Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ১৪ ফাল্গুন শুক্রবার ২৭ ফব্রুেয়ারি ২০১৫
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  সম্পাদকীয়  উত্তর সম্পাদকীয়  খেলা  আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
বেচে দিলেন প্রভু! ।। রেল বাজেট: বোকা বানাচ্ছে ওরা: মমতা ।। রেল বাজেটে বাংলার প্রাপ্তি শূন্য ।। সারদা: চ্যালেঞ্জ ছুঁড়লেন মুখ্যমন্ত্রী ।। বাম রক্তক্ষরণ অব্যাহত!--অসিত দাস ।। ধাক্কা খাবে অর্থনীতি বলছেন বিশেষজ্ঞরা ।। ভারতীয় রেল নাম সার্থক করলেন প্রভু: রাহুল সিনহা ।। কার্যত প্রভুর প্রশংসা মুকুলের ।। হুমায়ুনকে ৬ বছরের জন্য বহিষ্কার করল দল ।। চিটফান্ড নিয়ে বিধানসভায় খোদ মুখ্যমন্ত্রী এখন আলোচনা চাইছেন, চার বছরে হুঁশ ফিরল? - সূর্যকাম্ত ।। এই টিম ভারতকে রোখা কঠিন: গাভাসকার--দেবাশিস দত্ত ।। কাল কোচহীন ভারত
খেলা

এই টিম ভারতকে রোখা কঠিন: গাভাসকার

হতদরিদ্র শিল্পীর আঁকায় দেশবাসীর স্বপ্ন

আজ সভা, তৈরি বাগানের শাসকগোষ্ঠী

ডালমিয়াজিকে প্যাট্রন-ইন-চিফ করার প্রস্তাব

কাল কোচহীন ভারত

আত্মবিশ্বাসী মোহনবাগান, চাই ৩

উদ্বাস্তু-শিবির থেকে বিশ্বকাপের আসরে!

এস এম এস বর্জনেই সাফল্য এসেছে: মঈন

ভারতীয় দলে কোহলিই কিন্তু আসল: হোল্ডিং

অনুশীলনে নেই গেইল

ম্যাকালামকে রোখার ছক কষছে অস্ট্রেলিয়া

ইস্টবেঙ্গলের সমস্যা ক্লাম্তি আর বয়স

আম্তর্জাতিক সাফল্য - স্বপ্ন সফল হলেও চিম্তা কাটছে না সবজি বিক্রেতার

সাঙ্গাকারা-দিলশানের শতরানে জয়

শচীনের ২০০ রানের জার্সি নিলাম হয়ে যাচ্ছে

উচ্ছ্বসিত সানি

ফিল্ডিংয়ে হঠাৎ চোট সাউদির

অঘটন মোনাকোর

প্রথম জয় আফগানিস্তানের

মুম্বইয়ের চাই ৩৮৪, কর্ণাটকের ১০ উইকেট

হল অফ ফেমে মার্টিন ক্রো

এই টিম ভারতকে রোখা কঠিন: গাভাসকার

দেবাশিস দত্ত

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share

সেই কবে গেছেন টেস্ট সিরিজ চলাকালীন৷‌ বলতে গেলে, অস্ট্রেলিয়ার পক্ষ থেকে তাঁকেও দেশের নাগরিকত্ব নেওয়ার প্রস্তাব আসতেই পারে৷‌ বিরাট কোহলি, মহেন্দ্র সিং ধোনিদের মতো সুনীল গাভাসকারও মাঝে দেশে ফেরার কথা ভাবেননি৷‌ ভাবছেন না, ফিরবেন একেবারে বিশ্বকাপের শেষে৷‌ বৃহস্পতিবার পার্থ থেকে যখন কথা বলছিলেন আজকাল-এর সঙ্গে, তখন শুরুই করলাম ৩০ অথবা ৩১ মার্চ দেশে ফেরার ব্যাপারটা সামনে রেখে৷‌

ল্কী মনে হচ্ছে ধোনি-কোহলিদের সঙ্গে বিশ্বকাপ নিয়ে আপনিও একইসঙ্গে দেশে ফেরার বিমান ধরবেন?

সুনীল গাভাসকার: দেশে ফিরব কবে সে-ব্যাপারে এখনই কিছু বলতে পারছি না৷‌ তবে ৩০ বা ৩১ মার্চ টিম ইন্ডিয়া যদি কাপ জিতে ফিরতে পারে দেশে, তার চেয়ে সুখের মুহূর্ত আর হবে না৷‌

ল্’৮৫-তে আপনার ভারত কিন্তু মেলবোর্ন থেকে বেনসন অ্যান্ড হেজেস কাপ জিতে দেশে ফিরেছিল৷‌ সেরকম যদি আবার ঘটে? ফাইনাল কিন্তু খেলতে হবে মেলবোর্নেই৷‌

সুনীল গাভাসকার: জানি তো৷‌ ইন্ডিয়া যদি ফাইনালে ওঠে, তা হলে, গ্যালারিতে একটি আসনও খালি থাকবে না৷‌ এখানে এসে শুনলাম, ’৯২-এ বিশ্বকাপ ফাইনাল দেখতে যত দর্শক এসেছিল, তা এখনও রেকর্ড হয়ে আছে৷‌ আমার ধারণা, ভারত ফাইনালে খেললে ওই রেকর্ড অক্ষত থাকবে না৷‌ ইন্ডিয়া ভার্সেস সাউথ আফ্রিকা ম্যাচে তো মেলবোর্নে নজিরবিহীন দর্শক সমাগম ঘটেছিল৷‌ ভারত ভাল খেললে, এখন বিদেশে লোকে লোকারণ্য হয়ে যাচ্ছে৷‌ ভারতে ভাল লাগছে, ধোনি এবং কোহলিরা কিন্তু প্রকাশ্যেই জানিয়ে দিচ্ছে যে, গ্যালারিতে এত বেশি দর্শক সমর্থন থাকছে যে, ওরা আরও ভাল খেলার জন্য নিজেদের উদ্দীপ্ত করতে পারছে৷‌

ল্শেষ পর্যম্ত কতদূর যেতে পারে ভারত? ভারত বনাম সংযুক্ত আরব আমিরশাহি ম্যাচে কী হবে, তা মোটেই জানতে চাইছি না৷‌

সুনীল গাভাসকার: জানতে হয়ত চাইছেন না৷‌ আমরা সবাই জানি, শনিবার ভারত নিশ্চয়ই জিতবে৷‌ কিন্তু ক্রিকেট খেলা তো, তা-ও ৫০ ওভারে, দু-একজন ব্যাটসম্যানের লেগে গেলে উল্টোপাল্টা রেজাল্ট হতেও পারে৷‌ ভারত হারছে শনিবার, এই ছবিটা সত্যিই আমরা কেউ দেখছি না৷‌ আমার ধারণা, ভারত প্রতিটি ম্যাচ জিতে কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছতে চাইছে৷‌ ম্যাচ জেতার জন্য যে খুনে মানসিকতা জরুরি, সেটা পাকিস্তান ম্যাচ থেকে ধোনিরা দেখাচ্ছে৷‌ ঘোষণা হয়ত হয়নি, কিন্তু ভারত যে কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছবে, এটা তো আমরা সবাই জানি৷‌ ব্যক্তিগত ধারণা, সেমিফাইনাল পর্যম্ত পৌঁছনোর ব্যাপারটা অনেকটাই নিশ্চিত৷‌ চার সেরা দল থাকবে সেমিফাইনালে, তখন অনেক কিছু ঘটতে পারে৷‌

ল্দেশ কিন্তু ধরেই নিয়েছে ভারত চ্যাম্পিয়ন হয়ে ফিরবে....৷‌

সুনীল গাভাসকার: ভাল ব্যাপার তো৷‌ যেটা খারাপ ব্যাপার, তা হল, দুম করে হেরে গেলে তারা যেন আবার ঢিলটিল ছুঁড়তে না শুরু করে৷‌

ল্খারাপ খেলতে খেলতে হঠাৎ এমন ভাল খেলার রাস্তায় পৌঁছনোর রহস্য?

সুনীল গাভাসকার: সেল্ফ বিলিভ৷‌ নিজেদের প্রতি আত্মবিশ্বাস৷‌ এটা ওরা ফিরে পেয়েছে পাকিস্তান ম্যাচে৷‌ তার পর থেকে দলটা দৌড়চ্ছে৷‌ ভেরি গুড সাইন৷‌ তবে, আমাকে যদি নির্দিষ্টভাবে কোনও কারণ জানতে চাওয়া হয়, তাহলে আমি কিন্তু বোলিং বিভাগের উন্নতির কথা বলব৷‌ মাঝে একটা সময় ছিল, ভারত যদি সাড়ে তিনশো রানও তুলে ফেলত, আমাদের বোলাররা উদার হস্তে সেই রান বিলিয়ে দিতে দিতে দলকে হারের রাস্তায় নিয়ে যাচ্ছিল৷‌ এখন জোরে বোলাররা তো বটেই, স্পিন বোলাররাও বুদ্ধি করে বল রাখছে৷‌ ধোনি নেতৃত্ব দিচ্ছে চমৎকার৷‌ ফলে দল ক্রমশ উন্নতি করছে৷‌

ল্একই সঙ্গে দলের সবাই ভাল খেলে৷‌ আবার একই সঙ্গে ওই দলই খারাপ খেলে৷‌ এমন উদাহরণ কিন্তু ক্রিকেট দুনিয়ায় খুব বেশি নেই৷‌

সুনীল গাভাসকার: (হাসতে হাসতে) এখন আর এ সব নিয়ে ঘাঁটাঘাঁটি করে কোনও লাভ হবে? এ সব ব্যাপার নিয়ে পরে না হয় বিস্তারিত আলোচনা করা যাবে৷‌ এখন কী চাইছেন? নিশ্চয়ই চাইছেন, দল আরও ভাল খেলুক৷‌ ইনফ্যা’, আরও ভাল খেলতেই হবে৷‌ কারণ, কোয়ার্টার ফাইনাল, সেমিফাইনাল এবং ফাইনাল– তিনটেই কিন্তু বেশ বড় ম্যাচ৷‌ হেরে গেলে ছিটকে যেতে হবে, এটা মাথায় রাখার ফলে ভারতকে কিন্তু, এখন থেকেই বেশ ঝকঝকে মনে হচ্ছে৷‌

ল্ভাবতে পেরেছিলেন, ২২ ফেব্রুয়ারি মেলবোর্নে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ওই রকম বড় ব্যবধানে হারাতে পারবে ভারত?

সুনীল গাভাসকার: অনেস্টলি স্পিকিং, নো৷‌ ১৭৭ রানে দক্ষিণ আফ্রিকার মতো ব্যাটিং লাইনআপ খতম হয়ে যাবে, এটা কল্পনাতেও আনা কঠিন৷‌ কিন্তু এটা ঘটেছে৷‌ এজন্য আমি মোহিত শর্মা এবং মহম্মদ সামির দুটো থ্রোয়ের কথা বলব৷‌ ক্যাচ ধরে যে, ম্যাচ জেতে সে৷‌ তেমনি ভাল ফিল্ডিং করা দলও অনেক সময় অঘটন ঘটিয়ে ফেলে৷‌ ডি’ভিলিয়ার্স এবং মিলার রানআউট হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে দক্ষিণ আফ্রিকা খোলসের মধ্যে ঢুকে পড়েছিল৷‌

ল্ভারত তো এখন ফিল্ডিংয়ের পেছনে অনেক সময় খরচ করছে...৷‌

সুনীল গাভাসকার: খুব ভাল খবর৷‌ রক্তের স্বাদের মতো৷‌ ভাল ব্যাটিং ও বোলিংয়ের সঙ্গে ফিল্ডিং মানানসই হলে অনেক বড় দলকে যে হারানো যায়, সেটা তো টিম ইন্ডিয়া নিজেরাই দেখেছে পাকিস্তান ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে খেলার সময়৷‌ এবং সঙ্গে সঙ্গে আরও তীক্ষ্ন করতে চাইছে৷‌ বিশ্বকাপ জেতার খিদেটা এই বাড়তি অনুশীলনের মধ্যে প্রতিফলিত৷‌

ল্আপনিই যদি এতটা আশাবাদী হন, তাহলে তো সাধারণ জনতা আশাবাদী হবেই৷‌

সুনীল গাভাসকার: আগে বলা হচ্ছিল, কাপ না জিতলেও চলবে, কিন্তু পারিস্তানকে হারাতে হবে৷‌ পাকিস্তানের পর দক্ষিণ আফ্রিকা বধের পর্ব শেষ৷‌ তাহলে আশাবাদী না হওয়ার তো কারণ দেখছি না৷‌ ভাল খেলে, লড়াই করে যদি হেরে যায়, তাহলে দুঃখ থাকে না৷‌ সফরের শুরুতে ভারত তো লড়তেই পারছিল না৷‌ এখন, সম্পূর্ণ উল্টো ব্যাপার৷‌ ১১ জন ক্রিকেটারই সম্মিলিতভাবে ঝাঁপাচ্ছে জেতার জন্য৷‌ এই টিম ইন্ডিয়াকে এখন রোখা কঠিন৷‌







kolkata || bangla || bharat || editorial || post editorial || khela || Tripura ||
Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited