লেন প্যারা-পাওয়ারলিফটার

চ্যাম্পিয়ন্স লিগ

রাহানে আর ধোনির প্রশংসা লক্ষ্মণের মুখে

বার্সার নেতা? স্বপ্ন: ইনিয়েস্তা

প্রত্যাহার মো ফারার

জয়বর্ধনেকে থামানো যাচ্ছে না

জয়ী ভারত ‘এ’

জোসেফের হ্যাটট্রিক

ঢোকার মুখে মার্শাল স্মৃতি! মাঠজুড়ে ওয়ার্ন

খরগোশ, বুনো শেয়াল, হোটেল, মাঠ!

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share

দেবাশিস দত্তল্সাউদাম্পটন

২৪ জুলাই– ’৯৪ বিশ্বকাপে বস্টনে ফ‘বরো স্টেডিয়ামে যাওয়ার পথেও পেরোতে হয়েছিল এমন বনানী৷‌ একেবারে শহরের শেষ প্রাম্তে৷‌ আগেও এসেছি এ মাঠে৷‌ রাস্তা আছে একই রকম৷‌ বুনো শেয়াল, খরগোশরা সূর্য ডুবলেই রাস্তায় বেরিয়ে পড়ে৷‌ সামনে হাইওয়ে থাকায় দ্রুতগামী গাড়ির চাকার তলায় এমন কত প্রাণী যে জীবন দিয়েছে, তার কোনও হিসাব নেই৷‌ তবু ওরা বেরোয় প্রতি সন্ধ্যায়৷‌ আমরা আছি এজিস বোল মাঠের সামনের একমাত্র হোটেল হলিডে ইন এক্সপ্রেসে৷‌ আশপাশে পাঁচ মাইলের মধ্যে কোনও সাড়াশব্দ পাওয়া যায় না, হুশ করে চলে যাওয়া গাড়ির আওয়াজ ছাড়া৷‌ লাঞ্চ বা ডিনারের জন্য যেতে হচ্ছে শহরের সিটি সেন্টারে৷‌ তা না হয় যেতে হচ্ছে, কিন্তু মাঠে ঢুকব কোথা থেকে?

অন্য বারের মতো যে পথ দিয়ে মাঠে ঢোকার কথা, সেখানে সবুজ জ্যাকেট পরা নিরাপত্তারক্ষীরা আটকে দিলেন৷‌ কেন? এখানে হিলটন হোটেল তৈরি হচ্ছে৷‌ নিরাপত্তার কারণেই এদিক দিয়ে যাওয়া যাবে না৷‌ উল্টোপথে পৌঁছনো গেল৷‌ কিন্তু হোটেল কোথায়? ভুল বলেননি তিনি৷‌ হিলটন হোটেলের বলরুমে বসে রিপোর্ট পাঠাতে হবে মিডিয়াকে এখানে এবার৷‌ এখন অস্হায়ীভাবে ওই বলরুমে গ্যালারি তৈরি করে প্রেসবক্সতৈরি করা হচ্ছে৷‌ ড্রেসিংরুমের উল্টোদিকে হিলটন হোটেল৷‌ ভাবতে পারছেন? ইডেনের ক্লাব হাউসের উল্টোদিকে, হাইকোর্ট প্রাম্তে মাথা তুলছে তাজ বা ওবেরয় গ্রুপের কোনও হোটেল৷‌ অনেকটা সেরকম৷‌ পরে এমনও হতে পারে, ক্রিকেটারদের ওই হোটেলেই থাকার বন্দোবস্ত করবে ই সি বি৷‌ হোটেলের ঘর থেকে দেড় মিনিটেরও কম সময়ে মাঠে নেমে আসতে পারবেন ক্রিকেটাররা৷‌ হয়ত৷‌

কিন্তু এখন৷‌ ‘হয়ত’-কে আপাতত বাদ রাখছি৷‌ এখন যে অবস্হায় রয়েছে ভবিষ্যতের হিলটন হোটেল, তাতে একশো শতাংশ নিরাপত্তা কিন্তু থাকবেন না মিডিয়ার লোকজনদের৷‌ এই তালিকায় শেন ওয়ার্ন থেকে সুনীল গাভাসকার, সৌরভ গাঙ্গুলি থেকে মাইকেল হোল্ডিং, ডেভিড গাওয়ার থেকে ইয়ান বথাম প্রত্যেককেই কিন্তু নির্মীয়মাণ পাঁচতারা হোটেলের মিডিয়া সেন্টারে পৌঁছতে হবে যথেষ্ট ঝুঁকি নিয়ে৷‌ একটি লিফট চলছে, যার দেওয়াল তৈরি করা হয়েছে হালকা প্লাই দিয়ে৷‌ ধুলো, আবর্জনা পেরোনোর পর অপলকা একটা লিফট, বুঝতে পারছেন অবস্হাটা৷‌ কেন সাউদাম্পটনের বদলে হেডিংলিকে টেস্ট আয়োজনের দায়িত্ব তুলে দেওয়া হল না, এ প্রশ্ন অবাম্তর৷‌ কেন হঠাৎ হঠাৎ বড় বড় ম্যাচ ইডেন পেয়ে এসেছে এতকাল? রাজনৈতিক সমীকরণের জটিল অঙ্ক যেমন ভারতীয় ক্রিকেটে আছে, তেমনই আছে ই সি বি-তেও৷‌

এ মাঠ বেশ বড়৷‌ লর্ডসের চেয়ে বড়৷‌ শহরের শেষ প্রাম্তে হওয়ায় জমি পেয়েছিল বিস্তর৷‌ কিন্তু আগে যে ঘাসজমি ছিল, তা আর নেই৷‌ গ্যালারি মাথা তুলছে৷‌ যেমন তুলছে হিলটন হোটেল৷‌ ড্রেসিংরুম এলাকা অক্ষত রেখে বাকি সব কিছুতেই পরিবর্তনের ছবি৷‌ এমনকি নামও পাল্টে গেছে৷‌ রোজ বোল থেকে এজিস বোল৷‌ স্মৃতি হাতড়ে হাতড়ে মনে করতে হবে যে, এ মাঠে আপনি একদা এসেছিলেন! এটা হ্যাম্পশায়ার কাউন্টি ক্রিকেট ক্লাবের নতুন মাঠ৷‌ পুরনো মাঠের স্মৃতিকে ধরে রাখা হয়েছে নতুন মাঠে ঢোকার মুখে৷‌ ম্যালকম মার্শাল ড্রাইভ৷‌ হাইওয়ে থেকে মাঠের দিকে যাওয়ার পথে শুরুতেই রাস্তার দু’ধারে এমন ফলক৷‌ গর্ডন গ্রিনিজ, ম্যালকম মার্শালরা হ্যাম্পশায়ারকে অতীতে, কাউন্টি ক্রিকেটে যে সাফল্য এনে দিয়েছিলেন, তা কর্তারা মনে রেখেছেন৷‌ মার্শাল আর নেই, তাই তাঁকে এভাবেই স্মৃতিতর্পণ করা হয়েছে৷‌

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেটের এই দুই স্তম্ভ বিদায় নেওয়ার পর, বিশেষত নতুন মাঠ তৈরির পর থেকে গোটা স্টেডিয়াম জুড়ে আছেন শেন ওয়ার্ন৷‌ মাঠে ঢোকার মুখেই যে গ্যালারি, তার নাম ‘শেন ওয়ার্ন স্ট্যান্ড’৷‌ নিচে শেন ওয়ার্ন বার৷‌ বিশাল৷‌ আমরা অবশ্য শেন ওয়ার্নকে বাঁ-হাতের আঙুলে প্লাস্টার করা অবস্হায় দেখেছি লর্ডসে৷‌ এখানেও থাকবেন ধারাভাষ্যকার হিসেবে৷‌

উইকেট ঢাকা৷‌ যতটুকু দেখা যাচ্ছিল, তাতে ওই অঞ্চলটাই সবুজ৷‌ ঘাস না থাকায় মম্হর উইকেটের কারণে নটিংহ্যামের উইকেট সম্পর্কে খুব খারাপ রিপোর্ট দেওয়ার খবর জেনে হ্যাম্পশায়ার মম্হর উইকেট বানাবে, এমন ভাবার কোনও কারণ নেই৷‌ ইংল্যান্ড যদি সত্যিই প্রত্যাবর্তন করতে চায়, তাহলে প্রাণবম্ত উইকেটের মাধ্যমেই যেতে হবে৷‌ ভারত প্রস্তুত৷‌ এখনও পর্যম্ত ধোনিরামরা কিন্তু উইকেটের সমালোচনা করেননি৷‌ ফ্ল্যাট উইকেট, ঘাসের উইকেট– দু’ ধরনের উইকেট নিয়ে কোনও আপত্তি না জানিয়েও এখনও পর্যম্ত ওঁরা সিরিজে এগিয়ে আছেন৷‌ বৃহস্পতিবার দুপুরে টিম ইন্ডিয়া প্র্যাকটিসে নামলেও লর্ডসের হেরোরা এখনও পর্যম্ত যে যাঁর নিজের বাড়িতে রয়েছেন পরাজয়ের ঘা শোকানোর জন্য৷‌ অ্যালিস্টার কুকরা শুক্রবার থেকে নামবেন অনুশীলনে, রবিবার থেকে এখানে শুরু হওয়া তৃতীয় টেস্টের জন্য৷‌ ইংল্যান্ড অদ্ভুত কারণে রয়েছে গুটিয়ে, সেখানে টিম ইন্ডিয়া রয়েছে একদম ফুরফুরে মেজাজে৷‌


kolkata || bangla || bharat || bidesh || editorial || post editorial || khela ||
Tripura || Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited